কোরবানির পশু নিয়ে সেলফি

প্রকাশ : ১৭ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  মাহবুবুল আমিন

তাকওয়া অর্জনের উদ্দেশ্যে কোরবানি করতে হবে। অথচ আমরা কোরবানি করছি লোক দেখানো। এ বিষয়ে সমাজের নানা স্তরের তিন কোরবানিদাতার সাক্ষাৎকার নিয়েছেন মোহাম্মদ তালহা তারীফ

ম্যানেজার, আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক

প্রশ্ন : কোরবানি কিসের জন্য ও কেমন পশু দিয়ে করবেন?

মাহবুবুল আমিন : আল্লাহ ও রাসূল (সা.)-এর সন্তুষ্টির আশায় নিজের ত্যাগ বিলিয়ে দিতে তাকওয়া অর্জনের উদ্দেশে প্রতিযোগিতা না করে সামর্থ্য অনুযায়ী সুন্দর পশু ক্রয় করে কোরবানি দেব ইনশাআল্লাহ ।

প্রশ্ন : অনেকেই সামর্থ্য থাকা সত্ত্বেও কোরবানি করে না, কী বলেন?

মাহবুবুল আমিন : কারণ হল আল্লাহর ভয় অন্তরে না থাকায় নিসাব পরিমাণ সম্পত্তি থাকা সত্ত্বেও কোরবানি করে না অনেকে। কোরবানির গোশত আত্মীয় প্রতিবেশীকে অল্প করে দিলে কেমন দেখা যায় তা ছাড়া কোরবানি দিলে অন্যরা গোশত দেবে না ফলে কোরবানি না দিলেই গোশত বেশি পাওয়া যায়। এ মনমানসিকতা নিয়ে অনেকেই সামর্থ থাকা সত্ত্বেও কোরবানি দেয় না।

মোহাম্মদ আব্দুল হক

সহযোগী অধ্যাপক, কবি নজরুল সরকারি কলেজ

প্রশ্ন : কোরবানির জন্য নিয়ত কেমন হতে হবে?

মো. আব্দুল হক : অবশ্যই নিয়ত পরিশুদ্ধ হতে হবে। নিজে গোশত খাওয়ার জন্য নয়, আমি কোরবানি না দিলে অন্যে কী বলবে, অন্যের পশুর চেয়ে আমারটি বড় না কিনলে কেমন হয়, আমি কোরবানি না দিলে সন্তানেরা অন্যদের দিকে চেয়ে থাকবে। এ সবের জন্য আমি কোরবানি দিচ্ছি না। সম্পূর্ণ তাকওয়া অর্জনের জন্য আল্লাহর রাস্তায় কোরবানি দিচ্ছি এমন নিয়ত করতে হবে।

প্রশ্ন : কোরবানিতে অন্তর থেকে কী বিলুপ্ত হয়?

মো. আব্দুল হক : আমরা কোরবানি বলতে পশু জবেহ করাকে বুঝি। আসলেই পশু জবেহ করাটা কোরবানি নয়। কোরবানি হল আমার মনের মধ্যে যে একটি পশুর আচরণ রয়েছে সেই পশুকে জবেহ করা, অন্তর থেকে হিংসা বিদ্বেষকে কোরবানি করা। অন্তরকে পরিশুদ্ধ করা। কখনও গিবত করব না, সুন্দর হওয়ার সাধনা করছি, এমনটি সংকল্প করা। একটি পশু জবেহ করে যে রক্ত প্রবাহিত করলাম এতে আমার অন্তরকে পবিত্র করলাম।

ড. মো. আ. জলিল

প্রকাশনা বিভাগ, ইসলামিক ফাউন্ডেশন

প্রশ্ন : কোরবানি কী?

আ. জলিল : কোরবানি হল ত্যাগ, কোরবানি কোনো ভোগ নয়। মোটাতাজা পশু জবেহ দেয়ার এক মহড়া নয়, পশু জবেহের উৎসব-আনন্দে, ভোগ-বিলাসিতায় মত্ত থাকা নয় কোরবানি। কোরবানি হচ্ছে আল্লাহর অনুগত্যের বিনম্র প্রকাশ। জবেহ করে কতটুকু তাকওয়া আল্লাহর কাছে পৌঁছল সেটাই কোরবানি।

প্রশ্ন : কোরবানির পশু সামনে রেখে সেলফি তোলা যাবে কি?

আ. জলিল : এটা মূলত মানুষকে দেখানো হয়। আর মানুষকে দেখানো কোনো আমল আল্লাহ পছন্দ করেন না। তাই পশু ক্রয় করা থেকে শুরু করে জবাইয়ের দৃশ্য মেবাইলে ভিডিও কিংবা সেলফি তুলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দিয়ে লিখে আমাদের কোরবানির পশু কেমন হল, জবাইয়ের দৃশ্যসহ ইত্যাদি লাইক দিন, কমেন্ট করুন, শেয়ার করুন এসব করা অনুচিত। কেউ যদি আমাদের সামনে এসব করে অবশ্যই উচিত তাকে আদবের সঙ্গে বুঝিয়ে নিষেধ করা। তাকে বলা যে আমরা অন্যকে দেখানোর জন্য কোরবানি দিচ্ছি না, কোরবানি শুধু আল্লাহতায়ালাকে দেখানোর জন্য।