অফিসেও ফিটফাট

প্রকাশ : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  গাজী মুনছুর আজিজ

অফিসে তো রোজই ফরমাল শার্ট পরে যেতে হয় বা যান। তো একদিন ক্যাজুয়াল শার্ট পড়লে কেমন হয় বা পড়ে দেখবেন কী? আসলে এক ঘেয়েমি কোনো কিছুই তো সুখকর নয়। যেমন রুচি বদলাতে মাঝেমধ্যে ভিন্ন স্বাদের খাবার খেয়ে থাকি। আবার হাওয়া বদল করতে যাই দূরে কোথাও ঘুরতে। তো পোশাকের বেলাতেও কেন এমনটা ভাবছেন না? ফ্যাশন ডিজাইনাররাও মনে করেন, এক ঘেয়েমি কাটাতে বা নিজের আউটফিটে ভিন্ন মেজাজ আনতে মাঝে মধ্যে পোশাকের পরিবর্তন আনা যেতে পারে। বিশেষ করে যারা নিয়মিত অফিস করেন বা কর্পোরেট চাকরি করেন, তাদের বেলায় এটা হলে মন্দ হয় না। সেটা হতে পারে সপ্তাহের নিদিষ্ট কোনো দিন বা মাসের কোনো কোনো দিন, কিংবা মাঝে মধ্যে।

গ্রামীণ উইনিক্লোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হক বলেন, সাধারণত সবাই অফিসে ফরমাল ফুলহাতা শার্ট পরে যান। যার রঙ-চঙেও থাকে হালকা মেজাজ। তো সেখানে পরিবর্তন আনতে সপ্তাহের নির্দিষ্ট কোনো দিন বা মাসের কোনো কোনো দিন কিংবা মাঝে মধ্যে ক্যাজুয়াল শার্ট পরে যতে পারেন। সেটা হতে পারে ফুলশার্ট বা হাফশার্ট। হতে পারে গাঢ় রঙের বা হালকা রঙের। আর এতে অন্যদের কাছে নিজের আউটলুক যেমন পরিবর্তন দেখাবে, তেমনি কাটবে প্রতিদিনকার এক ঘেয়েমি। আবার নিজের মেজাজেও আসবে ভালোলাগা। তবে এ ক্ষেত্রেও শার্টের রঙ বা নকশার প্রতি বিশেষ খেয়াল দিতে হবে। কারণ, ফরমালের বদলে ক্যাজুয়াল পড়তে গিয়ে এমন

কিছু গায়ে ওঠানো যাবে না, যেটা নিজের ব্যক্তিত্বের সঙ্গে বেমানান।

ফ্যাশন ডিজাইনার রাকিব হোসাইন বলেন, অফিসে ফরমালের জায়গায় ক্যাজুয়াল শার্ট পরা যেতেই পারে। এ ক্ষেত্রে ক্যাজুয়াল শার্টটি হতে হবে মানানসই। বাজারে নানা ধরনের ক্যাজুয়াল ফুলহাতা বা হাফহাতা শার্ট মিলবে। তবে অফিসে পরে যাওয়ার জন্য বেশি উপযোগী হালকা রঙের, অল্প নকশার শার্ট। কাপড়টা সুতি বা আরামদায়ক হলেই ভালো। ফলে ক্যাজুয়াল হলেও এতে মিলবে ফরমালের ফর্মালিটি এবং নিজের প্রশান্তি।

বসুন্ধরা সিটির একটি হাউস থেকে নিজের জন্য ফুলহাতা একটা ক্যাজুয়াল শার্ট কিনেছেন বেসরকারি চাকরিজীবী আবদুল্লাহ আল মামুন। তিনি বলেন, অফিসে ফরমাল শার্টই রোজ পরি। তবে মাঝেমধ্যে একটু পরিবর্তন আনতে ক্যাজুয়াল শার্টও পরি। এতে এক ধরনের প্রশান্তি মিলে। তবে এ শার্টের রঙ ও নকশা ব্যক্তিত্বের সঙ্গে বাঞ্ছনীয় হওয়া উচিত।

বাজারে বিভিন্ন ফ্যাশন ব্র্যান্ডের নানা নকশার ক্যাজুয়াল শার্ট আছে। কিনতে আসতে পারেন আড়ং, দেশিদশ, লা রিভ, ক্যাটস আই, মেনজক্লাব, ওয়েস্টিন, টেক্সমার্ট, জেন্টেল পার্ক, ইনফিনিটি, স্মার্টেক্স, আর্টিজ্যানসহ বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে। এছাড়া যমুনা ফিউচার পার্ক, বসুন্ধরা সিটি, নিউ এফিফ্যান্ট রোড, নিউ মার্কেট, শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটসহ বিভিন্ন মার্কেটেও মিলবে এ সময়ের আবহাওয়া উপযোগী ফুলহাতা বা হাফহাতার ক্যাজুয়াল শার্ট। দাম ১ হাজার ২৫০ থেকে ২ হাজার ৮০০ টাকা।