জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়: শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের প্রতিরোধে র‌্যাগিংয়ের তীব্রতা কমেছে

  রাহুল এম ইউসুফ, জাবি ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

র‌্যাগিং

এক সময় র‌্যাগিংয়ের তীর্থস্থান ছিল জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। সম্প্রতি শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের প্রতিরোধে র‌্যাগিংয়ের তীব্রতা কমেছে বলছেন সংশ্লিষ্টরা।

জানা যায়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই জায়গায় নবীন শিক্ষার্থীদের শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা (র‌্যাগিং) হয়। একটি বিভাগে অপরটি আবাসিক হলে। আবাসিক হলগুলোতে র‌্যাগিংয়ের ঘটনা বেশি ঘটে। তবে ছেলেদের তুলনায় মেয়েদের হলগুলোতে র‌্যাগিংয়ের তীব্রতা বরাবরই কম ছিল। এ ক্যাম্পাসে যেটুকু র‌্যাগিং বিদ্যমান তার সিংহভাগ অস্তিত্ব টিকে আছে ছেলেদের হলগুলোতে।

মূলত নবীন শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসের ম্যানার (আচার-ব্যবহার) ও স্মার্টনেস (চালাক-চতুর) শেখানোর নামে সিনিয়রা তাদের নানা দিক-নির্দেশনা দেয়। নির্দেশনার ব্যত্যয় ঘটলেই নেমে আসে শাস্তি। এই শাস্তি অনেক ধরনের। যেমন : ব্যাঙের মতো হয়ে বসে থাকা, মুরগি হওয়া, এক পায়ের ওপর ভর দিয়ে দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকা, দেওয়ালে ঝুলে থাকা, কান ধরে উঠ-বস করা, শেখান অশালীন ভঙ্গি ইত্যাদি। আবার কখনও চড়-থাপ্পড় থেকে শুরু করে নানাভাবে শারীরিক নির্যাতনও করা হয়।

এ বছর র‌্যাগিংয়ের সময় সিনিয়রের থাপ্পড়ে দুই নবীন শিক্ষার্থীর কান ফেটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বছর কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মিজানুর রহমান নামের এক নবীন শিক্ষার্থী র‌্যাগিংয়ের শিকার হয়ে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন।

তবে শিক্ষার্থী ও হল সংশ্লিষ্ট শিক্ষকরা বলছেন, সম্প্রতি র‌্যাগিংয়ের বিরুদ্ধে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা সোচ্চার প্রতিবাদ জানালে র‌্যাগিংয়ের মাত্রা কমতে শুরু করে। তাছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন র‌্যাগিংয়ের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি গ্রহণ করে। এ বছর নবীন শিক্ষার্থী ভর্তির পর রাত ১০টা থেকে ভোর পর্যন্ত হলের গণরুম পাহারা দিয়েছেন আবাসিক শিক্ষকরা। অপরদিকে শিক্ষকদের সংগঠনসমূহ ও বামপন্থী ছাত্র সংগঠনগুলো র‌্যাগিংয়ের বিরুদ্ধে নানা কর্মসূচি পালন করে আসছে। এ বিষয়ে প্রভোস্ট কমিটির সভাপতি অধ্যাপক বশির আহমেদ বলেন, ‘র‌্যাগিং যেহেতু দীর্ঘদিনের অপসংস্কৃতি তাই এটি নির্মূল করা সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। তবে সাম্প্রতিক সময়ে প্রশাসনের গৃহীত পদক্ষেপ অনেকাংশ র‌্যাগিং কমাতে সক্ষম হয়েছে।’

ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জুয়েল রানা বলেন, ‘আমরা গেস্টরুম সংস্কৃতি দূর করার জন্য কাজ করছি। পাশাপাশি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের র‌্যাগিং বিষয়ে ব্যাপক হুশিয়ারি দেয়া হয়েছে। তবে ছাত্র ইউনিয়নের জাবি সংসদের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম অনিক বলছেন, ‘এখানে র‌্যাগিংয়ের তীব্রতা কমলেও রূপ পাল্টিয়ে র‌্যাগিং চলমান রয়েছে। কিছু শিক্ষক আন্তরিকভাবে র‌্যাগিং দূর করতে চান। কিন্তু র‌্যাগিং দূর করতে প্রশাসনের কার্যকর পদক্ষেপের অভাব লক্ষণীয়।’

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×