আইপিএল জুয়ায় ভাসছে রাজশাহী

টাকার অভাবে কেউ কেউ মোবাইল

  ফোন, ল্যাপটপ, মোটরসাইকেল, স্ত্রীর সোনার গয়নাসহ নানা দামি জিনিস বন্ধক রেখেও যাচ্ছেন ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী ব্যুরো

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) নিয়ে সারা দেশে চলছে উন্মাদনা। চলছে জুয়ার আসর। রাজশাহীও এর ব্যতিক্রম নয়। আইপিএল শুরু হওয়ার পর থেকে শুরু হয়েছে রমরমা জুয়ার আসর। অভিযোগ রয়েছে, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তারা এ ব্যাপারে জানলেও কোনোরকম বাধা ছাড়াই চলছে জুয়া। নগরীর অন্তত অর্ধশতাধিক পয়েন্টে চলছে জুয়ার আসর। মাদকদ্রব্যের মতোই কিশোর থেকে শুরু করে নানা বয়সী মানুষ জুয়ায় হয়ে পড়েছেন আসক্ত। ফলে আইপিএল জুয়ায় ভাসছে পুরো রাজশাহী। প্রতিরাতে জুয়ায় কোটি টাকা লেনদেন হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, রাজশাহী নগরীর বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি কলেজের শিক্ষক, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কয়েকজন চিকিৎসক ও শিক্ষার্থী, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ও রুয়েটের শিক্ষার্থী, ভ্যানচালক, দিনমজুর, হোটেল কর্মচারী থেকে শুরু করে নানা শ্রেণী ও পেশার মানুষ জড়িয়ে পড়ছেন জুয়ায়।

বিভিন্ন মার্কেটের বিশেষ কিছু কক্ষে এ জুয়ার আসর বসে। তবে ডিজিটাল পদ্ধতিতে মোবাইল ফোনে ইন্টারনেটের মাধ্যমে জুয়া নিয়ন্ত্রিত হওয়ার কারণে জুয়াড়িদের এসব আসরে আসতে হয় না। অভিযোগ রয়েছে, পুলিশ প্রতিটি স্পট থেকে আদায় করছে নির্দিষ্ট পরিমাণ ‘বখরা’। ফলে এসব জুয়ার আসরে কোনো ধরনের নিরাপত্তাজনিত সমস্যার মধ্যে পড়ছে না জুয়া পরিচালনাকারীরা।

নগরীর লক্ষ্মীপুরে লিটন, তুষার ও মুন্না নামের তিন যুবক জুয়ার আসর বসায়। এ আসরেও প্রতিদিন শতাধিক ব্যক্তি জুয়ায় অংশ নিচ্ছে। লেনদেন হচ্ছে কয়েক লাখ টাকা। এখানেও মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জুয়ার আসর পরিচালনা করা হয়। এর পাশেই নগরীর দাসপুকুর এলাকায় সালু নামের এক ব্যক্তি জুয়ার আসর পরিচালনা করে। আর আলুকে সহযোগিতা করে সোহেল নামের আরেক ব্যক্তি। এ আসরেই ২০১৭ সালের ২২ সেপ্টেম্বর জুয়ার কোটি টাকা লেনদেনকে কেন্দ্র করে খুন হন নগরীর উপকণ্ঠ কাশিয়াডাঙ্গা এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী সাহাবুল ইসলাম।

এছাড়া নগরীর শালবাগান এলাকাতেও বসে জুয়ার বোর্ড। ওই এলাকার কমল এবং সুমন নামের দুই ব্যক্তি প্রতিদিন সন্ধ্যার পর জুয়ার আসর বসাচ্ছে। তাদের সঙ্গে রয়েছে আরও অন্তত ১০ জন। আইপিএলে কোন দল জিতবে, কোন দল কত রানে জিতবে বা হারবে, কত রান করবে এসব নানা বিষয়ে বাজি ধরতে মিডিয়া হয়ে কাজ করছে কমল ও সুমনসহ তাদের সহযোগীরা। অন্যরা তাদের কাছ থেকে দর জেনে বাজিতে টাকা লাগাচ্ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক জুয়াড়ি জানান, রাজশাহী নগরীর বিভিন্ন স্থানে সব মিলিয়ে অর্ধশত পয়েন্টে আইপিএলকে কেন্দ্র করে জুয়ার আসর বসছে। টাকা হেরে অনেকে নিজের সহায়-সম্বল হারিয়ে পথে বসছেন। টাকার অভাবে কেউ কেউ দামি মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ, মোটরসাইকেল, স্ত্রীর সোনার গয়নাসহ নানা দামি জিনিস বন্ধক রেখেও যাচ্ছেন।

নগরীর শালবাগান এলাকার একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। এ এলাকায় জুয়ার টাকার জোগান দিতে কয়েকজন সুদ ব্যবসায়ীও রয়েছেন। তাদের কাছ থেকে সুদে টাকা নিয়ে জুয়াড়িরা জুয়ার আসরে জমা দিচ্ছে। এসব সুদের টাকাও দেয়া হচ্ছে উচ্চ হারে। এর বাইরে নগরীর সাহেববাজার, শিরোইল বাসটার্মিনাল, বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী কাজলা ও বিনোদপুর এবং কাশিয়াডাঙ্গায় বসছে জুয়ার আসর। এছাড়া অন্য পয়েন্টগুলোতেও চলছে রমরমা জুয়া। এসব আসর থেকে স্থানীয় থানা পুলিশ নিয়মিত অর্থ আদায় করছে বলেও জানিয়েছেন জুয়া সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র উপ-কমিশনার ইফতেখায়ের আলম বলেন, আইপিএলের নামে নগরীতে জুয়া বা বাজি চলছে বলে শুনেছি। তবে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ কিংবা প্রমাণ পাওয়া যায়নি। পুলিশ বিষয়টি নজরে রেখেছে। তবে খেলাকে কেন্দ্র করে পুলিশের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে সেটি আমার জানা নেই। তবে কারও বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে পুলিশ অবশ্যই ব্যবস্থা নেবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×