ত্বক ও চুলের যত্নে আমলকী
jugantor
ত্বক ও চুলের যত্নে আমলকী

  পরামর্শ দিয়েছেন রূপবিশেষজ্ঞ রাহিমা সুলতানা রীতা  

০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আমলকী।

ত্বকের ক্ষেত্রে : ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। আমলকীতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ‘সি’ এবং অ্যান্টিঅক্সাইড থাকার কারণে ত্বকের প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। আমলকীর জুস এবং মধু একসঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে লাগালে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে।

নিয়মিত আমলকীর জুস পান করলে ত্বকের রিঙ্কেলস এবং কালো দাগ দূর হয়ে ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরে আসবে।

নিয়মিত আমলকী সেবনে ত্বকের মরা কোষগুলো ঠিক হয়ে যাবে। ব্রণের জায়গায় আমলকী রস ১০-১৫ মিনিট রেখে দিলে ব্রণ চলে যায়। ত্বক পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। ত্বকের জ্বালাপোড়া এবং ত্বকের র‌্যাশ/লাল লাল ভাব দূর করতে সাহায্য করে। আমলকীতে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ থাকার কারণে ত্বকে রিঙ্কেলসভাব দূর করে এবং ত্বককে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

চুলের ক্ষেত্রে : চুলের গোড়া শক্ত করে : আমলকী এবং লেবুর রস চুলের গোড়ায় দিয়ে ২০-৩০ মিনিট রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে চুল পরিষ্কার করলে চুলের গোড়া শক্ত হয়। নিয়মিত আমলকী জুস খেলে চুল পাকা রোধ করে। কারণ আমলকীতে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ এবং অ্যান্টিঅক্সাইড আছে। আমলকীর রস দিয়ে চুল ধৌত করলে চুলের পাকা ভাব কমে যায়। নিয়মিত আমলকীর রস (সপ্তাহে ২-৩ দিন) ব্যবহার করলে চুল পড়া কমে যায়। চুলের গোড়া শক্ত হয়।

চুল দেখতে মসৃণ মনে হয়। চুলের খুশকি দূর করে। আমলকী জুস স্ক্যাল্প পরিষ্কারে সাহায্য করে।

ত্বক ও চুলের যত্নে আমলকী

 পরামর্শ দিয়েছেন রূপবিশেষজ্ঞ রাহিমা সুলতানা রীতা 
০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
আমলকী।
আমলকী। ছবি সংগৃহীত

ত্বকের ক্ষেত্রে : ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। আমলকীতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ‘সি’ এবং অ্যান্টিঅক্সাইড থাকার কারণে ত্বকের প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। আমলকীর জুস এবং মধু একসঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে লাগালে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে।

নিয়মিত আমলকীর জুস পান করলে ত্বকের রিঙ্কেলস এবং কালো দাগ দূর হয়ে ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরে আসবে।

নিয়মিত আমলকী সেবনে ত্বকের মরা কোষগুলো ঠিক হয়ে যাবে। ব্রণের জায়গায় আমলকী রস ১০-১৫ মিনিট রেখে দিলে ব্রণ চলে যায়। ত্বক পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। ত্বকের জ্বালাপোড়া এবং ত্বকের র‌্যাশ/লাল লাল ভাব দূর করতে সাহায্য করে। আমলকীতে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ থাকার কারণে ত্বকে রিঙ্কেলসভাব দূর করে এবং ত্বককে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

চুলের ক্ষেত্রে : চুলের গোড়া শক্ত করে : আমলকী এবং লেবুর রস চুলের গোড়ায় দিয়ে ২০-৩০ মিনিট রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে চুল পরিষ্কার করলে চুলের গোড়া শক্ত হয়। নিয়মিত আমলকী জুস খেলে চুল পাকা রোধ করে। কারণ আমলকীতে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ এবং অ্যান্টিঅক্সাইড আছে। আমলকীর রস দিয়ে চুল ধৌত করলে চুলের পাকা ভাব কমে যায়। নিয়মিত আমলকীর রস (সপ্তাহে ২-৩ দিন) ব্যবহার করলে চুল পড়া কমে যায়। চুলের গোড়া শক্ত হয়।

চুল দেখতে মসৃণ মনে হয়। চুলের খুশকি দূর করে। আমলকী জুস স্ক্যাল্প পরিষ্কারে সাহায্য করে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন