রোজায় সুস্থতায় প্রয়োজন পরিমিত খাবার

  গাজী মুনছুর আজিজ ২২ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রোজাদার দিনের অর্ধেকেরও বেশি সময় না খেয়ে থাকতে হয়। অনেক রোজাদার আবার ইফতারি, রাতের খাবার বা সেহেরির খাবার খান অতিরিক্ত। কেউ কেউ আবার রাতের কিংবা সেহেরির খাবার খান না। ফলে খাবারের এ তারতম্যের জন্য হতে পারে স্বাস্থ্যের নানা সমস্যা। রোজাদারের প্রয়োজন কম বা বেশি নয়, খাবার খাওয়া উচিত পরিমিত। পুষ্টিবিদ আকতারুন্নাহার আলো বলেন, ঐতিহ্যগতভাবেই আমাদের ইফতারের আয়োজনে ভাজাপোড়া বেশি থাকে। আর এ ভাজাপোড়ায় তেলের ব্যবহার বেশি হয়। কিন্তু তেলের খাবারে পেট যেমন খারাপ করতে পারে, তেমনি এতে শরীরের ওজনও বেড়ে যায়। তাই ইফতার, রাতের খাবার বা সেহেরির খাবারে কম তেল ব্যবহার করা স্বাস্থ্যসম্মত। এছাড়া রমজানে বাসি খাবার খাওয়া একদমই ঠিক নয়। অনেকে আবার খাবারে বেশি ঝাল বা অতিরিক্ত মসলার খাবার পছন্দ করেন। কিন্তু বেশি ঝাল বা বেশি মসলার খাবার স্বাস্থ্যের পক্ষে মোটেও ঠিক নয়। সেজন্য প্রয়োজন রমজানে বেশি ঝাল বা বেশি মসলার খাবার একেবারেই ত্যাগ করা। সেই সঙ্গে অতিরিক্ত চিনি খাওয়া কমাতে হবে। অতিরিক্ত চিনি শরীরে অনেক ধরনের ক্ষতি করে,তাই বেশি চিনি না খাওয়ায় ভালো। বাজারে এখন চিনির বিকল্প পণ্য পাওয়া যায়।

বেশি চিনি না খাওয়া ভালো

চলুন জেনে নেওয়া যাক বেশি চিনি খাওয়ার ফলে কী ক্ষতি হতে পারে আপনার।

* অতিরিক্ত চিনি খাওয়ার কারণে লিভারের আকৃতির পরিবর্তনসহ লিভারের কার্যক্ষমতা নষ্ট হয়ে যায় ।

* ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বেড়ে যায়।

* অতিরিক্ত চিনি আপনার রক্ত চলাচলে বাধা তৈরি করতে পারে।

* হতে পারে আলঝেইমারের মতন রোগও।

* খুব দ্রুত আপনার তলপেট, বিবুক ও অন্যান্য জায়গায় ফ্যাট জমতে সাহায্য করে। দৈনিক বেশি বেশি চিনির কারণে খুব দ্রুতই আপনি মোটা হয়ে যেতে পারেন।।

* অতিরিক্ত চিনি খাওয়ার কারণে ত্বকে খুব দ্রুত বলিরেখা পড়তে শুরু করে।

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
bestelectronics

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.