বগুড়ায় জুয়ার মহোৎসব

  মো. নাজমুল হুদা নাসিম ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ক্রিকেট খেলা নিয়ে বগুড়ায় জুয়ার মহোৎসব চলছে। জেলার বিভিন্ন স্থানে সেলুন, হোটেল, রেস্তোরাঁ, ক্লাব ও ঘরে জুয়ার আসর বসছে। বিভিন্ন বয়সের মানুষ বিশেষ করে তরুণদের আসক্তি বেশি। শেরপুর উপজেলায় ৯ জনকে গ্রেফতার করার পর প্রকাশ্যে এ জুয়া কমলেও এখন মোবাইল ফোনে জমজমাট হয়ে উঠেছে। বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) সনাতন চক্রবর্তী জানান, খুব গোপনে ও কৌশলে এ জুয়া চলায় জড়িতদের গ্রেফতার করা খুব কঠিন। তারপরও তারা এ ব্যাপারে ব্যাপক তৎপর রয়েছেন।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, বগুড়ায় শুধু আইপিএল ক্রিকেট লিগ নয়; আন্তর্জাতিক ওয়ানডে, টেস্ট, টি-২০, বিপিএল, বিশ্বকাপ আসর, এমনকি দেশ-বিদেশের ঘরোয়া লিগেও জুয়ার প্রচলন শুরু হয়। কোন দল জিতবে, কোন খেলোয়াড় কত রান করবে, কোন বোলার ক’টা উইকেট নিবে, এ বলে উইকেট পড়বে কী না, এ বলে ৪ না ৬ রান হবে এমন অনেক বিষয় নিয়ে বাজি (জুয়া) ধরা হয়। এ জুয়ার খেলোয়ারদের দু’ভাগে ভাগ করা হয়। প্রথমত যারা একসঙ্গে কোনো দোকান, সেলুন, হোটেল বা ঘরে বসে জুয়া খেলে। এরা বাজি বা জুয়ার টাকা নগদ পরিশোধ করে। আর দ্বিতীয়ত যারা বাড়ি, অফিস বা অন্যত্র বসে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরিচিতদের সঙ্গে বাজি বা জুয়া খেলে। এ জুয়ার টাকা লেনদেন হয় বিকাশ ও অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে। প্রথম ধরনের জুয়া ২০ টাকা থেকে দুই হাজার টাকা এবং দ্বিতীয় জুয়া ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত চলে। বিভিন্ন পেশার মানুষ এ জুয়ায় আসক্ত হয়ে পড়ছে। তবে শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী বেশি। লোভের বশবর্তী হয়ে দিনমজুর ও রিকশা চালকরাও জুয়া খেলছেন। এদের কেউ কেউ বাড়ির জিনিসপত্র বিক্রি ও সুদে ঋণ নিয়ে জুয়ায় অংশ নিয়ে সর্বস্বান্ত হচ্ছেন। খেলা শুরুর আগেই জুয়াড়িরা টেলিভিশনের সামনে বসে পড়েন। সবার হাতে হাতে থাকে মোবাইল ফোন।

এ জুয়ার কারণে আত্মাহুতি দেয়ার ঘটনাও ঘটেছে। বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার নিজবলাইল গ্রামের চান্দু প্রামানিকের ছেলে ও বলাইল উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী শিহাব প্রামানিক গত বছর ২২ এপ্রিল রাতে বন্ধুদের সঙ্গে আইপিএল জুয়ায় হেরে যায়। লজ্জা ও অপমানে পরদিন সকালে নিজ শয়ন ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। এ নিয়ে জেলায় ব্যাপক তোলপাড় হয়েছিল। সারিয়াকান্দি থানার তৎকালীন ওসি সিরাজুল ইসলাম এর সত্যতা নিশ্চিত করেছিলেন। শেরপুর উপজেলায় জুয়ায় হেরে ছুরিকাঘাতের ঘটনাও ঘটে।

ইন্সপেক্টর পদমর্যাদার এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, ৫ এপ্রিল আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্স ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরের মধ্যে উত্তেজনাপূর্ণ খেলা অনুষ্ঠিত হয়। অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেল শেষ ১৬ বলের মধ্যে ১৩ বলে ৫৩ রান করে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে বিজয়ী করেন। এ জয়-পরাজয় নিয়ে লাখ লাখ টাকার জুয়া চলে। বগুড়ার শেরপুর থানার ওসি হুমায়ুন কবীর জানান, আইপিএল জুয়া শুধু বগুড়ায় নয়; পুরো দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এ জুয়াতে তরুণ ও যুবকরা বেশি ঝুঁকে পড়েছেন। তিনি তার শ্বশুরবাড়ি নিলফামারীতে গিয়েও এ জুয়া দেখেছেন। ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, এ জুয়ায় অংশগ্রহণকারীদের শনাক্ত করা খুব কঠিন। এরপরও সতর্ক করতে ২ এপ্রিল ৯ জুয়াড়িকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পরে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়। থানার সব কর্মকর্তাকে জুয়াড়ি দেখামাত্র গ্রেফতারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×