রঙিন চুলের যত্ন

  মানসুরা সিদ্দিক ১৮ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

একরাশ কালো চুলের সৌন্দর্য নিঃসন্দেহে তুলনাহীন। নারীর ঘন-কালো চুল নিয়ে গান-কবিতাও কম হয়নি। কিন্তু ফ্যাশনের ক্রমাগত পরিবর্তনে কালো চুলের পাশাপাশি জায়গা করে নিয়েছে রঙিন চুলও। শখের বশে প্রিয় চুলগুলো এক বা একাধিক রঙে রাঙিয়ে নিচ্ছেন ফ্যাশনপ্রেমীরা। তবে রং করিয়ে নিলেই কিন্তু কাজ শেষ হয়ে যায় না। চুল রঙিন করার পর সবার আগেই নজর দিতে হবে চুলের সঠিক যত্নের দিকে।

চুল রঙিন করার পর সপ্তাহে একদিন হট অয়েল ম্যাসাজ করুন। শ্যাম্পু করার এক ঘণ্টা আগে আমন্ড অয়েল বা তিলের তেল ব্যবহার করতে পারেন। রঙিন চুল সুস্থ এবং সুন্দর রাখার জন্য চুলের গোড়া অবশ্যই পরিষ্কার রাখা উচিত। তাই রঙিন চুলে কালার প্রটেকটিভ শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। চেষ্টা করুন সালফারবিহীন শ্যাম্পু ব্যবহার করতে। শ্যাম্পু করার আগে চুল ভিজিয়ে শ্যাম্পু ভালোভাবে স্ক্যাল্পে ও চুলে লাগিয়ে নিন। কিছুক্ষণ আলতো ম্যাসাজ করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ভালোভাবে চুল ধুয়ে ফেলুন। তবে পরিষ্কার পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নেবেন। কারণ পানির ক্লোরিন চুলের রং নষ্ট করে। আবার রঙিন চুল গরম পানি দিয়ে ধোবেন না। এতে চুলের কিউটকলের ক্ষতি হয়। মাথার ত্বকেরও ক্ষতি হয়। শ্যাম্পু করার পর অবশ্যই কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। শ্যাম্পুর পর কন্ডিশনার লাগান? চুলের রং ধরে রাখতে চাইলে নিয়মটা পাল্টে নিন। কন্ডিশনার লাগানোর পর করুন শ্যাম্পু। এতে করে আপনার চুল আরও চকচকে, নরম এবং কোমল হবে। চুল রঙের পর রোদ লাগাবেন না মাথায়। যখনই বাইরে বের হবেন স্কার্ফ বা ওড়না দিয়ে ঢেকে রাখুন চুল। বৃষ্টির পানি থেকেও বাঁচান চুল।

চুল কালারের পর যদি হেনাপ্যাক লাগানো হয় তাহলে চুল শক্ত ও খসখসে হয়ে যায়। এক কথায় চুল রুক্ষ হয়ে যায়। সে ক্ষেত্রে আপনি নারিকেল তেলের সঙ্গে কাঁচা আমলকী ফুটিয়ে ঠাণ্ডা করে রেখে দিন। প্রতিদিন গোসলের এক ঘণ্টা আগে মিশ্রণটি পুরো মাথায় স্ক্যাল্পে লাগিয়ে আলতো করে ম্যাসাজ করুন। তারপর রিঠা ভেজানো পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। শেষে অল্প পানিতে কয়েক ফোঁটা মধু ও চায়ের লিকার মিশিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এ ছাড়া সপ্তাহে একবার পাকা পেঁপে, কলা, টক দই ও মধু এক ফাঁকে মিশিয়ে চুলে লাগিয়ে ৩০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এতে চুলের মসৃণতা ফিরে আসবে।

চুলের কালার দীর্ঘদিন ধরে রাখতে চাইলে চুলে ঠাণ্ডা পানি ব্যবহার করুন এবং শাওয়ারের নিচে দীর্ঘক্ষণ মাথা রাখবেন না। বরং মগ দিয়ে ঢেলে পানি চুলে ব্যবহার করুন। যারা চুলে কালার ব্যবহার করেন, তারা ঘন ঘন শ্যাম্পু করবেন না। কারণ বারবার শ্যাম্পু করলে চুলের কালার দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়। এক কাপ অলিভ অয়েল মৃদু আঁচে গরম করুন, যেন খুব বেশি গরম না হয়। এবার এই তেল ঠাণ্ডা করে কয়েক ফোঁটা রোজমেরি অয়েল মিশিয়ে মাথার তালুতে ম্যাসাজ করুন। তেল ম্যাসাজ শেষে আপনার মাথায় প্লাস্টিকের ক্যাপ লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে দিন। পরে শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে ফেলুন। চাইলে বেশি পরিমাণে বানিয়ে রেফ্রিজারেটরে রেখেও ব্যবহার করতে পারেন। এই মিশ্রণ কালারড চুলে পুষ্টি জোগাবে এবং চুল লম্বা করবে।

একটি পাকা কলা চটকে তাতে এক টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে নরম পেস্ট বানিয়ে চুলের পুরো অংশে লাগিয়ে নিন। এবার এই মাস্ক চুলে ন্যূনতম ২০ মিনিট রেখে দিন। এরপর স্বাভাবিকভাবে চুল শ্যাম্পু করে নিন। কালার করার পর চুল রুক্ষ ও শুষ্ক হয়, কলা আর মধুর মিশ্রণ তা থেকে চুলকে রক্ষা করে। এ ছাড়া চুল ময়েশ্চারাইজড ও সিল্কি করে।

ভিটামিন-ই চুলের জন্য বেশ ভালো। দু’দিন পর পর যে কোনো তেলের সঙ্গে ভিটামিন-ই ক্যাপসুল ভেঙে মিশিয়ে মাথায় ভালোভাবে লাগিয়ে দুই থেকে তিন ঘণ্টা রাখুন। এরপর ধুয়ে ফেলুন। তবে বেশি গরম পানি দিয়ে কখনও চুল ধোবেন না। এতে চুল রুক্ষ হয়ে যাবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×