আর্থ স্যান্ডউইচ

  প্রকৃতি ও জীবন ডেস্ক ২১ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

গোটা পৃথিবীকে স্যান্ডউইচ বানানোর এ অদ্ভুতুড়ে ভাবনাটির মূল কারিগর ছিলেন মার্কিন চিত্রশিল্পী জে ফ্রাঙ্ক। ২০০৬ সালে তিনি বানিয়েছিলেন ‘আর্থ স্যান্ডউইচ’। শুনতে অবাক লাগলেও সত্যি এমনটি করে দেখিয়েছেন নিউজিল্যান্ড ও স্পেনের দু’যুবক। পাগলামিটা প্রথমে চেপেছিল নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ডের বাসিন্দা এতিয়েন নদের মাথায়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম রেডিটে একটা পোস্ট দেন। অল্প সাড়া পড়ে তাতে। দমে না গিয়ে তিনি খুঁজতে থাকেন অকল্যান্ডের হুবহু উল্টো স্থানের কাছাকাছি বাস করা কাউকে। অবশেষে সাড়া দেয় স্পেনের যুবক এনজেল সিয়েরা। এতিয়েন ‘টানেল টু দ্য আদার সাইড অব দ্য আর্থ’ নামের অনলাইন অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশ নির্ণায়ক যন্ত্র ব্যবহার করে এতিয়েন নিশ্চিত করেন বরাবর বিপরীত স্থানটিকে। এরপর দুজন পৃথিবীর দু’প্রান্তে পাউরুটির দুই টুকরো রাখেন। ফলে পৃথিবীর ১২ হাজার ৭২৪ কিলোমিটার অংশ চাপা পড়ে টুকরো দুটির মাঝখানে। তাদের দুজনের মাঝখানে ভৌগোলিক দূরত্ব ছিল ২০ হাজার কিলোমিটার। স্যান্ডউইচের নির্মাণশৈলী অনুযায়ী এটিই হয়ে ওঠে ‘আর্থ স্যান্ডউইচ’।

আরও খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]il.com

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত