আপনার প্রশ্ন

বিশেষজ্ঞের উত্তর

  অধ্যাপক ডা. জাহীর আল-আমিন ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নাক কান ও গলা রোগ বিশেষজ্ঞ ও সার্জন সিনিয়র কনসালটেন্ট ও বিভাগীয় প্রধান ইমপাল্স হাসপাতাল, তেজগাঁও, ঢাকা

হটলাইন : ১০৬৪৪

ঘুমের সময় জোরে জোরে নাক ডাকা

আমার ওজন ৮০ কেজি। ঘুমে সমস্যা নেই তবে ঘুমের সময় জোরে জোরে নাক ডাকি। এতে আমার স্ত্রীর ঘুমে ব্যাঘাত ঘটে। মাঝে মাঝে বুকের ডানপাশে ব্যথা করে।

রবিন বয়স ২৯ বছর, মানিকনগর, ঢাকা

নাক ডাকলে শুধু স্ত্রীর নয় আপনারও সমস্যা হবে। এর ফলে রক্তচাপ বেড়ে যায়, দিনে ঘুম ঘুম ভাব থাকে, কাজে মনোযোগ দেয়া সম্ভব হয় না। এমনকি ঘুমের মধ্যে ব্রেইন স্ট্রোক বা হার্ট অ্যাটাক হতে পারে। প্রথম শর্ত আপনাকে ওজন কমাতে হবে। নাক কান গলা বিশেষজ্ঞকে দেখিয়ে নাক, গলা, তালু ও শ্বাসতন্ত্রের উপরিভাগ (upper airway) পরীক্ষা করাতে হবে। প্রয়োজনে তিনি কিছু রক্ত পরীক্ষা দিতে পারেন। থাইরয়েড গ্ল্যান্ডে সমস্যা আছে কিনা দেখতে হবে। স্লিপ স্টাডি করাও লাগতে পারে। নাক কান গলার কোনো সমস্যা থাকলে কনজারভেটিভ বা মেডিসিন চিকিৎসা কিংবা সার্জিক্যাল চিকিৎসারও প্রয়োজন হতে পারে। অনেক সময় ঈচঅচ বা ইচঅচ মেশিন ব্যবহার করা লাগতে পারে। নাক ডাকা অব্যাহত থাকলে কয়েক বছরের মধ্যেই আপনার শারীরিক সমস্যা শুরু হয়ে যেতে পারে। নাক ডাকা কোনোক্রমেই কাম্য নয়।

বাতাসে গলা ব্যথা করে ও ঢোক গিলতে কষ্ট হয়

সামান্য বাতাসেই আমার গলা ব্যথা করে ও ঢোক গিলতে কষ্ট হয়। অ্যালার্জির কারণে শরীর লাল লাল হয়ে ফুলে যায় ও চুলকায়। বাইরের ধূলা-বালিতে কাশি হয়। গার্গেল করলে সমস্যা কমে, মাফলার পরলে ভালো লাগে। আগে গলা দিয়ে রক্ত আসত, মনে হচ্ছে টনসিলের সমস্যা।

আরিফা মিতু ২৬ বছর, কিশোরগঞ্জ

আপাতদৃষ্টিতে মনে হচ্ছে এটি টনসিলের সমস্যা নয়, অ্যালার্জিজনিত সমস্যা। অ্যালার্জি দুইভাবে হতে পারে- একটি পোলেন বা পরাগরেণু দিয়ে অন্যটি ধোঁয়া, ধূলা-বালি, ঠাণ্ডাজনিত সমস্যা। খাদ্যের কারণে আপনার এ ধরনের অ্যালার্জি হওয়ার আশঙ্কা নেই। প্রথম করণীয় ধূলা-বালি, ধোঁয়া, ঠাণ্ডা পরিহার করে চলতে হবে। লবণ কুসুম গরম পানি দিয়ে গড়গড়া চালিয়ে যেতে হবে। একইভাবে নাকও পরিষ্কার করতে হবে। ঘর থেকে ধূলা-বালির বিভিন্ন উৎস যেমন কার্পেট, মোটা পর্দা, বইপত্র থেকে দূরে থাকতে হবে। লেপ-তোষক, কম্বল, বালিশ সপ্তাহে অন্তত দুইবার রোদে দিতে হবে। নাকের কিছু স্টেরয়েড স্প্রে বা মন্টিলুকাস্ট ট্যাবলেট বা উভয়ই চালিয়ে যাওয়া লাগতে পারে। এতেও কাজ না হলে আপনার নাক কান গলার বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দেখিয়ে চিকিৎসা করাতে হবে।

ঘন ঘন কাশি ও কান বন্ধ থাকে

গোসল করার সময় প্রায়ই কানে পানি ঢুকে। কাশি হয় এবং এ সময় কানও বন্ধ হয়ে যায়।

মুকতাদির ৩৫ বছর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

আপনার এ সমস্যা নাকের ও গলার অ্যালার্জি থেকে হচ্ছে। যখনই আপনার সর্দি লাগে বা কাশি হয় বা সর্দি কাশি উভয়ই হয় তখন প্রদাহ নাকের পেছন দিক দিয়ে ইউস্টেসিয়ান টিউবের মাধ্যমে মধ্যকর্ণে চলে যায়। এটি অ্যালার্জি ও অ্যালার্জির ওপর superimposed ইনফেকশন থেকে হতে পারে। নাকের হাড় বাঁকা বা পলিপ থেকেও কিছু কিছু ক্ষেত্রে টনসিল বা এডেনয়েড বড় হয়ে গিয়ে এ সমস্যা হতে পারে। আপনাকে অবশ্যই অ্যালার্জি যেমন ধূলা-বালি, ধোঁয়া, ঠাণ্ডা থেকে দূরে থাকতে হবে। নাক কান গলার বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দেখিয়ে এসব অঙ্গে কোনো সমস্যা আছে কিনা জানতে হবে। প্রয়োজনে এক কোর্স এন্টিবায়োটিক ও নাকের স্টেরয়েড স্প্রে ব্যবহার করতে হবে। কানের ভেতর জমে যাওয়া পানির অপারেশন যেমন মাইরিঙ্গেটমি ও গ্রোমেট লাগানো লাগতে পারে। কানে পানি জমলে কানে কম শোনা, মাথা ঘোরানো এমনকি কানের পর্দা ফুটো হয়ে যাওয়ার মতো সমস্যা হতে পারে। কাজেই এখন থেকেই সচেতনতা জরুরি।

নাক বন্ধ থাকে ও হাঁচি হয়

আমার মাঝে মধ্যেই এক নাক বন্ধ থাকে। মাঝে মাঝে ঘুমে হালকা নাক ডাকি। আমার উচ্চ মাত্রার কোলেস্টেরল ও ইউরিক এসিডের সমস্যা আছে। আমি ধূমপায়ী। সকালে ঘুম থেকে উঠে গলা খুসখুস করে ও কফ বের হয়।

তৌহিদ ৩৬ বছর, ধানমণ্ডি, ঢাকা

এ বয়সে আপনার প্রথম কাজ হল সিগারেট খাওয়া বন্ধ করা। তা না হলে যে কোনো সময়ে আপনার হার্টের সমস্যা হয়ে যেতে পারে। নাক বন্ধ থাকারও চিকিৎসা করা জরুরি। উপসর্গ পড়ে মনে হচ্ছে আপনার নাকের হাড় বাঁকা আছে বা সাইনাসে সমস্যা আছে বা উভয়ই থাকতে পারে। এর সঙ্গে ধীরে ধীরে যুক্ত হচ্ছে হাঁপানির সমস্যা। নাক কান গলার ডাক্তার দেখিয়ে নাক বন্ধের চিকিৎসা নিন। গলা খুসখুস ও কাশির জন্য ধূলা-বালি, ধোঁয়া, ঠাণ্ডা পরিহার করে চলুন। কাশির জন্য ১০ মি.গ্রা. মন্টিলুকাস্ট ট্যাবলেট প্রতিদিন একটি করে খান।

গলা-বুকে সাঁই সাঁই শব্দ হয়

ঠাণ্ডা পড়লেই আমার গলা-বুকে সাঁই সাঁই শব্দ হয় ও সর্দি ঝরে। ঠাণ্ডা পানি খাই না। প্রতিরোধের উপায় কি?

মেসবাহ ৫০ বছর, চাঁদপুর, কুমিল্লা

আপাতদৃষ্টিতে মনে হচ্ছে আপনার হাঁপানির ভাব আছে বা হাঁপানি হয়ে গেছে। কোনো অবস্থাতেই সাঁই সাঁই শব্দ বা যিববুব গ্রহণযোগ্য নয়। এর ফলে হাঁপানির সঙ্গে ক্রনিক কাশি যুক্ত হয়ে চিকিৎসা দুরূহ হয়ে যেতে পারে। বুকের এক্স-রে করতে হবে। নাক কান গলা বিশেষজ্ঞ দেখিয়ে নাক পলিপ বা হাড় বাঁকা আছে কিনা দেখতে হবে। মন্টিলুকাস্ট ট্যাবলেটের সঙ্গে সালবিউটামল ও স্টেরয়েড ইনহেলার ব্যবহার করা লাগতে পারে। ইনহেলার সঠিক নিয়মে ব্যবহার করলে এ সমস্যা থেকে মুক্ত থাকা সম্ভব।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×