পার্টিতে যাওয়ার আগে চুল ও ত্বকের যত্ন

পার্টি মানেই হাজারো ব্যস্ততা। নিজের যত্ন নেয়ার সময় বের করা কঠিন হয়ে পড়ে। আর নারীরা কোনো অনুষ্ঠান এলেই মার্কেটিং নিয়ে এত বেশি ব্যস্ত হয়ে পড়েন যে, নিজের প্রতি যত্ন নেয়ার সময়ই থাকে না। তাই আগে থেকে প্রস্তুত নিয়ে কীভাবে নিজের যত্ন নেবেন- পরামর্শ দিয়েছেন গীতিস বিউটি পার্লারের স্বত্বাধিকারী গীতি বিল্লাহ।

  যুগান্তর ডেস্ক    ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

যে কোনো পার্টির আগের দিন ত্বক ও চুলের যত্নের প্রয়োজন। আগে থেকে যত্ন নেয়া হলে ত্বক ও চুলের ক্ষতি কম হয়। সাধারণত আমরা কোনো পার্টি অথবা অনুষ্ঠানের দিন অন্য দিনের তুলনায় একটু বেশি সাজগোজ করতে পছন্দ করি। এতে করে স্কিনে বেশি মেকআপ করে থাকি। মার্কেটে নিত্যনতুন সাজগোজের উপকরণের তো কোনো অভাব নেই। আমরা নতুন নতুন মেকআপ দিয়ে বিভিন্ন অকেশনে মনের মতো কমবেশি নিজেকে সাজাতে উদ্বিগ্ন থাকি। যাতে অন্যদের থেকে নিজেকে একটু আলাদা মনে হয়। তাই এতসব মেকআপ ব্যবহার যেহেতু করতে হয় তাই আগে থেকেই স্কিনের যত্ন নিলে মেকআপে সাইড অ্যাফেক্ট হওয়ার কোনো সম্ভাবনা থাকবে না। ঘরোয়াভাবে কিছু প্যাক তৈরি করে নিয়মিত ত্বকে লাগালে স্কিন আগের থেকে আরও বেশি উজ্জ্বলতা বজায় থাকবে।

* তুলসীপাতা পেস্ট, নিমপাতা পেস্ট, মুলতানি মাটি, টমেটোর রস ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে সারা মুখে ও গলায় ২০ মিনিট রেখে ভালো করে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

* শসার রস, টমেটোর রস, মুলতানি মাটি, একটু মধু, ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে ১৫-২০ মিনিট রেখে ধুয়ে নিতে হবে।

হাত : পার্টিতে যাওয়ার আগে ফেয়ার পলিশ করে নিলে হাত দুটোর উজ্জ্বলতা বাড়বে। এরপর উপটানের সঙ্গে অলিভওয়েল অথবা নারিকেল তেল, দুধের সর, একসঙ্গে মিশিয়ে দু’হাতে ১০ মিনিট ভালো করে মাখিয়ে রাখুন। এরপর শুকিয়ে গেলে শুকনো ময়দা দিয়ে হাতে ম্যাসাজ করলে সব উঠে আসবে। পরে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। এ ছাড়া হাতে যাদের লোম বেশি থাকে তারা অবশ্যই ওয়াক্স করিয়ে নেবেন।

* ওয়াক্স বাড়িতে বানাতে পারেন। ওয়াক্স বানাতে চিনি ও লেবুর রস লাগবে। এদুটোর সংমিশ্রণে জ্বাল দিয়ে তৈরি করা যায়। মাসে ১ বার ওয়াক্স করে নিলে হাতের উজ্জ্বলতা বজায় থাকবে অনেক দিন। আর যাদের হালকা তাদের লোম পরিষ্কার হবে প্যাকটি ব্যবহারের মাধ্যমে।

এবার ত্বকের যত্নের পাশাপাশি চুলের যত্নেরও প্রয়োজন। চুলের সৌন্দর্য নারী সৌন্দর্যের অন্যতম অঙ্গ। আমরা চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য মার্কেট থেকে অনেক নামি ব্র্যান্ডের দামি শ্যাম্পু, সেরাম, তেল ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু দেখা যায় অনেক চেষ্টা করেও চুলের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করা যায় না। তখন মনটাও খারাপ হয়ে ওঠে। অনেক সময় চুলের সৌন্দর্য বাড়ানোর জন্য আমরা হেয়ার কালারও করে থাকি। আর হেয়ার কালার করলেই আরও বেশি যত্ন নিতে হবে।

চুলের যত্নে তেলের কোনো বিকল্প নেই। নিয়মিত চুলে তেল দেয়ার অভ্যাস করতে হবে। যে কোনো পার্টিতে যাওয়ার আগে আমরা চুলের স্টাইল একটু বদলিয়ে থাকি। আর এতে করে চুল রুক্ষ হয় বেশি। তাই আগে থেকেই এর যত্ন নিতে হবে। চুলের যত্নে অ্যালোভেরা খুবই উপকারী। তাই তেল ও অ্যালোভেরার জেল চুলের দৈর্ঘ্য অনুযায়ী নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে রাতে ঘুমানোর আগে গোড়া থেকে আগা পর্যন্ত লাগিয়ে রেখে সকালে শ্যাম্পু করে নিতে হবে।

* পরিমাণমতো তেল নিয়ে এর সঙ্গে আমলকীর রস, অ্যালোভেরার জেল ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে ২০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে নিতে হবে। এরপর হেয়ার ট্রিটমেন্ট করতে হবে। এ ছাড়া যদি উকুন থাকে তাহলে পানপাতা অথবা নিমপাতা মিশিয়ে নিতে পারেন।

* মেথি পেস্ট, শিকাকাই, পেস্ট, তেল, অ্যালোভেরা জেল, শসার রস, পেঁয়াজের রস ভালো কর মিশিয়ে নিয়ে পুরো চুলে ২০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে নিতে হবে।

* এ ছাড়া নারিকেল তেলের সঙ্গে নারিকেল দুধ ও অ্যালোভেরা জেল ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে মাথায় ২০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে নিতে হবে।

শ্যাম্পু করার পর গোড়া বাদে কন্ডিশনিং করুন। সপ্তাহে অন্তত একদিন এভাবে চুলের যত্ন নিলে কিছু দিনের মধ্যে চুলের গোড়া মজবুত হয়ে যাবে এবং চুল সিল্কি ও ব্রাউন্স হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×