ঐতিহাসিক এশায়াত সম্মেলন

  ছিবগাত উল্লাহ মোহাম্মদ আরিফ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

এ পৃথিবী যতবার আঁধারে ডুবেছে, বেদনায় কেঁদেছে, বিষাদে ভেসেছে। ততবারই খোদা দয়া ও মেহেরবাণীর দুয়ার খুলে নুরের আলোয় রাঙিয়েছেন সব ধরণিলোক। স্মৃতির দর্পণে ভেসে ওঠে চৌদ্দশ’ বছর আগের মদিনার অলিগলি জুড়ে ছড়িয়ে থাকা স্মৃতির পাপড়িগুলো। যার কুটিরে আলো জ্বালানোর মতো কিছুই ছিল না, তিনিই করেছেন পৃথিবীকে নুরের আলোতে আলোকময়, সৃষ্টির প্রাণে প্রাণে বাজিয়েছেন তৌহিদ বীণা, প্রেমময় সীমাহীন আল্লাহ ভীতির অনুরণন, অগাধ বিশ্বাসের অনুরঞ্জন, সর্বোপরি জাতে নুরের ঐশী জলোয়ার হেদায়াতিময় বিস্ফোরণ। অনাহারে-অর্ধাহারে চলেছেন তবুও শোকরগুজার করেছেন, তায়েফের প্রান্তরে রক্ত মোবারক ঝরিয়েছেন; বিনিময়ে ক্ষমার বার্তা দিয়েছেন নির্দয়-নিষ্ঠুর প্রাণে তাওয়াজ্জুহ্ প্রক্ষেপণে হেদায়াতির শরাব বিলিয়েছেন। এরই ফলশ্রুতিতে বিশ্বময় আজ ইসলামের পতাকা পতপত করে উড়ছে, উড়বেই ইন্শাআল্লাহ। সেই পথ ধরে যুগে যুগে আশেকে ইলাহি মাহবুবে রাসূল তথা সলফে সালেহীন কদম-ব-কদম নবী (দ.)’র অনুসরণে আর অনুকরণে রত ছিলেন। সভ্যতার গণজোয়ারে উত্তাল তরঙ্গে মানুষ যখন বেভুল হয়ে ছুটে চলছে আত্মপরিচয় ভুলে, তখন আমরা পেয়েছি কালজয়ী এমন এক রাহবারকে; যিনি চট্টগ্রাম জেলার রাউজান থানার কাগতিয়ার মিনার থেকে ঘোষণ দিলেন জীবন জাগানিয়া, ঘুম ভাঙানিয়া, রুহ রাঙ্গানিয়া হেদায়াতিময় প্রেমের ধ্বনি। তিনি হলেন কাগতিয়া আলিয়া গাউছুল আজম দরবার শরিফের প্রতিষ্ঠাতা, আওলাদে মোস্তফা, খলিফায়ে রাসূল (দ.) হজরত শায়খ ছৈয়্যদ গাউছুল আজম রাদ্বিয়াল্লাহু আন্হু। যার জীবনের প্রতিটি কাজকে ব্যবচ্ছেদ করলে, তার ব্যবহৃত বর্ণমালাকে অনুধাবন করলে, তার নীরবতাকে নিভৃতে ভাবলে ফুটে ওঠে তাকওয়ার গভীর উপলব্ধি, তাওয়াক্কুলের নিবিড় অনুশীলন এবং তাওয়াজ্জুহ্ প্রক্ষেপণের মাধ্যমে আত্মবিসর্জন এবং আল্লাহ ও রাসূল (দ.)’র সন্তুষ্টি অর্জনের অশ্রুময় এক উপাখ্যান। নবীজির মতো শৈশবে পিতামাতাকে হারিয়ে এতিম হয়েছিলেন। জীবনে কঠিন সংগ্রামে কত শত দিন-রাত না খেয়ে কাটিয়েছেন। তবুও নড়েননি খোদার পথ থেকে, সরেননি প্রিয়নবীর সুন্নাত থেকে। যার জীবনের দুঃখগুলো বোঝানোর জন্য কেউ ছিল না, অথচ তিনি হয়েছেন সবার দুঃখের ভাগী, সৃষ্টির প্রতি অনুরাগী, ভালোবাসার বিনিময়ে শ্রেষ্ঠ ত্যাগী। তাই তো তার সংস্পর্শে-সংশ্রবে দূর হয় জীবনের সংশয়। পবিত্র কোরআনে ইরশাদ হয়েছে- তোমরা মানুষকে আল্লাহর পথে ডাক; হেকমত ও উত্তম নসিহতসহকারে। কোরআনের এ ঘোষণাকে অক্ষরে অক্ষরে বাস্তবায়ন করেছেন তাওয়াজ্জুহ্র মাধ্যমে হেকমত প্রদর্শন করে এবং এশায়াত সম্মেলন, এশায়াত মাহফিল, এশায়াত সেমিনার ও বিভিন্ন কনফারেন্সের মাধ্যমে মানবজাতিকে কোরআন-হাদিসের আলোকে আল্লাহ ও নবীজির পথে ডেকেছেন। এ চলার পথে অশ্র“ ছিল যার দুই নয়নের অলঙ্কার। শরিয়ত ও সুন্নাত পরিপন্থী কোনো কাজ করেননি, এটাই ছিল যার শ্রেষ্ঠ কেরামত। দুর্যোগে-দুর্দশায় নবীজির কদম ধরে কেঁদেছেন আল্লাহর সহায়তা কামনায়। সৃষ্টির প্রতি অসীম প্রেমের আকুতি হিসেবে অবিরত দোয়া করতেন- হে আল্লাহ! আমার তরিকতকে আরব থেকে আজমে, জিন থেকে ইনসানে পৌঁছে দাও। তার দোয়া আজ আল্লাহর মেহেরবাণীতে প্রিয়নবীর দয়াতে বাস্তবতায় দৃশ্যমান। ২২ ফেব্রুয়ারি ঢাকার গুলিস্তানে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ঐতিহাসিক এশায়াত সম্মেলন। হে মুসলিম উম্মাহ্! এসো জড়ো হই হেদায়াতির মজলিশে। খোদাপ্রেমের স্রোতধারায়, এশকে নবীর বিহ্বলতায়, মাগফিরাতের সুতীব্র আকুলতায়, হেদায়াতিময় শান্তির আকুলতায়।

লেখক : প্রাবন্ধিক

email : [email protected]

আরও পড়ুন

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৪২৪ ৩৩ ২৭
বিশ্ব ১৬,০৪,৫৩৫ ৩,৫৬,৬৬০ ৯৫,৭৩৪
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত