রেসিপি

ইফতার ও সাহরির কয়েক পদ

রমজান মাসে গৃহিণীদের ইফতার ও সাহরির জন্য বাড়তি প্রস্তুতি নিতে হয়। করোনাভাইরাসের কারণে পরিস্থিতি এবার একটু অন্যরকম। ঘরের মানুষদের জন্য কয়েকটি সহজ রেসিপি দিয়েছেন রন্ধনশিল্পী-

  মনিরা মোস্তফা মিতা ও জিনাত সুলতানা আলোকচিত্রী মনির আহমেদ ২৫ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ছিটা পিঠার সবজি

যা লাগবে : পিঠার জন্য- চালের গুঁড়া ১ কাপ, ময়দা ২-৩ টেবিল চামচ, কুসুম গরম পানি ২ কাপের মতো, লবণ স্বাদমতো, তেল ব্রাশ করার জন্য।

সবজরি জন্য- গাজর ১/২ কাপ, ফুলকপি ১/২ কাপ, আলু ১/২ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ২/৩ টেবিল চামচ, ধনিয়া গুঁড়া ১ চা চামচ, জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ, লবণ আন্দাজমতো, সয়াসস ১ টেবিল চামচ, তেল ১ চামচ, পানি আন্দাজমতো।

যেভাবে করবেন : প্রথমে সবজি ভাজি করতে করাইতে তেল দিয়ে পেঁয়াজ কুচি দিন। হাল্কা লাল হলে সব সবজি দিয়ে একটু ভেজে মসলা ও পরিমাণমতো পানি দিয়ে সবজি সিদ্ধ হয়ে পানি শুকিয়ে গেলে সয়াসস দিয়ে ১/২ মিনিট রেখে চুলা থেকে নামিয়ে নিতে হবে। এবার চালের গুঁড়া, ময়দা ও লবণ একসঙ্গে মিশিয়ে অল্প অল্প পানি দিয়ে হাতে মেখে পাতলা খামির বা ব্যাটার করে নিন। বোতলে মুখে একটি ফুটো করে নিন। এবার এই ব্যাটার বোতলে ভরে নিন। মাঝারি আঁচে প্যান গরম করে তেল ব্রাশ করে বোতল ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে জালি জালি ডিজাইন করে প্যানের ওপর ব্যাটার ছড়িয়ে দিন। হয়ে গেলে সবজি দিয়ে ভাঁজে ভাঁজে পিঠা রোল করে নামিয়ে নিন।

সালাদি ছোলা

যা লাগবে : সিদ্ধ ছোলা ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১টি, আদা রসন কুচি ১ চা চামচ, মসলা ১ চা চামচ, লেবুর রস ১ টেবিল চামচ, সরিসার তেল ১ টে চামচ, কাঁচামরিচ কুচি ২/৩টি, আধা সিদ্ধ সবজি ১ কাপ (ক্যাপসিকাম, সসা, টমাটো)।

যেভাবে করবেন : কড়াইতে তেল দিয়ে পেঁয়াজ কুচি, আদা রসুন কুচি হাল্কা ভেজে ছোলাটা দিতে হবে। ২/৩ মিনিট পর চাট মসলা, সবজি, কাঁচামরিচ, লবণ এবং লেবুর রস দিয়ে চুলা থেকে নামিয়ে পরিবেশন করতে হবে সালাদি ছোলা।

কাঁচাকলার নার্গিসি কোফতা

যা লাগবে : ম্যাশড করা সিদ্ধ কাঁচাকলা ১ কাপ, ম্যাশড আলু ১/৪ কাপ, কাবাব মসলা ১ চা চামচ, মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, কাঁচামরিচ ১-২টি, ধনে ও জিরা গুঁড়া আধা চা চামচ করে, লবণ স্বাদমতো, ডিম ১টি (কিমায় দেয়ার জন্য), ডিম সিদ্ধ ২টি (কোফতার জন্য), তেল ভাজার জন্য।

যেভাবে করবেন : সিদ্ধ ডিম বাদে কাঁচাকলা আলুর সঙ্গে সব উপকরণ দিয়ে মেখে নিতে হবে। সিদ্ধ ডিম ২টি আস্ত রেখে, মাখানো উপকরণ দিয়ে মুড়িয়ে ডুবো তেলে ভেজে নিতে হবে। একটু ঠাণ্ডা হলে মাঝামাঝি কেটে পরিবেশন করতে হবে

চিকেন ড্রামস্টিক ফ্রাই

যা লাগবে : ৮ টুকরো মুরগি (লেগ/ড্রামস্টিক/উইংস), ১ কাপ ময়দা, ১ কাপ সিদ্ধ ম্যাশড আলু, আধা চা চামচ গোল মরিচ গুঁড়া, আধা চা চামচ আদা বাটা, আধা চা চামচ পেঁয়াজ বাটা, লবণ পরিমাণমতো, আধা চা চামচ মরিচ গুঁড়া, আধা চা চামচ প্যাপরিকা পাউডার, ১টি ডিম, আধা কাপ তরল দুধ, ১ কাপ ব্রেডক্রাম।

যেভাবে করবেন : প্রথমে একটি পাত্রে ডিম ও দুধ একসঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এতে সামান্য লবণ, আদা বাটা, পেঁয়াজ বাটা দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে এতে মুরগির টুকরোগুলো ১০-১৫ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন।

ওপর একটি পাত্রে ময়দা নিয়ে সব গুঁড়া মসলা দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এতেও সামান্য লবণ দিয়ে খুব ভালো করে মিশিয়ে নিন।

মুরগির টুকরোগুলো সিদ্ধ আলু দিয়ে মুড়িয়ে নিন। একে একে ডিমের মিশ্রণ থেকে তুলে ময়দার মিশ্রণে দিয়ে ভালো করে ওপরে কোট করে নিন। এরপর আবার বেঁচে যাওয়া ডিমের মিশ্রণে চুবিয়ে পরে ব্রেডক্রামে ওপরে কোট দিয়ে নিন ভালো করে।

একটি বড় কড়াইয়ে ডুবো তেলে ভাজার জন্য তেল গরম করে লালচে করে ভেজে নিতে হবে।

দই বড়া

যা লাগবে : মাষকলাই ডাল ১ কাপ, জিরা ১ চা চামচ, ধনিয়া ১ চা চামচ, গোল মরিচ আধা চা চামচ, শুকনা মরিচ ৪টি, লবণ ১ টেবিল চামচ, তেল ১ কাপ, গুড় বা চিনি ২ টেবিল চামচ, টক দই ২ কাপ।

যেভাবে করবেন : ডাল ভালো করে ধুয়ে ৬-৭ ঘণ্টা পানি দিয়ে ভিজিয়ে রাখুন। জিরা, ধনিয়া, গোল মরিচ ও শুকনা মরিচ আলাদা টেলে একসঙ্গে গুঁড়া করে রাখুন। ডালের পানি ফেলে দিয়ে শিল পাটায় মিহি করে বেটে নিন। এবার সামান্য পানি দিয়ে ডাল ভালো করে ফেটে নিন বা ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিন। একটা গামলায় ৬ কাপ পানির সঙ্গে ২ চা চামচ লবণ মিশিয়ে রাখুন। কড়াইয়ে তেল গরম করুন। অল্প ডাল নিয়ে চ্যাপ্টা আকারের বড়া বানিয়ে তেলে ভাজুন। ভাজা হলে তেল থেকে তুলে লবণ পানিতে ছাড়ুন। এভাবে সব ডালের বড়া ভেজে তুলুন। বড়া ভাজার সময় না ফুলে উঠলে সামান্য পানি দিয়ে ডাল আবার ফেটে নিন। দই আলাদা করে ফেটে নিন। বেশি ঘন মনে হলে সামান্য পানি মেশাতে পারেন। চিনি বা গুড় ও লবণ দইয়ে মেশান। এবার আগে থেকে গুঁড়া করে রাখা ভাজা মসলা ২ চা চামচ মেশান। বড়ার পানি ছেঁকে নিয়ে একটি কাচের বাটিতে বড়াগুলো রাখুন। বড়ার উপরে দইয়ের মিশ্রণ ঢেলে দিন। উপরে গুঁড়া মসলা ছিটিয়ে দিন। তেঁতুলের সস দিন। বড়া ৩-৪ ঘণ্টা দইয়ে ভিজতে পরে পরিবেশন করুন।

চপস্যুয়ে

যা লাগবে : নুডলস ২ প্যাকেট, মাংস কুচি সিদ্ধ ১ কাপ, গাজর কুচি ১/২ কাপ, পেঁপে কুচি ২/১ কাপ, মাশরুম ৮/৯টি স্লাইস করা, ফুলকপি কুচি ২/১ কাপ, টেস্টিং সল্ট ১.৫ টেবিল চামচ, সয়াসস ৩ টেবিল চামচ, চিনি ১ চা চামচ, আদা বাটা ১/২ চা চামচ, রসুন বাটা ১/২ চা চামচ, লবণ আন্দাজমতো, পেঁয়াজ ১ কাপ (ভাঁজে খোলা), কর্নফ্লাওয়ার ২ টেবিল চামচ (২ কাপ পানিতে গোলানো।

যেভাবে করবেন : ক) নুডলস সিদ্ধ করে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। ৩ ভাগ করে ২ ভাগ ডুবা তেলে মচমচে করে ভাজতে হবে। (তেল অবশ্যই ভালো গরম করতে হবে।)

খ) কড়াইতে তেল দিয়ে তাতে ১ ভাগ নুডলস পেঁয়াজ, কাঁচামরিচ, লবণ, টেস্টিং সল্ট, সয়াসস, তেল দিয়ে রান্না করে নিতে হবে।

ঘ) কড়াইতে ২/৩ কাপ তেল দিয়ে সিদ্ধ মাংস, আদা বাটা, রসুন বাটা, দিয়ে ৫/৬ মি. কষাতে হবে। পেঁয়াজসহ সবজিগুলো এক এক করে দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে টেস্টিং সল্ট, সয়াসস, চিনি, কাঁচামরিচ কুচি দিয়ে ২/৩ মিনিট রান্না করে কর্নফ্লাওয়ার দিয়ে নেড়ে নামাতে হবে। সার্ভিং ডিসে প্রথমে রান্না নুডলস, তার উপরে ভাজা নুডলস, তার উপরে সবজি, তার উপরে সস দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

কাঁচা আমের জুস

যা লাগবে : কাঁচা আম কিউব করে কাটা-২টি আম, পানি-৭৫০ গ্রাম, কাঁচা মরিচ-১টি, চিনি-১/২ কাপ বা স্বাদমতো, লবণ-১ চা চামচ, সবুজ ফুড কালার-পছন্দ অনুযায়ী কয়েক ফোঁটা।

যেভাবে করবেন

কাঁচা আম, মরিচ এবং

পানি একত্রে মিশিয়ে বেন্ড করে ছেঁকে নিন। চিনি ও লবণ দিয়ে নেড়ে মিশিয়ে দিন। ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা করুন। ফুড কালার মিশিয়ে পরিবেশন করুন দারুণ স্বাদের টক-মিষ্টি-ঝাল ঝাল কাঁচা আমের জুস।

ফিশ কোপ্তা কারি

যা লাগবে : বড় মাছের পিঠের টুকরা ৪টি, লবণ স্বাদমতো,ম হলুদ গুঁড়া ২/৩ চা চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, ধনিয়া গুঁড়া ১ চা চামচ, জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া ১/২ চা চামচ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, আস্ত কাঁচামরিচ ৬টি, টমেটো কিউব ১টি, মটরশুঁটি ১/৩ কাপ, ধনিয়াপাতা কুচি ৩ টেবিল চামচ, মরিচ কুচি ৩টি, পানি ১.৫ কাপ, ময়দা ২ টেবিল চামচ, আদা+রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ।

যেভাবে করবেন : হাফ কাপ পনিতে সামান্য লবণ+হলুদ মিশিয়ে মাছের টুকরোগুলো সিদ্ধ করে পানি টানিয়ে নিন। কাঁটা বেছে ফেলুন। ২ টেবিল চামচ মিহি কুচি পেঁয়াজ, মরিচ কুচি ও ১ টেবিল চামচ ধনিয়াপাতা কুচি দিয়ে চটকে মেশান। ময়দা দিয়ে মিশিয়ে পছন্দমতো শেপে কোপ্তা বানিয়ে নিন। তেল গরম করে কোপ্তা ছেড়ে লালচে করে ভেজে উঠিয়ে নিন।

এই তেলেই (কিছুটা কমিয়ে নিতে পারেন) পেঁয়াজ কুচি দিয়ে ভাজুন। হালুদ-মরিচ গুঁড়া দিয়ে নেড়ে সামান্য পানি দিন। আদা+রসুন বাটা, ধনিয়া, জিরা, গোলমরিচ গুঁড়া ও লবণ দিয়ে কষান। টমেটো কিউব ও মটরশুঁটি দিয়ে কষিয়ে অবশিষ্ট ১ কাপ পানি দিন। পানি ফুটলে কোপ্তা দিয়ে ঢেকে পাঁচ মিনিট রান্না করুন। আস্ত কাঁচামরিচ ও ধনিয়াপাতা ছড়িয়ে ঢেকে ২ মিনিট পর নামিয়ে নিন। পোলাও বা গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

হালিম

যা লাগবে : হালিম মিক্স-১ প্যাকেট, হাড়সহ মাংস-৫০০ গ্রাম, পিঁয়াজ কুচি-১ কাপ, আদা বাটা-১ চা চামচ, রসুন বাটা-১ চা চামচ, কাঁচা মরিচ-১০টি, ধনিয়াপাতা কুচি-২ টেবিল চামচ, আদা কুচি-২ টেবিল চামচ, শসা কুচি-১/২ কাপ, লেবু (টুকরা করা)-১টি, পানি-পরিমাণমতো, তেল-২/৩ কাপ, ঘি-২ টেবিল চামচ।

যেভাবে করবেন : তেল গরম করে পিঁয়াজ কুচি দিয়ে বেরেস্তা বানান। বেরেস্তা ২/৩ ভাগ উঠিয়ে বাকি বেরেস্তা এবং তেল মাংসে ঢেলে দিন। হালিমের মসলার প্যাকেটের মসলা, আদা ও রসুন বাটা দিন। পরিমাণমতো পানি দিন। মাংস সিদ্ধ করে নিন। এ অবসরে প্যাকেটের হালিম মিক্স ফুটন্ত গরম পানিতে গুলিয়ে ১৫/২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এটা মাংসে ঢেলে দিন। সিদ্ধ হওয়া পর্যন্ত রান্না করুন। ঘি ছড়িয়ে নামিয়ে নিন। লেবুর টুকরা, তুলে রাখা বেরেস্তা, আদা-কাঁচা মরিচ-ধনিয়াপাতা কুচি দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

ডিমের কোর্মা

যা লাগবে : সিদ্ধ ডিম ৬টা, জর্দার রং ১ চিমটি, লবণ স্বাদমতো, পেঁয়াজ কুচি ২ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, আস্ত কাঁচামরিচ ৬টি, টকদই ১/৩ কাপ, দুধ ১ কাপ, আদা+রসুন বাটা ১.৫ চা চামচ, তেজপাতা ২টি, এলাচ ৪টি, দারুচিনি ৩ টুকরা, লবঙ্গ ৪টি, চিনি ১/২ টেবিল চামচ, তেল ১/৩ কাপ।

যেভাবে করবেন : ডিমে সামান্য জর্দার রং ও লবণ মাখিয়ে হালকা করে ভেজে উঠিয়ে রাখুন। ওই তেলেই পেঁয়াজ কুচি দিয়ে ভেজে বেরেস্তা বানিয়ে উঠিয়ে রাখুন। তেজপাতা, এলাচ, দরুনিচনি ও লবঙ্গ দিয়ে নেড়ে পেঁয়াজ বাটা ও আদা+রসুন বাটা দিয়ে কষান। মরিচের গুঁড়া দিন। টকদই ও স্বাদমতো লবণ দিয়ে কষিয়ে দুধ দিন। দুধ ফুটলে ডিম দিন। পছন্দমতো ঝোল টানা পর্যন্ত রান্না করুন। আস্ত কাঁচামরিচ ও চিনি দিয়ে ঢেকে ২/৩ মিনিট রেখে নামিয়ে নিন। পেঁয়াজ বেরেস্তা ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।

চিকেন তেহারি

যা লাগবে : রাইসের জন্য- কালিজিরা চাল ১ কেজি, ফুটন্ত গরম পানি ৫ কাপ, তরল দুধ ১/২ কাপ, তেজপাতা ২টি, এলাচা ৫টি, দারুচিনি ৪ টুকরা, লবঙ্গ ৮টি, লবণ স্বাদমতো, বেরেস্তা ১/২ কাপ, ঘি ২ টেবিল চামচ, তেল ২ টেবিল চামচ, কেওড়া পানি ৮-১০ ফোঁটা।

চিকেনের জন্য- ছোট পিস করা চিকেন ১ কেজি, আদা+রসুন বাটা ৪ টেবিল চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ, জায়ফল+জয়ত্রী গুঁড়া ১ চা চামচ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, তেজপাতা ২টি, এলাচ ৬টি, দারুচিনি ৪-৫ টুকরা, আস্ত গোল মরিচ ১০-১২টি, আস্ত কাঁচামরিচ ৮টি, লবণ স্বাদমতো, পানি ১ কাপ, তেল ১/২ কাপ, টমেটোসস ২ টেবিল চামচ, চিনি ১ চা চামচ, বেলুর রস ১ টেবিল চামচ, টকদই ১/২ কাপ।

যেভাবে করবেন : চিকেন- তেল গরম করে পোঁজ কুচি দিয়ে লালচে করে ভাজুন। তেজপাতা, এলাচা ও দারুচিন দিয়ে নেড়ে একে একে আদা, রসুন বাটা, মরিচ গুঁড়া, জিরা গুঁড়া, জায়ফল, জয়ত্রী গুঁড়া, আস্ত গোলমরিচ ও লবণ দিয়ে কষান। চিকেন দিয়ে ৫-৬ মিনিট কষান। টকদই, লেবুর রস দিয়ে নেড়েচেড়ে মিশিয়ে পানি দিয়ে ঢেকে চিকেন সিদ্ধ হওয়া পর্যন্ত রান্না করুন। টমেটোসস, চিনি ও আস্ত কাঁচামরিচ ছড়িয়ে চিকেন নামিয়ে রাখুন।

রাইস- তেল গরম করে তেজপাতা, এলাচ, দারুচিনি ও লবঙ্গ দিন। ধুয়ে পানি ঝরানো চাল দিন। নেড়েচেড়ে ফুটন্ত গরম পানি, দুধ ও লবণ দিয়ে ঢেকে দিন। চাল ফুটে রাইসের পানি টেনে এলে আগে রান্না করা চিকেন দিয়ে নেড়ে মিশিয়ে দিন। ঘি ও বেরেস্তা ছড়িয়ে ঢেকে পাত্র দমে বসান। ১/২ ঘণ্টা দমে রাখুন। গরম গরম পরিবেশন করুন দারুণ মজাদার চিকেন তেহারি।

আরও খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত