কারবালা ধারাবাহিক

  হোসাইনি মস্তক নিয়ে বেয়াদবি ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ইমাম হোসাইনের মস্তক নিয়ে উবায়দুল্লাহ বিন জিয়াদের বেয়াদবি। পাপাচারিণী মারজানার অবৈধ সন্তান উবায়দুল্লাহ বিন জিয়াদ রাসূল (সা.)-এর আহলে বায়েতের নারী ও শিশুদের বন্দি করে গভর্নর প্রাসাদের সিংহাসনে বসল। বন্দিত্বের অমানবিকতায় তারা সবাই আতঙ্কিত সময় পার করছিলেন। অপরদিকে দুষ্কৃতকারীরা বিন জিয়াদকে তার বিজয়ের অভিনন্দন জানাচ্ছিল এবং কারবালার অপরাধের বর্ণনা দিচ্ছিল আর আনন্দ ও ঔদ্ধত্যের সঙ্গে উবায়দুল্লাহ সেগুলো শুনছিল। হাতে থাকা ছড়ি দিয়ে অভিশপ্ত ইবনে জিয়াদ ইমাম হোসাইনের পবিত্র মস্তকে আঘাত করতে লাগল এবং এই বলে তার সংকীর্ণ আত্মতৃপ্তিতে বলতে লাগল, ‘আমি এমন চেহারা কখনও দেখিনি’। তার প্রতারণামূলক কথা শেষ হলে সাহাবি আনাস ইবনে মালিক বলেন, হ্যাঁ, তিনি দেখতে রাসূল (সা.)-এর মতো। এ কথা উবায়দুল্লাহকে বাকরুদ্ধ করেছিল। রাসূল (সা.)-এর আহলে বায়েতকে ধ্বংস করার তৃষ্ণা নিবারণের পর উবায়দুল্লাহ বিন জিয়াদ বন্দিদের দিকে মনোযোগ দিল। সেখানে একজন নারী নিজেকে দূরবর্তী স্থানে আড়াল করার চেষ্টা করতে লাগলেন। এই নারীর পরিচয় জানতে চাইলে তাকে বলা হল, এ হচ্ছে রাসূল (সা.)-এর কন্যা ফাতিমা জাহরার সন্তান জয়নাব। আহলে বায়েতের ওপর তার মিথ্যা অহংকার জাহির করার জন্য সে বলল, প্রশংসা আল্লাহর যিনি তোমাদের বিদ্রোহ দমন করেছেন। প্রত্যুত্তরে হজরত জয়নাব বলেন, ‘সব প্রশংসা আল্লাহর, যিনি আমাদের নবুয়্যত দিয়ে সম্মানিত করেছেন এবং সব ধরনের অপবিত্রতা থেকে মুক্ত করেছেন। শুধু লম্পটদের মুখোশই উন্মোচিত হয়েছে আর চরিত্রহীনরাই পরাজিত হয়েছে। আমরা এ দুটির একটিও নই। সত্যিই, এ দুটির একটিও আমরা নই, ইবনে মারজানা!’ এ আকস্মিক জবাব শুনে উবায়দুল্লাহ কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে গেল। তাই তার পরাজয় ও প্রত্যুত্তরের অক্ষমতা আড়াল করার জন্য প্রতিহিংসামূলক উক্তি করল, ‘তুমি কি দেখনি, আল্লাহ তোমার ভাইয়ের সঙ্গে কী করেছেন’? সাহসিকতা ও দৃঢ়তার সঙ্গে বিজয়ী কণ্ঠে হজরত জয়নাব জবাব দিলেন, এটা কল্যাণ ব্যতীত আর কিছুই নয়। এরা ছিলেন সেই লোক যাদের হত্যার ব্যাপারে আল্লাহ জানেন। তাই তারা সেখানেই এসেছিলেন, যেখানে তাদের হত্যা করা হবে। আল্লাহ তোমাকে বিচার দিবসে তাদের সামনে বিচার ও শাস্তির জন্য উপস্থিত করবেন। সেদিন দেখ কে বিজয়ী হয়। সেদিন শোক হবে তোমার জন্য ইবনে মারজানা।

পরাজয় ও অপমানের এ প্রত্যুত্তর পিতৃ পরিচয়হীন উবায়দুল্লাহকে এমন মাত্রায় উত্তেজিত করেছিল, সে দাঁড়িয়ে গেল এবং হজরত জয়নাবকে আঘাত করতে উদ্যত হলে আমর বিন হোরাইস তাকে সাবধান করে দেয়, সে একজন নারী মাত্র, আর কোনো নারীর কথা গ্রহণযোগ্য নয়। মুহাম্মদ বিন জারির আল-তাবারি, তারিখ উল উমাম ওয়াল মুলক, খণ্ড-২৬৩ থেকে। হ [চলবে]

[ইবনে তাউসের কারবালার ইতিহাস গ্রন্থ থেকে নেয়া]

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×