জিন্সের পোশাকেও পরিপাটি চেহারা
jugantor
জিন্সের পোশাকেও পরিপাটি চেহারা

  আঞ্জুমান আরা  

০৫ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জিন্সের পোশাকেও পরিপাটি চেহারা

ফ্যাশনে জিন্সের আবেদন সবসময় একইরকম। অনেককে দেখা যায় ১০-১৫ বছরের পুরনো জিন্সও আগলে ধরে রাখেন। এর একটি অন্যতম কারণ জিন্স সবসময়ই স্টাইলিশ। তবে শীতে জিন্স আরামদায়ক হওয়ায় এ সময় জিন্স প্যান্টের সঙ্গে টপস, টিউনিক, কুর্তি, টি-শার্টসহ নানারকম স্টাইলিশ পোশাক পরতে ভালোবাসেন ফ্যাশনপ্রেমীরা। এতে আরামের সঙ্গে স্টাইলেও আসে নতুনত্ব।

একটা সময় ছিল যখন জিন্স প্যান্ট মানেই ছিল মোটা কাপড়। তবে এখন মোটা কাপড়ের পাশাপাশি জিন্স প্যান্ট তৈরি হচ্ছে পাতলা আর নরম কাপড়েও। জিন্স প্যান্টের সুতা ব্যবহারে এখন মাথায় রাখা হচ্ছে ঋতু। পাতলা কাপড়ের জিন্স হালকা শীতে বেশ আরামদায়ক এবং ফ্যাশনেবল। আর একটু বেশি শীতের জন্য মোটা কাপড়ের জিন্স প্যান্ট তো রয়েছেই।

জিন্স প্যান্টের মধ্যে দুই ধরনের জিন্স পাওয়া যায়। একটি সাধারণ জিন্স প্যান্ট এবং অপরটি স্কিনি জিন্স প্যান্ট। সাধারণ জিন্সের চেয়ে বর্তমানে স্কিনি জিন্স প্যান্টই বেশি জনপ্রিয়। স্কিনি জিন্স দুই ধরনের ছাঁটে তৈরি হচ্ছে।

একটি নিচের দিকে বেলবটমের মতো ছাঁট। যা হাঁটুর ওপরের অংশ একদম আঁটসাঁট। একে ‘স্কিনি ফিট বেলবটম’ বলা হয়। অন্যটির পায়ের নিচের দিকটি চুড়িদার সালোয়ারের মতো চাপা। একে ‘ন্যারো’ শেপ বলা হয়।

হালফ্যাশনে তরুণ-তরুণীদের কাছে ন্যারো শেপ জিন্স বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছে। ন্যারো জিন্স প্যান্ট ছাড়াও তরুণীদের জন্য রয়েছে সেমিন্যারো, বুটকাট, স্ট্রেটকাট, ক্রেপ, বেগি নানা ধরনের জিন্স। বর্তমানে দারুণ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ‘সুপার স্কিনি জিন্স’। সুপার স্কিনি জিন্সে দুমড়ানো-মুচড়ানো জিন্সের কাপড়টা স্ট্রেচ করা থাকে। সুপার স্কিনি জিন্স কোমর থেকে পায়ের গোড়ালি পর্যন্ত পা দুটিকে যেন মুড়ে রাখে শক্ত করে। দেখলে মনে হয়, জিন্সের কাপড়টি পায়ের সঙ্গে লেগে আছে। গোড়ালির কাছে ভাঁজগুলো যেন চুড়িদার সালোয়ারের মতো। একে ‘লো-ওয়েস্ট সিনক প্যাটার্ন’ও বলা হয়।

কিছু জিন্সের ফেব্রিক ভাঁজ ভাঁজ করা থাকে, একে বলা হয় ক্রেপ জিন্স। আবার কিছু থাকছে মসৃণ। তরুণীদের জিন্স প্যান্টে বৈচিত্র্য আনতে এখন পকেটে স্টিল ও প্লাস্টিকের ডেকোরেটেড বোতাম, বিডস, চেইন, বাটনের ব্যবহার এবং প্যান্টের বিভিন্ন অংশে ফুল লতাপাতা নকশার অ্যাম্ব্রয়ডারি, স্টোন, সিকোয়েন্সের নকশা ব্যবহার হচ্ছে। এই জিন্সগুলো পরতে পারেন ক্যাজুয়াল যে কোনো পার্টিতে। তরুণদের পাশাপাশি তরুণীদের কাছেও ছেঁড়া জিন্স এখন জনপ্রিয়।

জিন্সে ছেঁড়া নকশা আগে দেখা গেলেও এখন ছেঁড়া নকশাতেও এসেছে নতুনত্ব। এখন হাঁটুর ওপর বেশ কিছুটা অংশে ছেঁড়া বা কাটা নকশার দেখা মিলবে। কখনও কাটা জায়গাটার ফাঁকা বেশ একটু বড় করে রেখে দেয়া হচ্ছে কখনও সেখানে অন্য রঙের কাপড় জুড়ে দিয়ে করা হচ্ছে বিশেষ নকশা।

প্যান্টের নিচের অংশের সুতা বের করে রাখা এবং দুই পাশে মোটা সেলাই দেয়ার চলও চলছে। এ ধরনের জিন্সের বিভিন্ন স্থানে ছোট থেকে বড় আকারের ছেঁড়া তৈরি করে ডিস্ট্রেসড লুক দেয়া হয়। হালফ্যাশনে তরুণীদের ছেঁড়া জিন্সে শর্ট জিপারের লো রাইজ, সুপার লো রাইজ, রেগুলোর রাইজ, হাইওয়েস্ট প্যান্ট ইত্যাদি চলছে।

অন্যান্য পোশাকের চেয়ে টপস, টি-শার্টের সঙ্গে জিন্স প্যান্ট অনেক বেশি স্টাইলিশ। এছাড়া হালকা শীতে উলের টপস, ফ্রক, সোয়েটার, লং শার্ট, স্টাইলিশ কার্ডিগানের সঙ্গেও পরতে পারেন জিন্স প্যান্ট। শীত ফ্যাশনে জিন্স মানিয়ে যাবে পঞ্চ, কটি, সোয়েটারের সঙ্গেও। তবে খুব বেশি লম্বা টপের সঙ্গে জিন্স না পরাই ভালো।

এতে করে জিন্সের আসল সৌন্দর্য ঢাকা পড়ে যাবে। বরং ছোট টপ, ক্রপ টপ, ছোট কাটের ফ্লোয়ি টপ বেশ মানাবে।

ব্লু জিন্স সবকালেই জনপ্রিয়। তবে জিন্সের একঘেয়েমি কাটাতে এখন বাজারে পাওয়া যাচ্ছে আকাশি, কালো, ধূসর, গোলাপি এমনকি সাদা জিন্সও। তাই এখন চাইলেই টি-শার্ট, টপস, কুর্তিসহ সব ধরনের পোশাকের সঙ্গে রং মিলিয়ে কিনতে পারেন জিন্স প্যান্ট।

জিন্সের পোশাকেও পরিপাটি চেহারা

 আঞ্জুমান আরা 
০৫ নভেম্বর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
জিন্সের পোশাকেও পরিপাটি চেহারা
জিন্সের পোশাকেও পরিপাটি চেহারা। ছবি সংগৃহীত

ফ্যাশনে জিন্সের আবেদন সবসময় একইরকম। অনেককে দেখা যায় ১০-১৫ বছরের পুরনো জিন্সও আগলে ধরে রাখেন। এর একটি অন্যতম কারণ জিন্স সবসময়ই স্টাইলিশ। তবে শীতে জিন্স আরামদায়ক হওয়ায় এ সময় জিন্স প্যান্টের সঙ্গে টপস, টিউনিক, কুর্তি, টি-শার্টসহ নানারকম স্টাইলিশ পোশাক পরতে ভালোবাসেন ফ্যাশনপ্রেমীরা। এতে আরামের সঙ্গে স্টাইলেও আসে নতুনত্ব।

একটা সময় ছিল যখন জিন্স প্যান্ট মানেই ছিল মোটা কাপড়। তবে এখন মোটা কাপড়ের পাশাপাশি জিন্স প্যান্ট তৈরি হচ্ছে পাতলা আর নরম কাপড়েও। জিন্স প্যান্টের সুতা ব্যবহারে এখন মাথায় রাখা হচ্ছে ঋতু। পাতলা কাপড়ের জিন্স হালকা শীতে বেশ আরামদায়ক এবং ফ্যাশনেবল। আর একটু বেশি শীতের জন্য মোটা কাপড়ের জিন্স প্যান্ট তো রয়েছেই।

জিন্স প্যান্টের মধ্যে দুই ধরনের জিন্স পাওয়া যায়। একটি সাধারণ জিন্স প্যান্ট এবং অপরটি স্কিনি জিন্স প্যান্ট। সাধারণ জিন্সের চেয়ে বর্তমানে স্কিনি জিন্স প্যান্টই বেশি জনপ্রিয়। স্কিনি জিন্স দুই ধরনের ছাঁটে তৈরি হচ্ছে।

একটি নিচের দিকে বেলবটমের মতো ছাঁট। যা হাঁটুর ওপরের অংশ একদম আঁটসাঁট। একে ‘স্কিনি ফিট বেলবটম’ বলা হয়। অন্যটির পায়ের নিচের দিকটি চুড়িদার সালোয়ারের মতো চাপা। একে ‘ন্যারো’ শেপ বলা হয়।

হালফ্যাশনে তরুণ-তরুণীদের কাছে ন্যারো শেপ জিন্স বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছে। ন্যারো জিন্স প্যান্ট ছাড়াও তরুণীদের জন্য রয়েছে সেমিন্যারো, বুটকাট, স্ট্রেটকাট, ক্রেপ, বেগি নানা ধরনের জিন্স। বর্তমানে দারুণ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ‘সুপার স্কিনি জিন্স’। সুপার স্কিনি জিন্সে দুমড়ানো-মুচড়ানো জিন্সের কাপড়টা স্ট্রেচ করা থাকে। সুপার স্কিনি জিন্স কোমর থেকে পায়ের গোড়ালি পর্যন্ত পা দুটিকে যেন মুড়ে রাখে শক্ত করে। দেখলে মনে হয়, জিন্সের কাপড়টি পায়ের সঙ্গে লেগে আছে। গোড়ালির কাছে ভাঁজগুলো যেন চুড়িদার সালোয়ারের মতো। একে ‘লো-ওয়েস্ট সিনক প্যাটার্ন’ও বলা হয়।

কিছু জিন্সের ফেব্রিক ভাঁজ ভাঁজ করা থাকে, একে বলা হয় ক্রেপ জিন্স। আবার কিছু থাকছে মসৃণ। তরুণীদের জিন্স প্যান্টে বৈচিত্র্য আনতে এখন পকেটে স্টিল ও প্লাস্টিকের ডেকোরেটেড বোতাম, বিডস, চেইন, বাটনের ব্যবহার এবং প্যান্টের বিভিন্ন অংশে ফুল লতাপাতা নকশার অ্যাম্ব্রয়ডারি, স্টোন, সিকোয়েন্সের নকশা ব্যবহার হচ্ছে। এই জিন্সগুলো পরতে পারেন ক্যাজুয়াল যে কোনো পার্টিতে। তরুণদের পাশাপাশি তরুণীদের কাছেও ছেঁড়া জিন্স এখন জনপ্রিয়।

জিন্সে ছেঁড়া নকশা আগে দেখা গেলেও এখন ছেঁড়া নকশাতেও এসেছে নতুনত্ব। এখন হাঁটুর ওপর বেশ কিছুটা অংশে ছেঁড়া বা কাটা নকশার দেখা মিলবে। কখনও কাটা জায়গাটার ফাঁকা বেশ একটু বড় করে রেখে দেয়া হচ্ছে কখনও সেখানে অন্য রঙের কাপড় জুড়ে দিয়ে করা হচ্ছে বিশেষ নকশা।

প্যান্টের নিচের অংশের সুতা বের করে রাখা এবং দুই পাশে মোটা সেলাই দেয়ার চলও চলছে। এ ধরনের জিন্সের বিভিন্ন স্থানে ছোট থেকে বড় আকারের ছেঁড়া তৈরি করে ডিস্ট্রেসড লুক দেয়া হয়। হালফ্যাশনে তরুণীদের ছেঁড়া জিন্সে শর্ট জিপারের লো রাইজ, সুপার লো রাইজ, রেগুলোর রাইজ, হাইওয়েস্ট প্যান্ট ইত্যাদি চলছে।

অন্যান্য পোশাকের চেয়ে টপস, টি-শার্টের সঙ্গে জিন্স প্যান্ট অনেক বেশি স্টাইলিশ। এছাড়া হালকা শীতে উলের টপস, ফ্রক, সোয়েটার, লং শার্ট, স্টাইলিশ কার্ডিগানের সঙ্গেও পরতে পারেন জিন্স প্যান্ট। শীত ফ্যাশনে জিন্স মানিয়ে যাবে পঞ্চ, কটি, সোয়েটারের সঙ্গেও। তবে খুব বেশি লম্বা টপের সঙ্গে জিন্স না পরাই ভালো।

এতে করে জিন্সের আসল সৌন্দর্য ঢাকা পড়ে যাবে। বরং ছোট টপ, ক্রপ টপ, ছোট কাটের ফ্লোয়ি টপ বেশ মানাবে।

ব্লু জিন্স সবকালেই জনপ্রিয়। তবে জিন্সের একঘেয়েমি কাটাতে এখন বাজারে পাওয়া যাচ্ছে আকাশি, কালো, ধূসর, গোলাপি এমনকি সাদা জিন্সও। তাই এখন চাইলেই টি-শার্ট, টপস, কুর্তিসহ সব ধরনের পোশাকের সঙ্গে রং মিলিয়ে কিনতে পারেন জিন্স প্যান্ট।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন