বিশেষজ্ঞরা যা বললেন: সচেতনতামূলক কর্মসূচির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে

প্রকাশ : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

রৌনক জাহান
সচিব, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়

সম্প্রতি সৌদি আরব থেকে গৃহকর্মী কাজে নিয়োজিত যে নারীরা নির্যাতনের শিকার হয়ে ফিরে এসেছেন তাদের পুনর্বাসনের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। এ ছাড়া অভিবাসনের ক্ষেত্রে যে দালালচক্র সক্রিয় তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের ব্যবস্থা নিলে অভিবাসীদের ঝুঁকি কমে আসবে।

বিদেশ গিয়ে কাজ করতে যিনি সক্ষম, দক্ষ ও পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাওয়াতে সক্ষম এমন নারী কর্মীদেরকেই পাঠানো হবে। এজন্য প্রত্যেক জেলা, উপজেলায় সচেতনতামূলক কর্মসূচির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এতে জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন পর্যায়ের সবাইকে সম্পৃক্ত করা হবে। তারা সঠিক তথ্যের মাধ্যমে নিজ নিজ এলাকার নারী-পুরুষকে সচেতন করবেন।

তবে যারা সঠিক তথ্য শুনতে, জানতে চান না, তাদের শোনানো এবং জানানোর কাজটি খুবই কঠিন। জেলাম উপজেলা, ইউনিয়ন পর্যায়ের চেয়ারম্যানদের জানানো হয়েছে, তারা যেন খোঁজখবর রাখেন, তাদের এলাকার নারী কর্মীরা কার মাধ্যমে, কেন বিদেশে যাচ্ছেন। বিনামূল্যে তাদের আবাসিক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আরেকটি বিষয়কে গুরুত্ব দিতে হবে তারা যেন প্রশিক্ষণ ফাঁকি দিতে না পারে। প্রশিক্ষণ ফাঁকি দিলে তারা নিজেকেই ফাঁকি দিবে। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাদের মানসিকভাবেও তৈরি করতে হবে।

একজন কর্মী দুটো অ্যাকাউন্ট খুলবেন। একটি নিজের নামে, দ্বিতীয়টি পরিবারের নামে। নিজ অ্যাকাউন্টে ৬০ শতাংশ টাকা পাঠাবেন। পরিবারের অ্যাকাউন্টে বাকি টাকা পাঠাবেন। বৈধভাবে যারা যায়, যে এজেন্সির মাধ্যমে যাবে সেই এজেন্সির জবাবদিহিতার ব্যবস্থা থাকবে।

আমাদেরও জবাবদিহিতার ব্যবস্থা থাকবে। কিন্তু যারা অবৈধভাবে যাচ্ছেন তাদের জন্যও আমাদের জবাবদিহিতার ব্যবস্থা করতে হয়। এতে তাদের চাকরির বাজার নষ্ট হচ্ছে। এ জন্য তাদের গুণগত প্রশিক্ষণ, ভাষাগত শিক্ষা, আচরণগত শিক্ষা দিয়ে বিদেশের চাকরিতে পাঠাতে হবে। অভিবাসন প্রক্রিয়াকে গুণগত দিক থেকে উন্নত করতে আমাদের সবাইকে একত্রে কাজ করতে হবে।