প্রয়োজন পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ

  সাইফুল ইসলাম খান ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রয়োজন পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আফরোজা হোসেন যুগান্তরকে বলেন, ছোট-বড়দের মধ্যে পারস্পরিক যে শ্রদ্ধাবোধ থাকার কথা সেটা এখন নেই। একে অপরকে আঘাত করা আমাদের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে।

নেতিবাচক শব্দের ব্যবহার বেড়েছে। কথাবার্তার মধ্যে আছে টোন এবং ভাষা। এই টোন এবং ভাষা কী বার্তা দিচ্ছে সেটা যাচাই করবেন এবং তার অনুভূতির পরিপ্রেক্ষিতে আপনি আচরণ করবেন। যোগাযোগের ক্ষেত্রে যে ভাষাগুলো আপনাকে ইতিবাচক ফলাফল এনে দেবে সে ভাষাগুলোর প্রয়োগ বাড়াতে হবে।

একজন ছাত্র যেন কখনোই মনে না করে যে, শিক্ষক হচ্ছেন ক্ষমতাশালী। তিনি যা খুশি তাই করতে পারেন। অবশ্য আমরা শিক্ষকরা ক্ষমতা অনেক সময়ই দেখাই। নিয়ম পালন করার বেলায় আমি বলব, শিক্ষকেরও বুঝতে হবে, ছাত্রছাত্রীদেরও গ্রহণ করার মানসিকতা থাকতে হবে। এখন সেই জায়গাটা নেই কেন?

পরীক্ষায় নকল করা আমাদের দেশে নতুন নয়। এ নকল করার প্রবণতা কেন দূর করা যাচ্ছে না? কারণ ভয়াবহ পরীক্ষাকেন্দ্রিক মানসিকতা। পরীক্ষার জন্য আমি আমার জীবন দিয়ে দিতে পারি, সবকিছু করতে পারি। যে প্রতিযোগিতা হওয়ার কথা ছিল আনন্দময়, সেটা হয়ে গেছে অসুস্থ প্রতিযোগিতা।

একজন ছাত্র দেখে কেন লিখবে? তাকে আমি কীভাবে উদ্বুদ্ধ করব, তুমি দেখে না লিখলেও সব পারবে। এ শেখানোর জায়গায় শিক্ষক-অভিভাবক কেউ কাজ করেন না। পরিবার ভালোবাসা, আদর স্নেহ সবই দেয়। কিন্তু তোমাকে এটা করলে ওটা দেব, ওটা করলে এটা হবে- এ জিনিসটা কমাতে হবে।

পরীক্ষার খাতায় যদি আমি লিখতে পারি তাহলে আমার জীবনের সবকিছু ধন্য হয়ে গেল। এ প্রবণতার কারণে ছাত্ররা জীবন থেকে কী শিখল সেটাই জানে না। শেষ কথায় বলব, পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধটা জরুরি। শ্রদ্ধা রেখে আপনি পজেটিভ কথা বলবেন দেখবেন অনেক সময় কঠিন মুশকিল আহসান হয়ে যায়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×