মৌলভীবাজারে ভাঙা রাস্তায় অবর্ণনীয় দুর্ভোগ

প্রকাশ : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

পর্যটন নগরী মৌলভীবাজারের ভাঙা রাস্তায় অবর্ণনীয় দুর্ভোগের স্বীকার হচ্ছেন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত এমনকি বিদেশ থেকেও বেড়াতে আশা পর্যটকরা। ভাঙা রাস্তার কারণে তাদের গুনতে হচ্ছে অধিক ভাড়াও। পাশাপাশি নষ্ট হচ্ছে অতিরিক্ত সময়। ১ ঘণ্টার রাস্তায় সময় লাগছে দেড় থেকে দুই ঘণ্টা। যার কারণে দর্শনার্থীরা সহজে জেলার পর্যটন স্পটগুলো ঘুরে দেখতে পারছেন না। অনেকেই একটি স্পটে গেলে অন্যটিতে যাওয়ার ইচ্ছা করছেন না। স্থানীয়দের অভিযোগ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ রাস্তা মেরামতের জন্য কোনো গুরুত্বই দিচ্ছে না।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মৌলভীবাজার শহর থেকে বড়লেখার মাধবকুণ্ড জলপ্রবাতে যেতে হলে কুলাউড়া, জুড়ী ও বড়লেখা আঞ্চলিক মহাসড়ক দিয়ে যেতে হয়। কিন্তু এ পুরো রাস্তাটাই গর্তে ও খানাখন্দকে ভরা। রাজনগরের টেংরাবাজার থেকে রিপিয়ারিংয়ের কাজ চলছে এবং কুলাউড়া থেকে জুড়ী/বড়লেখা অংশের একাধিক জায়গায় পিচ উঠে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টি দিলেই গর্তে ৪/৫ দিন পর্যন্ত পানি জমে থাকে। এদিকে মৌলভীবাজার থেকে কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান, মাধবপুর লেইকসহ অন্যান্য পর্যটন স্পটে যাওয়ার একমাত্র রাস্তা মৌলভীবাজার-শমসেরনগর আঞ্চলিক মহাসড়ক। কিন্তু এ রাস্তাটির বেহাল অবস্থা। সড়কটি প্রায় যোগাযোগের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এছাড়াও জেলার মৌলভীবাজার-শ্রীমঙ্গল ও মৌলভীবাজার-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়কের একাধিক স্থানেও গর্ত ও ভাঙার সৃষ্টি হয়েছে। যার কারণে অন্যান্য বছরের ন্যায় এবার পর্যটকরা আসতে আগ্রহ প্রকাশ করছেন না।

বিষয়টি নিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বেড়াতে আশা একাধিক পর্যটকদের সঙ্গে কথা হলে তারা বলেন, যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হলে পর্যটকদের উপস্থিতি বাড়বে দ্বিগুণ হারে।

মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপদ বিভাগ জানায়, তাদের অধিনস্থ ৪টি রাস্তা মেরামতের জন্য একনেক অনুমোদন দিয়েছে। এখন টেন্ডার আহ্বান করে কাজ শুরু হবে। অন্যান্য রাস্তাগুলো মেরামতের জন্য চেষ্টা চলছে।