আল্লাহর শুকরিয়া
jugantor
টিপস
আল্লাহর শুকরিয়া

   

২১ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ইমানকে দুই ভাগ করলে এক ভাগে থাকে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন, অন্যভাগে থাকে ধৈর্য ধারণ। একজন মুমিনের জীবন এ দুইয়ের থেকে বাইরে নয়। মুমিন ব্যক্তি ধৈর্য ধারণ করবে, না হয় শুকরিয়া আদায় করবে। এর বাইরে গেলে হতাশাগ্রস্ত হবে, আল্লাহর বিরুদ্ধে অভিযোগ করবে, ভাগ্যের ওপর অসন্তোষ প্রকাশ করবে এমনকি কখনো-সখনো কুফরি করেও বসতে পারে।

মহান আল্লাহর কৃতজ্ঞতা আদায় করা আমাদের জন্য অপরিহার্য। প্রতিটি মানুষের নিজস্ব স্বার্থে এটি প্রয়োজন। আল্লাহতায়ালার কৃতজ্ঞতা আদায় করলে আল্লাহর কোনো অপকার বা উপকার বা সৃষ্টি জগতের কোনো পরিবর্তন হবে-এমনটা নয়। বরং আল্লাহতায়ালা বলেছেন-যদি তোমরা শুকরিয়া আদায় কর, তবে আমি অবশ্যই তোমাদের বাড়িয়ে দেব, আর যদি তোমরা অকৃতজ্ঞ হও, নিশ্চয়ই আমার আজাব বড় কঠিন’। (সূরা ইব্রাহিম : ৭)।

আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতায়ালা অকৃতজ্ঞ মানুষকে একেবারেই পছন্দ করেন না। মানুষের মধ্যে এমন অনেকে আছেন, যারা পারস্পরিক কৃতজ্ঞতা আদায় করেন না। রাসূল (সা.) বলেন, যে মানুষের কৃতজ্ঞতা আদায় করে না, সে আল্লাহর কৃতজ্ঞতাও আদায় করে না। একজন মানুষ যত বেশি কৃতজ্ঞতা আদায় করবে, তার ভেতর তত বেশি উন্নত মানবীয় গুণ ধারণ করতে পারবে। আল্লাহতায়ালা কৃতজ্ঞ বান্দাদের নেয়ামত যেমন বাড়িয়ে দেন, তেমনি কৃতজ্ঞ মানুষকে দুনিয়ার মানুষজনও বেশি পছন্দ ও ভালোবাসেন। কিন্তু এর বিপরীতে অকৃতজ্ঞ যারা। অকৃতজ্ঞদের দুনিয়ার মানুষ স্বার্থপর হিসাবে চিহ্নিত করে।

টিপস

আল্লাহর শুকরিয়া

  
২১ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ইমানকে দুই ভাগ করলে এক ভাগে থাকে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন, অন্যভাগে থাকে ধৈর্য ধারণ। একজন মুমিনের জীবন এ দুইয়ের থেকে বাইরে নয়। মুমিন ব্যক্তি ধৈর্য ধারণ করবে, না হয় শুকরিয়া আদায় করবে। এর বাইরে গেলে হতাশাগ্রস্ত হবে, আল্লাহর বিরুদ্ধে অভিযোগ করবে, ভাগ্যের ওপর অসন্তোষ প্রকাশ করবে এমনকি কখনো-সখনো কুফরি করেও বসতে পারে।

মহান আল্লাহর কৃতজ্ঞতা আদায় করা আমাদের জন্য অপরিহার্য। প্রতিটি মানুষের নিজস্ব স্বার্থে এটি প্রয়োজন। আল্লাহতায়ালার কৃতজ্ঞতা আদায় করলে আল্লাহর কোনো অপকার বা উপকার বা সৃষ্টি জগতের কোনো পরিবর্তন হবে-এমনটা নয়। বরং আল্লাহতায়ালা বলেছেন-যদি তোমরা শুকরিয়া আদায় কর, তবে আমি অবশ্যই তোমাদের বাড়িয়ে দেব, আর যদি তোমরা অকৃতজ্ঞ হও, নিশ্চয়ই আমার আজাব বড় কঠিন’। (সূরা ইব্রাহিম : ৭)।

আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতায়ালা অকৃতজ্ঞ মানুষকে একেবারেই পছন্দ করেন না। মানুষের মধ্যে এমন অনেকে আছেন, যারা পারস্পরিক কৃতজ্ঞতা আদায় করেন না। রাসূল (সা.) বলেন, যে মানুষের কৃতজ্ঞতা আদায় করে না, সে আল্লাহর কৃতজ্ঞতাও আদায় করে না। একজন মানুষ যত বেশি কৃতজ্ঞতা আদায় করবে, তার ভেতর তত বেশি উন্নত মানবীয় গুণ ধারণ করতে পারবে। আল্লাহতায়ালা কৃতজ্ঞ বান্দাদের নেয়ামত যেমন বাড়িয়ে দেন, তেমনি কৃতজ্ঞ মানুষকে দুনিয়ার মানুষজনও বেশি পছন্দ ও ভালোবাসেন। কিন্তু এর বিপরীতে অকৃতজ্ঞ যারা। অকৃতজ্ঞদের দুনিয়ার মানুষ স্বার্থপর হিসাবে চিহ্নিত করে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন