জেনে নিন

আপনি কি হিংসুটে

আপনি খুব হিংসুটে। আপনার সামনে অন্য কারও প্রশংসা হলেই হল, কীভাবে তাকে সবার সামনে আপমান করবেন, তার ফন্দি আঁটতে থাকেন। প্রয়োজন পড়লে কোনো বস্তু বা মানুষের ক্ষতি করতেও পিছপা হন না। অন্যের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে বেশি দিন ভালো থাকা যায় না

  যুগান্তর ডেস্ক    ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

হিংসা তখনই ভালো, যখন তা আপনাকে উন্নত করতে সাহায্য করে। হিংসার বশে কারও ক্ষতি করার মানসিকতা থাকলে তা দ্রুত পাল্টে ফেলাই ভালো।

১। একটি কাজে সহকর্মী বসের প্রশংসা পেয়েছেন। অথচ আপনি প্রশংসা পাননি। সে ক্ষেত্রে আপনি-

(ক) প্রশংসা পাওয়ার মতো কাজ করেছেন বলেই বস তার প্রশংসা করেছেন তাই তাকে দেখে শেখার চেষ্টা করবেন।

(খ) বস বড্ড একচোখা।

(গ) সহকর্মী কবে, কোন কাজে ফাঁকি দিয়েছিলেন, সেই কাহিনী শুনিয়ে বসের কান ভারী করার চেষ্টা করবেন।

২। আপনার ভাই তার স্ত্রীকে একটি দামি লিপস্টিক কিনে দিয়েছেন। আপনার ভাইয়ের কাছে চাইলে তিনি বলেছেন এখন তার পক্ষে দেয়া সম্ভব নয়। আপনি-

(ক) পরের মাসে কিনে দিতে বলবেন।

(খ) সামান্য একটা লিপস্টিকই তো। দরকার হলে স্ত্রীর কাছ থেকে চেয়ে নেবেন।

(গ) স্ত্রীর কাছ থেকে লিপস্টিকটা লাগাতে গিয়ে ইচ্ছা করে ভেঙে ফেলবেন।

৩। শাশুড়ি জন্মদিন উপলক্ষে জা-কে একটি চেইন উপহার দিয়েছেন। অথচ আপনাকে আংটি দিয়েছিলেন। আপনি-

(ক) শাশুড়ির কোনো কথাই ছাড় দেবেন না।

(খ) একটু খারাপ লাগবে ঠিকই। তবে অতটাও গায়ে মাখাবেন না।

(গ) শাশুড়ি কী দিচ্ছেন সেটা বড় কথা নয়। উপহার তো উপহারই।

৪। জা এবং আপনি দু’জন দুটি রান্না করেছেন। শাশুড়ি জা’র রান্নাই বেশি প্রশংসা করেছেন। আপনি-

(ক) জা’র রান্নায় লবণ মিশিয়ে বদলা নেবেন।

(খ) শাশুড়িকে জিজ্ঞেস করে মসলাপাতি মিশিয়ে রান্নাটা ঠিক করে নেবেন।

(গ) তাতে কী! জা-কে আপনি আপন মানুষ ভাবেন।

৫। আপনার এবং আপনার বান্ধবীর একই ছেলেকে পছন্দ। আপনি জানেন ছেলেটি আপনার বান্ধবীকেই পছন্দ করেন। আপনি-

(ক) বান্ধবী প্রোপজ করার আগেই আপনি তাকে প্রোপজ করে ফেলবেন।

(খ) ছেলেটির কাছে গিয়ে বান্ধবীর নামে প্রচুর নিন্দা করবেন।

(গ) খারাপ লাগবে। তবে তাদের মাঝখানে থাকার চেষ্টা করবেন না।

১। (ক)১০ ২। (ক)১৫ ৩। (ক)৫ ৪। (ক)৫ ৫। (ক)৫

(খ)১৫ (খ)১০ (খ)১০ (খ)১০ (খ)১৫

(গ)৫ (গ)৫ (গ)১৫ (গ)১৫ (গ)১০

(২৫-৩৫) নাম্বার :- আপনার মনে হিংসার লেশমাত্র নেই। অন্য কেউ উন্নতি করলে আপনি সেটা দেখে শেখার চেষ্টা করেন। অন্যের ক্ষতি করে ওপরে ওঠার মতো মানসিকতা আপনার নেই। আপনার মতো মানুষ আজকাল খুব একটা দেখা যায় না। এ মানসিকতা বজায় রাখার চেষ্টা করুন।

(৪০-৫৫) নাম্বার : আপনার সামনে অন্যের গুণগান গাওয়া হলে আপনার যে রাগ হয় না, তা নয়। তবে আপনি জানেন আপনারও এমন গুণ রয়েছে যা প্রশংসার দাবি রাখে। সেগুলোই তুলে ধরার চেষ্টা করেন। তবে খেয়াল রাখবেন অন্য কেউ যেন তাতে ছোট না হয়।

(৬০-৭৫) নাম্বার : আপনি খুব হিংসুটে। আপনার সামনে অন্য কারও প্রশংসা হলেই হল, কীভাবে তাকে সবার সামনে আপমান করবেন, তার ফন্দি আঁটতে থাকেন। প্রয়োজন পড়লে কোনো বস্তু বা মানুষের ক্ষতি করতেও পিছপা হন না। অন্যের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে বেশি দিন ভালো থাকা যায় না। এটা মনে রাখবেন। গ্রন্থনা : এনামুল হক বসির

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.