জমজমের পানি

  যুগান্তর ডেস্ক    ০৩ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

জমজমের পানি

জমজমের বৈশিষ্ট্য : জমজম কূপের পানি যতই ব্যবহার করা হোক তা কখনও শেষ হয় না, হবেও না ইনশাআল্লাহ। বর্তমানে প্রতিদিন মেশিনের মাধ্যমে লাখ লাখ লিটার পানি তোলা হচ্ছে; কিন্তু কোনো ঘাটতি পড়ছে না। অথচ প্রতিদিন এ পরিমাণ পানি পৃথিবীর অন্য কোনো কূপ থেকে তুললে নিশ্চয়ই সে কূপের পানি শেষ হয়ে যেত।

* জমজমের পানি তৃষ্ণা মেটায় ও ক্ষুধা দূর করে।

* কোনো ওষুধ ব্যবহার করা ছাড়াই জমজমের পানি অনেকদিন বিশুদ্ধ অবস্থায় রাখা যায়। অথচ সাধারণ পানি অনেকদিন রাখলে খাওয়ার অযোগ্য হয়ে পড়ে। (কিতাবুল মাসাইল ৩/২৫৩)

জমজমের অভিজ্ঞতা : মাতাফের বিভিন্ন জায়গায় জমজমের পানির ট্যাঙ্ক রাখা আছে। কিছু ট্যাঙ্কের গায়ে ঘড়ঃ পড়ষফ (নট কোল্ড) লেখা আছে। সেগুলো স্বাভাবিক পানি। আর অধিকাংশ ট্যাঙ্কের গায়ে কিছু লেখা নেই। সেগুলো ঠাণ্ডা পানি। তা ছাড়া বর্তমানে মাতাফের সংস্কার করা ভবনে বেসিন সিস্টেমের মাধ্যমে হট কোল্ড এবং ঠাণ্ডা পানির কল লাগানো আছে। যেটা স্বাস্থ্যের পক্ষে হবে সেটা তৃপ্তিসহ পান করবে। তাওয়াফ থেকে ফিরলে স্বাভাবিকভাবেই পানির চাহিদা সৃষ্টি হয়। তখন আল্লাহতায়ালার হুকুম পানি পান করা। এভাবে পরম করুণাময় আল্লাহ বান্দার স্বভাবের চাহিদাকে ইবাদত বানিয়ে দিয়েছেন।

ইসলাম ও জীবন ডেস্ক

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: jugantor.[email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter