এই সময় ত্বকের যত্ন

প্রকাশ : ২৯ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  লাইফস্টাইল ডেস্ক

ত্বকের যত্ন। ছবি সংগৃহীত

ত্বকের যত্নের সময়-অসময় নেই। ত্বক ভালো রাখতে হলে যথাযথ পরিচ্ছনতা প্রয়োজন। বিশেষ করে শীতকালে এ সময় ত্বকে নানা রকম সমস্যা দেখা দেয়। ত্বকের উপরিভাগে মরা কোষ, ঘাম, তেল ও নোংরা জমে থাকে।

নিয়মিত পরিষ্কার না করলে ত্বক হয় ওঠে অস্বাস্থ্যকর ও নির্জীব। ঠিকমতো পরিষ্কার না করলে ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে শুরু করে এরপরই শুরু হয় ব্ল্যাক হেডস ও হোয়াইট হেডসের সমস্যা। ব্রণের সমস্যাও এ সময় বাড়ে। যাই হোক এ তো গেল সমস্যার কথা।

এর থেকে মুক্তি পেতে হলে অবশ্যই এ সময়ে আপনার ত্বকের ধরন বুঝে ফেশিয়াল করানো দরকার এবং ত্বকেরও যত্ন নিতে হবে বিশেষভাবে। এ বিষয়ে পরামর্শ দিচ্ছেন আকাঙ্খাস গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ডের স্বত্বাধিকারী জুলিয়া আজাদ। যদি ত্বকের যত্ন নিতে হয় তবে বয়স, সিজন এবং ত্বকের ধরন এ তিনটি জিনিস মাথায় রেখে ত্বকের যত্ন নিন। হাতের কাছে অনেক জিনিস থাকে যা দিয়ে আপনি সহজেই ত্বকের যত্ন নিতে পারেন।

মুলতানি মাটি খুব ভালো ক্লিনজার সাবানের বদলে দিনে দুবার নিয়ে মুখ ভালো করে ধুয়ে নিন। সব সময় ফেসওয়াশ ব্যবহার না করে বেকিং সোডা দিয়ে মাঝে মাঝে মুখ পরিষ্কার করুন। চোখের নিচে ফোলা ভাব থাকলে বেকিং সোডার সঙ্গে নিন এক চা চামচ যে কোনো চা-এর লিকার। দুটি উপকরণ ভালোভাবে মিশিয়ে চোখের ফোলা অংশে লাগিয়ে দিন আলতো করে। খুব ঘষাঘষি করা যাবে না। এরপর ১০ মিনিট রেখে দিন।

শুয়ে থাকার প্রয়োজন নেই। এ সময় যে কোনো কাজ করতে পারেন। শুকিয়ে গেলে ভেজা ভাব থাকা অবস্থায় ধুয়ে ফেলুন। এরপর দুই ফোঁটা আলমন্ড অয়েল দিয়ে ম্যাসাজ করুন। কয়েকদিন এভাবে চোখের যত্ন নিন। চোখের ফোলাভাবের সঙ্গে সঙ্গে ড্রাক সার্কেলের সমস্যাও দূর হবে। চোখের সমস্যা ও মুখের সমস্যা ঠিক করার সহজ উপায় খুঁজতে গিয়ে ভুলেও কখনও কেমিক্যাল ট্রিটমেন্টে যাবেন না। এতে অনেক সময় সাময়িক লাভ হলেও আপনার ত্বকের ক্ষতিই করবে।

তাই নিজের যত্ন বুঝে নিন। সব সময় মনে রাখতে হবে ফরসা নয় সুস্থ ত্বক। অনেক সময় সূর্যলোক ত্বকের উজ্জলতা নষ্ট করে। সব সময় ভালো ব্র্যান্ডের একটি সানস্ক্রিন ক্রিম ব্যবহার করুন রোদে বের হওয়ার আগে। সিসমি অয়েল খুব ভালো ন্যাচারাল সানস্ক্রিনের কাজ করে।

কিন্তু ত্বকে যদি ব্রণ না থাকে তবে গোসেলের আগে সানস্ক্রিন অয়েল ম্যাসাজ করুন ভালোভাবে। দশ মিনিট পর গোসল করে ফেলুন। আপনার ত্বকের সঙ্গে সঙ্গে শরীরের অন্য অংশে সান বার্ণের সমস্যা আগে যদি থেকেই থাকে তাও কমে যাবে।

বৃষ্টি থাকলেও সানস্ক্রিন ক্রিম লাগাতে ভুল করবেন না, আর সিসমি অয়েলও একই কাজ করবে। যে কোনো একটি ব্যবহার করলেই হবে। বাইরে থেকে বাড়ি ফিরে ভালোভাবে মুখ ধুয়ে ফেলুন। একটু সময় নিয়ে আস্তে আস্তে পানির ঝাপটা দিন চোখে-মুখে।

এতেই আপনার ত্বক অনেক ভালো পরিষ্কার হয়ে যাবে। পানির ঝাপটা দেয়ার পর বেসন দিয়ে মুখ ধুয়ে মুছে যে কোনো ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। ব্রণ না থাকলে সপ্তাহে দুই দিন মুখ ধোয়ার সময় স্কার্বিং করে নিন। এটুকু যত্নবান হলে আপনার নিষ্প্রাণ নির্জীব ত্বক ক্লান্তি কাটিয়ে উজ্জ্বল হয়ে উঠবে।

বাড়তি যত্ন

যাদের মুখে ব্রণ বলিরেখার সমস্যা থাকে নিয়মিত কাঁচা হলুদ বাটা ব্যবহার করলে খুব তাড়াতাড়ি এ সমস্যাগুলো কমাতে সাহায্য করবে। ত্বকের স্বাস্থ্যের জন্য কমলা লেবু খুব ভালো কাজ করে। ত্বকের ক্লান্তি কাটাতে ত্বক পরিষ্কার রাখতে কমলা লেবুর রসের সঙ্গে সমপরিমাণ মধু মিশিয়ে হাল্কা গরম করে মুখে ম্যাসাজ করুন পাঁচ মিনিট। পাঁচ মিনিট পর পানি ঝাপটা দিয়ে মুখ ধুয়ে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে দিন। এই অল্প সময়ের ম্যাসাজে আপনার ত্বক পরিষ্কারের সঙ্গে সঙ্গে সুন্দর একটা গ্লো আসবে এবং নিয়মিত ব্যবহার করলে ত্বক ভালো থাকবে।