গরিব

  শামীম খান যুবরাজ ১৫ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

অনৈতিক আচরণ শুনে শাশুড়ির মুখের দিকে তাকিয়ে থাকল জোনাকি। থ বনে গেলেন মেয়ের বাড়ি বেড়াতে আসা জোনাকির মা। আঠারোটি বছর বড় আদর-যত্নে মানুষ করেছেন তার একমাত্র মেয়ে জোনাকিকে। সংসারের শত অভাব অনটন সত্ত্বেও অভাব বুঝতে দেননি মেয়েকে। নিজে আধপেটা খেয়ে খাইয়েছেন। রাগের মাথায় মেয়েকে বকাঝকাও করেননি জোলেখা বেগম। আজ যাদের হেফাজতে জোনাকি তাদের এমন আচরণ দেখে পৃথিবীর অতিক্ষুদ্র অবাঞ্চিত একটি প্রাণী মনে হল নিজেকে। শোকে শীতল হয়ে গেল তার সব শরীর। চোখ বেয়ে ধেয়ে এলো সমুদ্রের লোনা জোয়ার। হৃদয়টা ভেঙে খান খান হয়ে গেল তার। মেয়েকে নিয়ে দেখা স্বপ্নগুলো বিষাক্ত কালো মেঘে ঢেকে গেল নিমিষেই। ছোট্ট একটি ভুলের জন্য এমন জঘণ্য আচরণ!

মানাতে পারছেন না নিজের মনকে। ভাবলেন, গরিব বলে আজ শত অবহেলা, তিরস্কার। কিন্তু গরিবরাও যে মানুষ; জোনাকির শাশুড়ির হয়তো চিন্তা-চেতনে প্রবেশ করেনি আজো। গরিবদেরও যে দুঃখে চোখের পানি আসে আর সুখে হৃদয় ভরে যায়; গরিবদের অন্তরেও যে ভালো মানুষের জন্য ভালোবাসা, সম্মান আর মন্দলোকের জন্য অফুরন্ত ঘৃণার জন্ম নেয় তা হয়তো তারা জানেন না। আর জানেন না বলেই যখন যা খুশি বলতে পারেন অনায়াসে। ওইসব তাদের মুখে বাধে না। অথচ অন্য দু’জন বড়লোক বউদের বেলায় নমনীয় ভাব থেকেই গেল চিরকাল। তাদের কাছ থেকে ন্যূনতম সহানুভূতি না পেলেও মধুময় কথার ফুলঝুরি ছড়ান সর্বদা। এসব নিয়ে জোনাকির তেমন কোনো অভিযোগ নেই। শ্বশুর-শাশুড়ির কাছ থেকে শুধু সদাচরণই কাম্য জোনাকির। সংসারের পুরো দায়িত্ব এখন জোনাকির হাতে। কোনো কাজের মেয়ে না থাকায় সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ঘরের সব কাজ সম্পন্ন করতে হয় তাকে। একটি মাত্র সন্তান শ্রাবণকেও ঠিকমতো সময় দিতে পারে না জোনাকি। তারপরও শাশুড়ির মন জয় করতে পারেনি সে। এ ব্যর্থতা কি শুধু জোনাকির? উত্তর ‘না’। এ ব্যর্থতার দায়ভার শুধু ‘গরিব’ নামক শব্দটির। আজ যদি অন্য দু’জনের মতো ধনীর দুলালি হতো তাহলে আদরে আদরে ভরে যেত জোনাকির জীবন। এতসব পরিশ্রমও করতে হতো না তাকে। ভাবতে ভাবতে নিজের প্রতি ঘৃণা জন্মে জোনাকির; আর ধিক্কার দেয় ‘গরিব’ শব্দটিকে।

মীরসরাই, চট্টগ্রাম

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×