কয়েকটি যোগ ব্যায়াম

  তাওহীদ মামুন ১৯ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

জীবনকে সফল ও উপভোগ্য করতে এবং সর্বোপরি কর্মক্ষেত্রে সাফল্য পেতে ফিটনেস ধরে রাখতে হবে। শরীর-স্বাস্থ্য ভালো থাকলে মন ভালো থাকে, কাজেও উদ্দীপনা পাওয়া যায়, তাই কাজে সাফল্য আসে তাড়াতাড়ি।

সারাদিনের শত কর্মব্যস্ততার ভিড়ে নিজের জন্য সময় বের করতে হবে। বিশেষ করে যারা কর্মজীবী এবং সারাদিন বসে কাজ করে থাকেন তাদের জন্য তো সকালের হালকা ব্যায়াম অবশ্য করণীয়। হাঁটার পাশাপাশি সকালে একটু সময় নিয়ে হালকা কিছু ব্যায়াম শরীরকে চনমনে করে তুলবে, কমাবে পেটের বাড়তি মেদ। শারীরিক গঠন ঠিক রাখা ও সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য পেটের ব্যায়ামগুলো অবশ্যই করণীয়। এ পর্বে চেয়ার পোজ, স্ট্রেচিং ও পেটের ব্যায়াম বিষয়ে জানাবেন এভারগ্রিন ইয়োগার প্রশিক্ষক বাপ্পা শান্তনু।

চেয়ার পোজ

মার্শাল আর্টের মুভিগুলোতে এ ব্যায়ামটা প্রায়ই দেখে থাকবেন। আমরা সাধারণভাবে যেভাবে চেয়ারে বসি, চেয়ার ছাড়া অনুরূপ ভঙ্গিতে বসে স্থির থাকাই চেয়ার পোজ। এ ব্যায়ামের মাধ্যমে পায়ের মাংসপেশিগুলো খুবই শক্তিশালী হয়ে ওঠে এবং শরীরের ভারসাম্যের জন্য উপকারী। øায়ুর সংবেদনশীলতা অনেক বেড়ে যায়। শরীর অনেক কর্মচঞ্চল হয়ে ওঠে এবং শারীরিক ও মানসিক অবসাদ দূর হয়। প্রথম প্রথম খুব কষ্ট হবে। আপনি ১৫ সেকেন্ড দিয়ে শুরু করতে পারেন। প্রতিদিন আস্তে আস্তে সময় বাড়িয়ে এটিকে ৫ মিনিট করবেন কমপক্ষে। খেয়াল রাখবেন এটি করার সময় কোমর থেকে ঘাড় অর্থাৎ মেরুদণ্ড বাঁকাবেন না। শ্বাস-প্রশ্বাসের গতি খুব কমিয়ে আনবেন। মনোযোগ শ্বাস-প্রশ্বাসের দিকেই রাখুন তাহলে কষ্ট অনেক কম হবে।

স্ট্রেচিং

হালকা দৌড়ান বা হাঁটাহাঁটির পর স্ট্রেচিং অবশ্যই করুন। স্ট্রেচিং করার সময় খেয়াল রাখবেন গুরুত্বপূর্ণ জয়েন্টগুলো যেন বাদ না যায়। যেমন- পায়ের গোড়ালি, হাঁটু, কোমর, মেরুদণ্ডের হাড়ের জয়েন্ট, হাতের জয়েন্ট, কাঁধ। আমরা জানি দুটি হাড়ের মাঝে যে সংযোগ থাকে সেটাই হল লিগামেন্ট। নিয়মিত স্ট্রেচিং করলে হঠাৎ মাংসপেশিতে টান লাগা বা লিগামেন্ট ছিঁড়ে যাওয়ার মতো দুর্ঘটনাগুলো এড়ান সম্ভব।

বেলি/ক্রাঞ্চ/পেটের ব্যায়াম

সুন্দর চেহারা, সুন্দর পোশাক সবকিছু থাকার পরও আপনার আত্মবিশ্বাস এক মুহূর্তে কমিয়ে দিতে পারে পেটের বাড়তি মেদ। অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, অতিরিক্ত খাওয়া, জাঙ্কফুড বা ফাস্টফুডের প্রতি আসক্তি, খাওয়ার মধ্যে ঘন ঘন পানি খাওয়া, আপনার পেটের মেদ বাড়ানোর জন্য দায়ী। যাদের ইতিমধ্যে প্রচুর মেদ জমে গেছে তারা এমন ব্যায়ামগুলো করুন যাতে করে পেটের পেশিগুলো কাজ করে। খুব সাধারণ একটা সূত্রের কথা বলি, যেটা খেয়াল রাখলে অতিরিক্ত মেদ কমিয়ে শারীরিক গঠন সুন্দর করতে আপনাদের সাহায্য করবে আপনি যে পেশিগুলোকে কাজ করাবেন সেখান থেকে Fat burn হয়ে Muscles develop করে। আমরা হাত ও পা দিয়ে বেশিরভাগ কাজ করি বলে হাতে ও পায়ে ঋধঃ খুব কম জমে।

সুতরাং ভুঁড়ি বা পেটের অতিরিক্ত মেদ কমাতে এমন ব্যায়ামগুলো করুন যাতে পেটের পেশিতে চাপ পড়ে। যাদের ওজন নিয়ন্ত্রণে আছে তাদেরও কমপক্ষে ২-৫ মিনিট পেটের ব্যায়াম করা উচিত। যাদের অতিরিক্ত মেদ তারা তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী এ সময় বাড়িয়ে ১০ মিনিট থেকে ৩০ মিনিট বা ১ ঘণ্টা পর্যন্ত করতে পারেন। পেটের জন্য শত শত ব্যায়াম আপনি ইউটিউব থেকে দেখে নিতে পারেন। তবে যে ব্যায়ামগুলো বেছে নেবেন, সেগুলো কমপক্ষে ৭ দিন পর ব্যায়ামের ধরন পরিবর্তন করতে পারেন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×