শাওয়ালের ছয় রোজা

  মুফতি হেলাল উদ্দীন হাবিবী ১৪ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

এলো মহিমান্বিত মাস শাওয়াল। এ মাসের প্রথম দিন হল মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসবের দিন ‘ঈদুল ফিতর’। শাওয়াল মাসের গুরুত্বপূর্ণ আমল হল ছয়টি রোজা রাখা। রাসূলুল্লাহ (সা.) এ ছয়টি রোজা রাখতেন এবং সাহাবায়ে কেরামদের উৎসাহিত করতেন। হজরত আবু আইয়ুব আনসারী (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, যে ব্যক্তি রমজানের রোজা রাখল তারপর শাওয়াল মাসে ছয়টি রোজা রাখল, সে যেন সারা বছরই রোজা রাখল। (মুসলিম) হজরত সাওবান (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, যে ব্যক্তি ঈদুল ফিতরের পর (শাওয়াল মাসে) ছয়টি রোজা রাখবে, সে সারা বছর রোজা রাখার সওয়াব লাভ করবে। (ইবনে মাযাহ)

আল্লাহতায়ালা পবিত্র কোরআনের সূরা আনআমের ১৬০ নম্বর আয়াতে ইরশাদ করেন, ‘যে ব্যক্তি একটি নেক কাজ করবে, সে দশগুণ বেশি সওয়াব লাভ করবে’।

হজরত উবাইদুল্লাহ (রা.) বলেন, আমি একদিন রাসূলুল্লাহ (সা.) কে জিজ্ঞেস করলাম, হে আল্লাহর রাসূল! আমি কি সারা বছর রোজা রাখতে পারব? তিনি বললেন, তোমার ওপর তোমার পরিবারের হক রয়েছে। কাজেই তুমি সারা বছর রোজা না রেখে রমজান মাসের রোজা রাখ এবং শাওয়ালের ছয়টি রোজা রাখ। তাহলেই তুমি সারা বছর রোজা রাখার সওয়াব লাভ করবে। (তিরমিজি)

শাওয়াল মাসের ছয় রোজায় বিশেষ দুটি ফায়দা রয়েছে।

* মাহে রমজানের রোজায় কোনো কমতি হয়ে থাকলে, এ ছয়টি রোজার মাধ্যমে তার ক্ষতিপূরণ হয়ে যাবে।

* রাব্বুল আলামিন আমাদের মাহে রমজানের রোজা, তারাবিহ, সেহরি ও ইফতারসহ বিভিন্ন নেক আমল করার তাওফিক দান করেছেন, শাওয়াল মাসের ছয় রোজা রেখে তার শুকরিয়া আদায় করা হয়।

Email : [email protected]

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×