মাবুদ তোমাকে ভালোবেসেছি বলেই ঘর ছেড়েছি

  মোহাম্মদ ওয়ায়েজুল হক ২০ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মাবুদ তোমাকে ভালোবেসেছি বলেই ঘর ছেড়েছি
ছবি: সংগৃহীত

হজে যাওয়া শুরু হয়েছে। পৃথিবীর নানা প্রান্ত থেকে যাত্রা করা কাবামুখী মানুষের ভিড় আস্তে আস্তে বাড়বে। নবী (সা.) উম্মতকে ছেড়ে মওলাপাকের দরবারে শুয়ে আছেন মদিনায়। আমার নবীজিকে বুকে নিয়ে মদিনার মাটি ধন্য ও মদিনা কী সৌভাগ্য তোমার? কেমন মানুষকে বুকে আঁকড়ে রেখেছ তুমি।

ভাই ও দোস্ত, যারা এবার হজে যাচ্ছেন তারা তো নবীজির রওজার সামনে দাঁড়াবেন। সালাম পেশ করবেন। এই তো তাদের সান্ত্বনা। নবীজির মহব্বতের মানুষগুলোর চোখ বেয়ে পানি ঝরে গাল ভিজে যাবে।

দাড়ি ভিজে যাবে। তায়েফে যারা নবীজিকে রক্তাক্ত করল তাদেরও অভিশাপ দিলেন না উল্টো হেদায়েতের জন্য দোয়া করলেন। আমরা যারা দূরে আছি তাদের কেউ কেউ আপনাকে বড় বেশি মহব্বত করে, রব আমরা তোমার হাবিবকে ভালোবাসি নবীজির রওজার সামনে দাঁড়িয়ে বড় ভালোবাসা নিয়ে বলব, আসসালাতু আসসালামুআলাইকা ইয়া রাসূলাল্লাহ, সে সৌভাগ্যও তো হল না আমার। এ এতিম উম্মতগুলোকে নবীজি (সা.) মদিনা জিয়ারতের তৌফিক দিন।

এক হুজুরকে হজে যাওয়ার কয়েকদিন আগে প্রশ্ন করেছিলাম, মাফ চেয়েছেন? আপনার সঙ্গে চলাফেরা করা সব মানুষের কাছে মাফ চেয়েছেন? তিনি বলেছিলেন, আমি হজে যাওয়ার কথা বলে মাফ চাইব! আমি হজে যাচ্ছি সবাইকে জাননো নয় কী? এক প্রকার রিয়া, অহংকার নয় কি! তারপরও কিছু কিছু মানুষের কাছে তিনি গেছেন।

দু’দিন আগে জুমার দিন তিনি যে মসজিদে নামাজ পড়তেন সেখানে কিছু কথা বলেছিলেন। বলেছিলেন, বাইতুল্লাহে যাব আমার বড় লজ্জা করে। নবীজির সামনে যাব, আমার বড় লজ্জা করে। কী নিয়ে যাই।

আমার ভেতর তো আল্লাহপাকের মহব্বত, নবীজির মহব্বত নেই। দুনিয়ার নানা প্রান্ত থেকে ছুটে আসা সব মানুষের জন্য আমরা বলি, মওলাপাক যে ঘরে তোমার পাঠানো সব নবী ও রাসূলরা ইবাদত করেছেন সে ঘর পর্যন্ত পৌঁছে দাও। হে বাইতুল্লাহ তোমার মেহমান হতে চাই। আমরা দূরে বলে তোমার মহব্বত থেকে আমাদের বঞ্চিত কর না। তুমি তো রাহমান, রাহিম।

হাদিসে কুদসিতে মাওলাপাক বলেন, ‘হে বনি আদম, আমি তোকে ভালোবাসি, তোর ওপর আমার সেই ভালোবাসার দাবি তুই-ও আমাকে ভালোবাস! হে আমার বান্দা, আমি তোকে ভালোবাসি, তোর ওপর আমার ভালোবাসার কসম, তুইও আমাকে ভালোবাসা দে!’

‘হে আদমের সন্তান, তুই আমাকে স্মরণ কর আমিও তোকে স্মরণ করব।’

‘তুই আমাকে যদি ভুলে যাস আমি কিন্তু তোকে মনে রাখি আমি কখনও তোকে ভুলি না।’

মাআজ ইবনে জাবাল রাদিয়াল্লাহুতায়ালা আনহুকে যখন আল্লার নবী দ্বীন প্রচারের জন্য ইয়েমেনে পাঠাচ্ছেন তখন হুজুর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, ‘মায়াজ, মনে হয় তোমার আর আমার শেষ দেখা। যখন তুমি ফিরে আসবে তখন হয়তো আমাকে দেখবে না। কিন্তু আমার কবর তো দেখবে।’

নবীজির কথা শুনে সাহাবি মাআজ আর সহ্য করতে পরলেন না। কিছু বলতে গিয়ে ঢুকরে কেঁদে উঠলেন। হুজুরপাকও কাঁদতে লাগলেন। তার চিবুক বুক ছুঁয়ে। মাআজ জোরে কাঁদতে লাগলেন।

হুজুর দেখলেন যে তার কান্না দেখে মাআজ আরও কাঁদবে তখন তিনি মুখ ফিরিয়ে নিলেন মদিনার দিকে। তার কপাল বেয়ে গড়িয়ে পড়া মুক্তার মতো টলটলে অশ্রু মুছে নিলেন। বললেন, ‘হে মাআজ, দুঃখ কর না, ব্যথিত হইও না। কেয়ামতের দিন আমার সবচেয়ে কাছে সে হবে যে দ্বীনের জন্য দূরে গিয়ে সেখানেই মারা যায়। সেখানেই তার কবর হয়।’

দ্বীন আর ইসলামের জন্য আল্লাহপাক আর নবীজিকে ভালোবেসে কারা দূরে যায়? কে সাড়া দিয়ে বলেছে, মা’বুদ তোমাকে ভালোবাসি বলে ঘর ছেড়েছি আর ছেড়ে এসেছি পরিবার। তোমার ভালোবাসায় আমাদের সিক্ত কর। আমরা মওলাপাকের ভালোবাসা জানি না বলেই আজ অন্যসব ভালোবাসা করে বেড়াই। সেসব ভালোবাসায় প্রশান্তি নেই, তার সবটুকু জুড়ে অশান্তি।

যারা একবার মওলাপাকের মহব্বতের গন্ধ খুঁজে পায় সারা জীবন তাদের কাটে সেই মহব্বতের খোঁজে। তার মহব্বতে বাড়ি ছেড়ে চলে হাজার মাইল পেরিয়ে যেখানে ইব্রাহিম (আ.) ইবাদত করার জন্য আল্লাহ পাকের ঘর পুনর্নির্মাণ করেছিলেন।

তিনি বলেছিলেন, লব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক। আজও কোটি কোটি মানুষের মুখে উচ্চারিত হয় সেই কথা। মালিক তোমার ডাকে তোমার সামনে হাজির। আমাদের সবাইকে সেই ঘরে যাওয়ার সৌভাগ্য দান করুন।

লেখক প্রাবন্ধিক

[email protected]

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter