জাল সার্টিফিকেটধারী চাকরিজীবীর বেতন কি বৈধ?
jugantor
ইসলাম বিষয়ক প্রশ্নোত্তর
জাল সার্টিফিকেটধারী চাকরিজীবীর বেতন কি বৈধ?

  মুফতি ইমরানুল বারী সিরাজী  

১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মোহাম্মদ রিয়াজ উদ্দিন, জার্মান

প্রশ্ন : কেউ জাল সার্টিফিকেটের মাধ্যমে চাকরি করলে তার বেতন বৈধ হবে কি?

উত্তর : ইসলামি শরিয়তে জাল সার্টিফিকেট বানানো মারাত্মক অপরাধ- গুনাহের কাজ। কেননা এটি মিথ্যা ও প্রতারণা। তবে বেতন হচ্ছে কাজ ও কর্মের বিনিময়। কাজ করে অর্থ উপার্জন করা একটি বৈধ পন্থা। তাই চাকরির বেতন বৈধ হবে। মনে রাখবেন, মিথ্যা ও প্রতারণা থেকে বেঁচে থাকা একজন ইমানদারের কাজ। মিথ্যা মানুষকে ধ্বংস করে দেয়। মিথ্যুকদের প্রতি আল্লাহর অভিশাপ।

তথ্যসূত্র : সূরা আল ইমরান, আয়াত নং-৬১, আবু দাউদ শরিফ, হাদিস নং-৪৯৮৯, আল বাহরুর রায়েক, খণ্ড-৮, পৃষ্ঠা-১৯, কিতাবুল ফাতাওয়া, খণ্ড-৫, পৃষ্ঠা-৩৯৫।

আলহাজ সৈয়দ জহির উদ্দিন আহমদ

মুগদা, ঢাকা

প্রশ্ন : কবর দেওয়ার আগে মৃত ব্যক্তির জন্য কুরআন তেলাওয়াত করে ইসালে সাওয়াব করা যাবে কি?

উত্তর : মৃত ব্যক্তিকে কবর দেওয়ার আগে ইসালে সওয়াবের জন্য কুরআনুল কারিম পড়া যাবে। এতে কোনো সমস্যা নেই। তবে কিছু ইসলামিক স্কলারদের মতামত হলো, মৃত্যুর কারণে মানুষ নাপাক হয়ে যায় এবং গোসল দেওয়ার পর পবিত্র হয়। তাই মৃত ব্যক্তিকে গোসল দেওয়ার আগে লাশের পাশে বসে কুরআন শরিফ পড়া যাবে না। তবে দূর থেকে পড়া যাবে।

তথ্যসূত্র : সূরা মুহাম্মদ, আয়াত নং-১৮, ফতোয়ায়ে শামি, খণ্ড-৩, পৃষ্ঠা-৮৪, কিতাবুল ফাতাওয়া, খণ্ড-৩ পৃষ্ঠা-২১৭।

লেখক: খতিব, পীর ইয়ামেনী জামে মসজিদ, গুলিস্তান, ঢাকা

ইসলাম বিষয়ক প্রশ্নোত্তর

জাল সার্টিফিকেটধারী চাকরিজীবীর বেতন কি বৈধ?

 মুফতি ইমরানুল বারী সিরাজী 
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মোহাম্মদ রিয়াজ উদ্দিন, জার্মান

প্রশ্ন : কেউ জাল সার্টিফিকেটের মাধ্যমে চাকরি করলে তার বেতন বৈধ হবে কি?

উত্তর : ইসলামি শরিয়তে জাল সার্টিফিকেট বানানো মারাত্মক অপরাধ- গুনাহের কাজ। কেননা এটি মিথ্যা ও প্রতারণা। তবে বেতন হচ্ছে কাজ ও কর্মের বিনিময়। কাজ করে অর্থ উপার্জন করা একটি বৈধ পন্থা। তাই চাকরির বেতন বৈধ হবে। মনে রাখবেন, মিথ্যা ও প্রতারণা থেকে বেঁচে থাকা একজন ইমানদারের কাজ। মিথ্যা মানুষকে ধ্বংস করে দেয়। মিথ্যুকদের প্রতি আল্লাহর অভিশাপ।

তথ্যসূত্র : সূরা আল ইমরান, আয়াত নং-৬১, আবু দাউদ শরিফ, হাদিস নং-৪৯৮৯, আল বাহরুর রায়েক, খণ্ড-৮, পৃষ্ঠা-১৯, কিতাবুল ফাতাওয়া, খণ্ড-৫, পৃষ্ঠা-৩৯৫।

আলহাজ সৈয়দ জহির উদ্দিন আহমদ

মুগদা, ঢাকা

প্রশ্ন : কবর দেওয়ার আগে মৃত ব্যক্তির জন্য কুরআন তেলাওয়াত করে ইসালে সাওয়াব করা যাবে কি?

উত্তর : মৃত ব্যক্তিকে কবর দেওয়ার আগে ইসালে সওয়াবের জন্য কুরআনুল কারিম পড়া যাবে। এতে কোনো সমস্যা নেই। তবে কিছু ইসলামিক স্কলারদের মতামত হলো, মৃত্যুর কারণে মানুষ নাপাক হয়ে যায় এবং গোসল দেওয়ার পর পবিত্র হয়। তাই মৃত ব্যক্তিকে গোসল দেওয়ার আগে লাশের পাশে বসে কুরআন শরিফ পড়া যাবে না। তবে দূর থেকে পড়া যাবে।

তথ্যসূত্র : সূরা মুহাম্মদ, আয়াত নং-১৮, ফতোয়ায়ে শামি, খণ্ড-৩, পৃষ্ঠা-৮৪, কিতাবুল ফাতাওয়া, খণ্ড-৩ পৃষ্ঠা-২১৭।

লেখক: খতিব, পীর ইয়ামেনী জামে মসজিদ, গুলিস্তান, ঢাকা

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন