বর্ষাকালের হাতব্যাগ

  ঘরেবাইরে ডেস্ক ০৯ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বর্ষাকালের হাতব্যাগ।
বর্ষাকালের হাতব্যাগ। ছবি সংগৃহীত

শিক্ষার্থী থেকে কর্মজীবী সবারই নিত্যদিনের সবচেয়ে প্রয়োজনীয় অনুষঙ্গ হচ্ছে ব্যাগ। কারণ ব্যাগেই থাকে আপনার নিত্যপ্রয়োজনীয় সবকিছু। আর এখন ব্যাগ শুধু প্রয়োজনীয় বাহকই নয় বরং ফ্যাশন অনুষঙ্গও। এই ফ্যাশন অনুষঙ্গটিকে বৃষ্টিতে সুরক্ষা দিতে ওয়াটার প্রুফ বেছে নিন। যাতে ব্যাগ ভিজলেও ব্যাগের ভেতরের জিনিসপত্র না ভিজে।

পানি নিরোধক ব্যাগ

সচরাচর চামড়া, সুতি কাপড় ও পাটের ব্যাগের চাহিদা বেশি থাকলেও বর্ষা মৌসুমে এমন ব্যাগ উপযোগী নয়। বৃষ্টির পানিকে সহজেই এড়িয়ে যেতে বর্ষায় উপযোগী ব্যালিস্টিক নাইলন এবং পলিইউরেথিন কোটিং দেয়া ব্যাগ। এ কারণে বর্ষায় চামড়া এবং কাপড়ের ব্যাগের বদলে রেক্সিন, প্যারাসুট, প্লাস্টিক কিংবা ক্যানভাসের মোটা কাপড়ের ব্যাগ আপনাকে বৃষ্টি বাদলের হাত থেকে রক্ষা করবে। এখন নানা রঙের, নানা ডিজাইনের ওয়াটারপ্রুফ ব্যাগ বাজারে পাওয়া যায়। যা দেখতেও দারুণ স্টাইলিশ।

নানারকম ব্যাগ

বর্ষা উপলক্ষে বাজারে রয়েছে প্লাস্টিক, ট্রান্সপারেন্ট, প্যারাসুট, রেক্সিন, ক্যানভাস কাপড়সহ নানারকম ব্যাগ। উজ্জ্বল রঙ, নানারকম প্রিন্ট, চেক এবং একরঙায় রাঙানো এসব ব্যাগ। এর মধ্যে প্লাস্টিকের প্রিন্টের ব্যাগগুলো বেশ আকর্ষণীয়। ফর্মাল অফিস ড্রেসের সঙ্গে মানানসই এই ব্যাগ। প্লাস্টিকের কিছু ব্যাগ রয়েছে যেগুলোতে বড় ফুলের প্রিন্টের ওপর পাতলা প্লাস্টিকের কাভার দেয়া। ক্যাজুয়াল সাজসজ্জায় এই ব্যাগ মানানসই। প্লাস্টিকের ব্যাগের মধ্যে কিছু রয়েছে টু ইন ওয়ান। টু ইন ওয়ান ব্যাগে কাঁধের ব্যাগের সঙ্গে ছোট পার্সও রয়েছে। বর্ষায় ব্যাগের তালিকায় এই সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় হল স্বচ্ছ ব্যাগ। ট্রান্সপারেন্ট এই ব্যাগে ভেতরের সবকিছু দেখা গেলেও উজ্জ্বল সফিস্টিকেটেড হওয়ায় সহজেই দেয় মর্ডান লুক। তাই তরুণীদের কাছে এই ব্যাগ বেশ জনপ্রিয়। বর্ষায় কব্লিয়ার রুট পিভিসি ব্যাগও বেশ ট্রেন্ডি। উজ্জ্বল এই ব্যাগ পানিতে ভিজে না, আবার বেশ ফ্যাশনেবল। নাইট পার্টি, বিয়ে বাড়ি কিংবা কোনো অনুষ্ঠানে এই ব্যাগ সহজেই উপস্থাপনযোগ্য। এখন অপালেন্ট শপিং ব্যাগও বাজারে পাওয়া যাচ্ছে খুব। ট্রেডিশনাল পোশাকের সঙ্গে এ ধরনের ব্যাগ ভালো লাগবে। মাল্টিকালারের প্রিন্টের এই ব্যাগগুলো আকৃতিতে বড়, দামেও সস্তা। ছেলেমেয়ে উভয়ের কাছে পিঠের সঙ্গে ঝুলিয়ে নেয়া ন্যাপস্যাক খুব জনপ্রিয়। আর শুধু ছেলেদের জন্য আছে ব্যাকপ্যাক। অ্যাডিডাস, ক্যামেল মাউন্টেন, ডিসি মিলান, পাওয়ার, সেইন্ট ইগল, এইচপি, অ্যালেস, উবি, গেটস, ইকোলাক, উলভকিং, নেইরাডো, লা পাজিট, পোর্টেবল, স্টার ড্রাগন ব্র্যান্ড প্রতিনিয়ত নিত্যনতুন ব্যাগ নিয়ে আসছে বাজারে।

কেনার আগে জেনে নিন

বর্ষার যে ধরনের ব্যাগই কিনুন না কেন কেনার সময় দেখে নিন ব্যাগের ভেতরে পানি নিরোধক প্যারাসুট কাপড় আছে কিনা। এছাড়াও ভালো মানের প্যারাসুট কাপড়ের নিচের অংশে রাবারের একটা অংশ দেয়া থাকে। কেনার সময় সেটি আছে কিনা দেখে নিন। ব্যালিস্টিক নাইলন এবং পলিইউরেথিন কোটিং দেয়া ওয়াটারপ্রুফ ব্যাগও বর্ষায় মানসম্মত।

দরদাম

ব্যাগের আকার এবং প্রাপ্তি স্থানভেদে রয়েছে দামের ভিন্নতা। এর মধ্যে রেক্সিনের ব্যাগ পাওয়া যাবে ১ হাজার থেকে ১ হাজার ৫০০ টাকায়, প্যারাসুট কাপড়ের ব্যাগ ৬০০ থেকে ৯০০ টাকা, ক্যানভাস কাপড়ের ব্যাগ ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা, ট্রান্সপারেন্ট স্বচ্ছ ব্যাগ ৮০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ টাকা, অপালেন্ট শপিং ব্যাগ ৩০০ থেকে ৫০০, প্লাস্টিকের ব্যাগ ৭০০ থেকে ১ হাজার টাকা, কব্লিয়ার রুট পিভিসি ব্যাগ ১ হাজার থেকে ১ হাজার ৭০০ টাকা, সিনথেটিক কাপড়ের ব্যাগ ৩৫০ থেকে ৮০০ টাকা। বর্ষায় ল্যাপটপ বাঁচাতে ল্যাপটপ ব্যাগ কিনতে পারেন ৮০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ টাকায়, ব্যাকপ্যাক ১ হাজার থেকে ২ হাজার টাকায়।

কোথায় পাবেন

নানা ডিজাইনের বর্ষার ব্যাগ পাওয়া যাবে বসুন্ধরা সিটি, নিউমার্কেট, যমুনা ফিউচার পার্ক, রাপা প্লাজা, কর্ণফুলি গার্ডেন সিটিসহ বিভিন্ন শপিংমলে। মোহাম্মদপুরের ব্যাগ প্যাকার্স ও আজিজ সুপার মার্কেটের ফোর ডাইমেনশনস নিজেদের শোরুমে বর্ষার উপযোগী বিশেষ ব্যাগ এনেছে। এছাড়া মোটা ক্যানভাস ও প্যারাসুট কাপড়ের ব্যাগ পাওয়া যাবে বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে। দেশের ফ্যাশনেবল বিভিন্ন ব্যাগ আসে থাইল্যান্ড ও চীন থেকে। তবে যুক্তরাষ্ট্র থেকেও বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ব্যাগ আমদানি করা হয়। মার্কেটে না গিয়ে কিনতে চাইলে অনলাইন থেকেও কিনে নিতে পারেন বর্ষার ব্যাগ।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×