চোখ জুড়াবে সরিষা ক্ষেত

  আবুল বাশার মিরাজ ২১ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কুয়াশায় মোড়ানো প্রকৃতি। চারদিকে বিরাজ করছে শীতের আবহ। মাঠে মাঠে শোভা পাচ্ছে হলুদের বিশাল সমারোহ। কুয়াশা ও ঝলমলে রোদের খেলা এখন দিগন্ত বিস্তৃত হলদে বরণ সরিষার ফুলে ফুলে। দিগন্তজোড়া হলুদ রঙের সেই সরিষা ফুলের সৌন্দর্য দেখতে যেতে পারেন ময়মনসিংহের শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন পার্ক সংলগ্ন ব্রহ্মপুত্র নদের তীরের সরিষা ক্ষেতে। নদের তীরের এ সরিষা ক্ষেত আপনাকে আকৃষ্ট করবেই। প্রতিদিনই শত শত পর্যটক এর শোভা নিতে ছুটে আসছে। এখানে গেলে আপনারও মনে হতে পারে একজন সরিষা ফুলের মধু আহরণকারী মৌমাছি কিংবা প্রজাপতি।

চাইলে আপনার প্রিয় মানুষটিকেও এ ভ্রমণের সফরসঙ্গী করতে পারেন। সরিষা ক্ষেতের মাঝে দাঁড়ালে তার ঘ্রাণ আপনাকে মুগ্ধ করে দেবে আর দিনের বেলায় সরিষা ক্ষেতে প্রচুর অক্সিজেন থাকে। মিষ্টি গন্ধ ভুলিয়ে দেবে শহুরে জীবনযাপনের বিরক্তি।

এখানে গেলে দেখবেন, নানা রঙের প্রজাপতিতে ভরে আছে সরিষা ক্ষেত। রঙ-বেরঙের প্রজাপতি ডানা ঝাপটানো চিত্তে জাগাবে নবতর আনন্দ। কোথাও ঝলক দিয়ে উঠছে কালো ডানায় হলুদ-লালের মিশ্রণ, নীল, সবুজ, লাল-নীলের ডোরাকাটা বিভিন্ন রঙের প্রজাপতি উড়ে বেড়াচ্ছে। প্রজাপতিরা এখানে আসে বিশ্রাম নিতে।

আর সরিষা ফুলের সঙ্গে বোনাস হিসেবে থাকছে পার্কের ভেতর স্থাপিত পিঠার দোকানে পিঠা খাওয়ার সুযোগ। আরেকটি বিষয়, ঘুরতে গিয়ে সরিষা ক্ষেতের যেন কোনও ক্ষতি না হয় সেদিকে অবশ্যই নজর রাখবেন। মনে রাখবেন, সরিষা ক্ষেতে ভ্রমণের সবচেয়ে ভালো সময় খুব সকাল কিংবা বিকাল।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×