হার্টের রক্তনালি ব্লক হলে

  অধ্যাপক ডা. গোবিন্দ চন্দ্র দাস ২৩ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

হার্টের রক্তনালি ব্লক হলে

বিশ্বের এক নম্বর মরণব্যাধি হৃদরোগ। কোনোরকম পূর্বাভাস ছাড়াই যে কোনো সময় মানুষের জীবন কেড়ে নিতে পারে। প্রতিবছর লাখ লাখ লোকের হার্ট অ্যাটাক হচ্ছে।

এদের মধ্যে ৩৫ ভাগের মৃত্যু হয় হাসপাতালে পৌঁছার আগেই। হার্ট অ্যাটাক হয়েও অনেক সময় বেঁচে থাকতে হয় নানা অক্ষমতা আর হঠাৎ মৃত্যুর ভয় নিয়ে।

আর্টারি একবার ব্লক হওয়া শুরু করলে বাইপাস সার্জারি কিংবা এনজিওপ্লাস্টি ছাড়া কোনো পথ নেই। এই কথার রক্ষণশীল চিন্তার মর্মমূলে ১৯৮৭ সালে প্রথম আঘাত হানেন আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়ার বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. ডীন অরনিশ।

ওষুধ ও সার্জারি ছাড়া হৃদরোগ নিরাময়ে ডা. অরনিশের এ প্রক্রিয়া এত ব্যাপকভাবে গৃহীত হয়েছে যে, একে আর বিকল্প চিকিৎসা বলা যায় না বলতে হয় হৃদরোগ চিকিৎসার মূলধারায় এর অন্তর্ভুক্তি ঘটেছে।

মার্কিন হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. ক্রিচটন দীর্ঘ গবেষণার পর দেখিয়েছেন যে, হৃদরোগের কারণ প্রধানত মানসিক। কোলেস্টেরল বা চর্বিজাতীয় পদার্থ জমে করোনারি আর্টারিকে প্রায় ব্লক করে ফেললেই যে হার্ট অ্যাটাক হবে এমন কোনো কথা নেই

। একেবারে পরিষ্কার আর্টারি নিয়ে অপর একজন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। ৬০-এর দশকে যুক্তরাষ্ট্রে সানফ্রান্সিসকোর ডা. মেয়ার ফ্রেডম্যান এবং ডা. রে রোজেনম্যান দীর্ঘ গবেষণার পর দেখান যে, হৃদরোগের সঙ্গে অস্থিরচিত্ততা, বিদ্বেষ প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক দৃষ্টিভঙ্গি বা জীবন পদ্ধতির সরাসরি যোগাযোগ রয়েছে। রোগ ও অসুস্থতা থেকে মুক্তির জন্য প্রথম প্রয়োজন এই দৃষ্টিভঙ্গি বা জীবনদৃষ্টির পরিবর্তনের, আর এর সবচেয়ে সহজ পথ হল হলিস্টিক পদ্ধতি।

হলিস্টিক পদ্ধতিতে (ডায়েট ম্যানেজমেন্ট, স্ট্রেস ফ্রি টেকনিক, মেডিটেশন, যোগব্যায়াম, প্রাণায়াম, নিউরোবিক, আকুপ্রেশার ও ইসিপি) চিকিৎসা হচ্ছে এখন উন্নত বিশ্বেও। হৃদরোগীদের খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন এনে এবং নিয়মিতভাবে কিছু যোগব্যায়াম করালেও রোগের উন্নতি সাধিত হয়ে থাকে।

এগুলো অনুসরণ করলে নতুন করে রোগীর অবস্থার অবনতি ঘটে না এবং ধমনীর ব্লক বা বাধা সরিয়ে হৃদপিণ্ডে বিশুদ্ধ রক্ত সঞ্চালনের ব্যবস্থা করে থাকে। এটাকেই বলা হয় বিকল্প পদ্ধতি।

হলিস্টিক পদ্ধতি অনুসরণ করে কারা উপকৃত হবে-

* যার একবার বা একাধিকবার হার্ট অ্যাটাক হয়ে গেছে

* যিনি এনজিওপ্লাস্টি বা বাইপাস সার্জারির জন্য অনুপযুক্ত বলে বিবেচিত হয়েছেন, বিশেষত হার্টের পাম্পিং ক্ষমতা বেশি কমে গেলে (ER <30%, MPI <20%), বেশি বয়স, মাল্টিপল ব্লকেজ, কিডনির কার্যকরী ক্ষমতা কমে গেলে, হেপাটাইটিস বি পজিটিভ হলে, পায়ের আর্টারিতে অত্যাধিক ব্লকেজ থাকলে, কেরোটিড আর্টারি ও কিডনি আর্টারিতে ব্লকেজ থাকলে।

* যাদের হার্টের রক্তনালিতে ব্লক আছে কিন্তু রক্তনালির গঠন বৈশিষ্ট্যের কারণে রিং বসানো বা বাইপাস সার্জারি করা যাচ্ছে না।

* রক্তনালি সম্পূর্ণরূপে বন্ধ হয়ে ক্যালসিয়াম জমে গেছে বিধায় যেখানে রিং বসানো সম্ভব হচ্ছে না।

* হার্টের রক্তনালিতে ব্লক আছে কিন্তু কিডনি ফেইলিউর বা ইতিপূর্বে ঘটে যাওয়া ব্রেন স্ট্রোকের কারণে বাইপাস সার্জারি করা যেখানে খুবই ঝুঁকিপূর্ণ।

* এনজিওপ্লাস্টি বা বাইপাস সার্জারির পর যার পুনরায় ব্লকেজ ধরা পড়েছে

* যিনি এর মধ্যে এনজিওপ্লাস্টি বা বাইপাস সার্জারি করেছেন এবং পুনরায় যাতে ব্লকেজ না হয়।

* অপারেশন বা এনজিওপ্লাস্টি করা দরকার কিন্তু রোগী ভয় পাচ্ছে

* যিনি উচ্চরক্তচাপে (হাইপার টেনশন) ভুগছেন

* যিনি অসম্ভব মুটিয়ে গেছেন

* যার হৃদরোগের দীর্ঘ পারিবারিক ইতিহাস রয়েছে

* যার অস্বাভাবিক মাত্রায় রক্তে কোলেস্টরল বিদ্যমান

* যিনি ডায়াবেটিসে ভুগছেন, রক্তে শর্করার মাত্রা উঁচু

* সেসব কর্মজীবী যাদের অত্যন্ত চাপের মধ্যে কাজ করতে হয়

* হার্টের আর্টারি ব্লকেজ, ডায়াবেটিস ও উচ্চরক্তচাপ প্রতিরোধ করার জন্য।

হৃদরোগ চিকিৎসাতেই নয়, অসংক্রামক বহু রোগ বিশেষত উচ্চরক্তচাপ, ডায়াবেটিস, মাইগ্রেন রোগের চিকিৎসায় এ হলিস্টিক পদ্ধতির সাফল্য আজ পরীক্ষিত।

লেখক : হলিস্টিক হেলথ কেয়ার সেন্টার, পান্থপথ, ঢাকা

ফোন : ০১৯২১ ৮৪৯৬৯৯

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×