একদিনে খাঁটি বাঙালি

  জাহাঙ্গীর ডালিম ১১ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পহেলা বৈশাখ। শুভ নববর্ষ। নববর্ষতো প্রতিবারই আসে আমাদের জীবনে। নববর্ষ এলেই দেখা যায় চারদিকে পড়ে যায় পান্তা-ইলিশ খাওয়ার ধুম। নতুন বছরেই এ বাঙালি খাবার খেয়ে পহেলা বৈশাখকে স্বাগত জানাতে সবাই থাকে উদগ্রীব। তবে একটা কথা কী- যারা এ পান্তা-ইলিশ খেয়ে নববর্ষবরণ করে সেই বাঙালিরা অনেকেই আবার ৩৬৫ দিনে ৩৬৪ দিনই পান্তা ভাতকে আর ছুঁয় না। তারা সারা বছরে ব্যস্ত থাকে বিদেশি রেস্তোরাঁয় থাই কাবাব, চাইনিজ খাবার, মুরগি পোলাও, বিরিয়ানি খেতে। শুধু একদিন ছাড়া সেই দিনটি পহেলা বৈশাখ। ভাবতে অবাক লাগে যেই ছেলেটি ফুটপাতে বসে কাঁচামরিচ আর লবণ মেখে পান্তা ভাত খাচ্ছে- তার অসীম ক্ষুধার জ্বালা মেটাতে সেই ছেলেটির দিকে তাকিয়ে অনেক সাহেব- স্মার্ট ললনাদের দেখেছি নাক, মুখ কুঁচকাতে। তাকে ডিঙ্গিয়ে ফাস্ট ফুডের দোকানে ঢুকতে এবং কিছুদিন পর যখন পহেলা বৈশাখ এলো, তখনই ওই স্মার্ট ললনাদের দেখেছি ভাজা ইলিশ আর পান্তা ভাত নিয়ে নাচানাচি করতে।

আমাদের একুশে ফেব্র“য়ারি এলে দেখা যায় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে। পরের দিনই জুতাসহকারে শহীদ মিনারে উঠে দাঁড়ায়। বিজয় দিবস, স্বাধীনতা দিবস এলে আমরা একদিনই শ্রদ্ধা জানাই। তার পরের দিনই একই অবস্থা। আমরা বাবাকে ডেডি, মাকে মাম্মি বলে থাকি। আসলেই কি এটাই আমাদের মাতৃত্ব? বাংলা নববর্ষকে স্বাগত জানাতে হায়রে বাঙালি! বাঙালি ওরা ঠিকই, তবে একদিনের খাঁটি বাঙালি।

 

 

আরও পড়ুন

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.