চলো না ঘুরে আসি অজানাতে...

  ফারিন সুমাইয়া ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাঁকা চাঁদের হাসিতে ঈদ আসে বাড়িতে! আর এর সঙ্গে যোগ হয় বাড়তি খাবার দাবারের লম্বা তালিকা। আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে আনাগোনা থেকে শুরু করে নানা ব্যস্ততায় কেটে যায় ঈদের সময়। অন্যদিকে কোরবানির ঈদ মানেই একটু বাড়তি খাওয়া-দাওয়া। খাবার প্লেটে নানা ধরনের মাংসের লোভনীয় পদ আর মিষ্টি জাতীয় খাবারের মেলায় কেটে যায় ঈদের রেশ। তবে ঈদের রেশ কেটে গেলেও এ দৌড়ঝাঁপের পরে দেখা দেয় বিশাল এক মৌনতা। এটি যেন একাকিত্বের রূপে জেঁকে বসে ঘাড়ে। তাই ঈদের পরে কিছুটা সময় নিজের জন্য আর প্রিয় মানুষটিকে নিয়ে একান্তে কিছু সময় কাটাতে অজানা পথে ঘুরতে যাওয়া হতে পারে সবচেয়ে ভালো একটি পন্থা। এক্ষেত্রে ঈদের বাড়তি কাজের চাপে বেশ ক্লান্ত থাকায় খুব দূরে যাওয়া পরিকল্পনা করে থাকলে তা এখনি তালিকা থেকে দূরে সরিয়া রাখুন। কারণ এ সময়ে আপনার বাড়তি ক্লান্তি আপনাকে আনন্দ না দিয়ে উল্টো পথেও হাঁটাতে পারে। তাই খুব কাছে কোথাও অদেখা অচেনা স্পটে ঘুরতে যাওয়ার পরিকল্পনা করে ফেলুন। সে ক্ষেত্রে কাছের কোনো পার্ক কিংবা বিনোদন কেন্দ্রে বিকালের পড়ন্ত রোদে বোটিং করা হতে পারে আপনার জন্য শ্রেয়। অন্যদিকে কোনো মনোরম পরিবেশে বসে গল্প করেও এ সময়টি পার করতে পারেন। এছাড়া যারা বই পড়তে ভালোবাসেন তারা বই কিনতে যেতে পারেন কিংবা লাইব্রেরিতে কাটাতে পারেন একান্ত নিজস্ব কিছু সময়। বন্ধুদের সঙ্গেও কাছাকাছি কোথাও ঘুরতে যেতেই পারেন। এতে শুধু ক্লান্তি ভাব দূর হবে না সঙ্গে সঙ্গে আপনার ঝুলিতে অনেক নতুন নতুন তথ্য জমা হবে।

যদি বাইরে কোথাও ঘুরতে যাওয়া সময় কিংবা কাজের চাপে না হয়ে উঠে তবে খুব ছোট পরিসরে পিকনিক থেকে শুরু করে পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করার একটা পরিকল্পনা করে ফেলতে পারেন। যাদের বাইরে ঘুরতে যেতে খুব একটা পছন্দ না তারা পছন্দের মানুষটিকে নিয়ে কেন্ডেল নাইট ডিনারে যেতে পারেন। এতে নিজেদের মাঝে কিছুটা সময় যেমন কাটানো হবে তেমনি আপনি নিজেকে বেশ প্রফুল্ল অনুভব করবেন। তবে ঘুরতে যাওয়ার আগে অবশ্যই স্থানটি আপনার কর্মস্থল, বাড়ি কিংবা আপনার হাতের কতটা কাছে-পিঠে তা’ যাচাই করে নিন। এটি যেহেতু ছোট্ট একটি ভ্রমণ সেহেতু যাওয়ার আগে ছক কেটে ঠিক কোথায় কোথায় কখন যাবেন তা এঁকে নিন। এতে আপনার সময় একদিকে যেমন বেঁচে যাবে তেমনি আপনি আপনার ভ্রমণের আনন্দ সম্পূর্ণভাবে নিতে পারবেন। অন্যথায় ঘুরতে গিয়ে শেষমেষ সময়ের কারণে পছন্দের জায়গাটিতে না যাওয়ার দুঃখ আপনাকে তাড়া করতে পারে ভ্রমণের পরে পাওয়া ছবিগুলো দেখে।

এছাড়া সময়টি বৃষ্টিময় সেহেতু কাদামাটি কিংবা লম্বা কোথাও লঞ্চ, নৌকা দিয়ে না যাওয়াই ভালো। এছাড়া এই সময়ে পোশাকের ক্ষেত্রে হালকা ধরনের পোশাক হতে পারে আপনার জন্য উপযুক্ত। সেই ক্ষেত্রে ওয়েস্টার্ন, সালোয়ার-কামিজ, কুর্তি, শার্ট, শর্ট প্যান্ট আপনার ভ্রমণের সঙ্গী হতে পারে। আর এদের আপনার সঙ্গে নিতে এখনি সব প্রয়োজনীয় জিনিস ব্যাগ বন্দি করে ফেলুন। এছাড়া যাওয়ার আগে যা যা সঙ্গে নিচ্ছেন তা একটা তালিকা করে দেখে দেখে সঙ্গে নিয়ে নিন। এতে আপনার ভ্রমণের সময় বাড়তি কাজের চাপ যেমন কমবে তেমনি আপনি খুব স্বাছন্দ্যে এবং আনন্দের সঙ্গে আপনার ভ্রমণের স্মৃতি নিজের মাঝে বন্দি করে নিতে পারবেন।

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter