গরমে সুস্থ ও সতেজ থাকতে

উফ এত গরম! এখন কান পাতলে শুনবেন সারা দিনে এই কথাটি অনেকেই অনেকবার বলছেন। তার ওপর আছে বিনা নোটিশে বৃষ্টির ভোগান্তি। স্বস্তিতে থাকাটা এ সময় একটু কঠিন ব্যাপার! এ সময়ে ত্বকের বিশেষ যত্ন নেয়া ছাড়াও খাবারদাবারের ব্যাপারে একটু বাড়তি নজর দেয়া খুবই দরকার। বিস্তারিত জানাচ্ছেন-

  আঞ্জুমান আরা ১৮ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বছরের এই সময়ে গরমের কারণে নানা ধরনের অস্বস্তিকর পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে হয় আমাদের। গরমের দিনগুলোতে সুস্থ থাকতে অবশ্যই বাড়তি সতর্কতা গ্রহণ করতে হবে।

পোশাকে আরাম ও স্টাইল

এ সময় অফিস কিংবা অনুষ্ঠানে সুতি পোশাকই সবচেয়ে আরামদায়ক। পাশাপাশি চায়না কটন, কটন জামদানি, শিপন, তাঁত কাপড়ের কামিজ, কুর্তি, টপসে আরাম ও স্টাইল বজায় থাকবে। আঁটসাঁট পোশাক না পরে একটু ঢিলেঢালা ফিটিংয়ের স্লিভলেস কিংবা শর্টস্লিভ পোশাক পরুন। পোশাকের নকশাটা বেছে নিন হালকা-পাতলা। শাড়ির ক্ষেত্রে একরঙা সুতি, কোটা কিংবা তাঁতের শাড়ির সঙ্গে পরতে পারেন চেক, কুর্শিকাটা লেস বসানো অথবা প্রিন্টের ব্লাউজ। আর যদি গরমে হালকা শাড়িটাকে পার্টির উপযোগী করতে চান তবে জরির কাজের চিকন অথবা চওড়া পাড় বসিয়ে নিতে পারেন। ছেলেদের জন্য এই সময় টি-শার্ট, ফতুয়া কিংবা সুতি ক্যাজুয়াল শার্ট সবচেয়ে আরামদায়ক।

সঙ্গী হউক পানিনিরোধক সানস্ক্রিন

যাদের দীর্ঘক্ষণ রোদে থাকতে হয় তাদের জন্য রোদ-গরমে সানস্ক্রিন অত্যাবশ্যকীয় একটি প্রসাধন। তবে পানিতে ভিজলে সানস্ক্রিনের কার্যকারিতা নষ্ট হয়ে যায়। তাই এ সময় ওয়াটারপ্রুফ ও অয়েল ফ্রি সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। এতে পানিতে ভিজলেও হারাবে না সানস্ক্রিনের কার্যকারিতা।

সতেজ ও সুন্দর ত্বক পেতে

এ সময় ত্বকে মরা কোষ জন্ম নেয়। মরাকোষ ত্বককে মলিন ও অনুজ্জ্বল করে তোলে। মরাকোষ দূর করতে সপ্তাহে একদিন চিনি ও লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে ভালো করে ত্বকে ম্যাসাজ করে স্বাভাবিক পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের মরাকোষ দূর হবে। সেই সঙ্গে ত্বক উজ্জ্বল ও নরম হবে। এ ছাড়া প্রতিদিন নিয়ম করে ত্বক পরিষ্কার করে শসার রস লাগিয়ে টোনিং করুন। এরপর ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। পাশাপাশি অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করুন। অ্যালোভেরা ত্বককে নরম, হাইড্রেট ও উজ্জ্বল করার পাশাপাশি ব্রণ দূর করে। দিন শেষে ঘরে ফিরে ভালোভাবে ত্বক পরিষ্কার করুন। মেকআপ তোলার জন্য জলপাই তেল ও পানি একসঙ্গে মিশিয়ে ম্যাসাজ করুন। এরপর ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে শসা এবং টকদই মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে রাখুন। ২ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

প্রশান্তি দিবে বিউটিবাথ

দিনে তো বটেই, অতিরিক্ত গরমে রাতে ঘুমানোর আগেও একবার ঠাণ্ডা পানি দিয়ে গোসল সেরে নিন। সারা দিনের ক্লান্তি দূর হয়ে নিমিষেই ফ্রেস হয়ে উঠবেন। সেই সঙ্গে দূরে থাকবে ঘাম, ঘামাচি এবং ত্বকের নির্জীবতা। সপ্তাহে অন্তত একদিন সৌন্দর্যøান বা বিউটিবাথ নিন। ঠাণ্ডা পানিতে বিভিন্ন ফুলের পাপড়ি, দুধ, নিমপাতা প্রভৃতি মিশিয়ে করতে পারেন এই বিউটিবাথ। বিউটিবাথ শরীর ও মনে প্রশান্তি আনে। দূর করে ক্লান্তি।

দূরে থাক ঘামের দুর্গন্ধ

গরমে ঘাম শুকিয়ে কাপড়সহ শরীরে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। যা খুবই বিরক্তিকর। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে এ সময় প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় ফল, সবজি ও পানির পরিমাণ বেশি রাখুন। গোসলের পানিতে সামান্য গোলাপজল ও নিমপাতা মিশিয়ে নিন। ঘামের দুর্গন্ধ দূর হয়ে শরীরে সৌরভ ছড়াবে, পাশাপাশি দূরে থাকবে জীবাণু ও চর্মরোগ। গরমের সুতি কাপড় এবং সুতি মোজা ব্যবহার করুন। কাপড়-চোপড় বিশেষ করে অন্তর্বাস নিয়মিত পরিষ্কার করুন। এক কাপড় ও মোজা কয়েকদিন পরা থেকে বিরত থাকুন।

সাজে সতর্কতা

গরম এবং বৃষ্টি-বাদলার এ সময়টাতে সাজে সতর্ক থাকুন। ফাউন্ডেশন গরম এবং বৃষ্টিতে গলে যাওয়ার ভয় থাকে। তাই এ সময় ফাউন্ডেশন ব্যবহার না করাই ভালো। দিনে হালকাবেইজ মেকআপ করুন। আইশ্যাডো না লাগিয়ে শুধু ওয়াটারপ্রুফ আইলাইনার ও মাশকারা দিন। সতেজ লাগবে। রাতের সাজে ব্লাশন দিয়ে চোখে লাগিয়ে নিন মানানসই আইশ্যাডো। গরমে আইশ্যাডো গলে যাওয়া প্রতিরোধ করতে প্রথমে প্রাইমার লাগিয়ে নিন। সবশেষে লাগিয়ে নিন লিপস্টিক। বাইরে বের হওয়ার সময় ব্যাগে টিস্যুর পরিবর্তে নিয়ে নিন মেকআপ স্পঞ্জ বা ব্লটিং পেপার। ব্লটিং পেপার বা স্পঞ্জ ত্বকে বুলিয়ে ঘাম মুছে ফেলতে পারবেন। এতে মেকআপ দীর্ঘসময় ত্বকে স্থায়ী হবে। সঙ্গে হাতব্যাগে রাখুন কমপ্যাক্ট পাউডার, বৃষ্টিতে ভিজে বা ঘামে মেকআপ নষ্ট হলে চট করে ঠিক করে নিতে পারবেন।

বাদলা দিনে চুলের বাঁধন

এই সময়ের চঞ্চলমতি বৃষ্টিতে হয়ত আপনার চুল খোলা রেখে বেড়াতে যেতে ইচ্ছে করছে। কিন্তু বৃষ্টি-বাদল আর গরমের কথাটা একবার ভাবুন তো। খোলা চুল এ সময় সামলে রাখা কঠিন হবে। তাই গরমের নিমন্ত্রণে চুল বেঁধে রাখুন। ভাববেন না, চুল বেঁধেও করতে পারবেন ট্রেন্ডি হেয়ারস্টাইল। সে ক্ষেত্রে ‘গোছানো তবে একটু অগোছালো’ হেয়ারস্টাইল বেছে নিন। এই যেমন, লুজ বান বেণি, খোঁপা। এটা এখন ট্রেন্ডি হেয়ারস্টাইল। আর গরমে আরামদায়কও।

স্বাস্থ্যকর খাবার

ভ্যাপসা গরমে খাবারদাবারেও সচেতন থাকুন। শরীর ও ত্বক সুস্থ রাখতে প্রচুর পানি পান করুন। বিভিন্ন প্রকার তাজা ফল, জুস খান। বেশি তেল-মসলাযুক্ত খাবারের পরিবর্তে মাছের ঝোল, সবজি, সালাদ বেশি বেশি খেতে চেষ্টা করুন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×