ফেসবুক ব্যবহারকারীদের সচেতন হতে হবে

  ২৯ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ফেসবুকে গুজব ছড়িয়ে সহিংসতা নিয়ে ডাক টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার যুগান্তরকে বলেন, ফেসবুক আসার কারণে যে গুজব তৈরি হচ্ছে বিষয়টা সেরকম নয়, বরং গুজব আগেও ছিল এখনও আছে।

ফেসবুকে দোষের কিছু দেখি না তবে এটা যেমন ঠিক যে ফেসবুকের কারণে গুজব ছড়ানো সহজ হচ্ছে, ঠিক তেমনই গুজব প্রতিরোধেও ফেসবুকেরই ভূমিকা আছে। গুজবকে চিহ্নিত করা যায় ফেসবুকের মাধ্যমেই। কোনো দুষ্কৃতকারী চক্র একটি পোস্টে গুজব ছড়ানোর পর শিক্ষিত সমাজের লোকজন ও সেটি বুঝে বা না বুঝে শেয়ার করতে দেখা যায়। এতে গুজবটা আরও বেশি পরিমাণে ছড়ায় এবং সাধারণ মানুষের কাছে বিশ্বাসযোগ্য হয়ে ওঠে। আসলে ব্যবহারকারীদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি হলেই গুজব ছড়াতে পারবে না দুষ্কৃতকারীরা। পাঠকের উচিত কোনো পোস্ট শেয়ার করার আগে চিন্তাভাবনা করে শেয়ার করা।

মোস্তাফা জব্বার আরও বলেন, শুধু ফেসবুক থেকে গুজব ছড়ায় এটাও ঠিক নয়, কিছু কিছু সংবাদমাধ্যমও ব্রেকিং নিউজ দিতে গিয়ে গুজবের অংশীদার হয়। যেমন- কয়েক দিন আগে ধানমণ্ডির সংসদ সংদস্য শেখ ফজলে নূর তাপসকে যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়েছে এ খবর নিউজ পোর্টালগুলোতে দেখা যায়। সবার ব্রেকিং নিউজ দেয়ার এ প্রতিযোগিতার কারণেও অনেক সময় ভুল তথ্য পরিবেশিত হয়। আইন করে, ফেসবুকের বিভিন্ন পেজ বা গ্রুপ বন্ধ করে গুজব বন্ধের চেয়ে মানুষের সচেতনতা আর দায়িত্বশীলতাই এটি রুখতে পারে, যোগ করেন মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত