চুল পড়া নিয়ে চিন্তিত

  ডা. দিদারুল আহসান ০২ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চুল ত্বকের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। চুলের প্রধান সমস্যা অকালে চুল পড়ে যাওয়া। তরুণ-তরুণীরা এ নিয়ে উদ্বিগ্ন থাকেন। যুবক বয়সে এর প্রধান কারণ অ্যান্ড্রোজেনিক অ্যালোপেসিয়া বা টাক। এটি জেনেটিক কারণে হয়ে থাকে। এছাড়া অ্যান্ড্রোজেন হরমোনের কারণেও চুল পড়ে। বয়সকালেও চুল পড়ে যায়। গর্ভাবস্থায় ও স্তন দানকালে হরমোনের একটিভিটি বেড়ে যায় বলে এ সময়ও চুল পড়ে যায়।

চুলে প্রসাধনী ব্যবহার সারা বিশ্বেই বাড়ছে। চুলে কালার করা, হেয়ার বন্ড্রিং, হেয়ার স্ট্রেইটনিংয়ের জন্য চুল পড়তে পারে। প্যাটার্ন অ্যালোপেসিয়ায় হেয়ার লাইন নিচে নেমে যাবে বা একটি নির্দিষ্ট জায়গায় চুল পড়ে হাল্কা বা পাতলা হয়ে যাবে।

চুল পড়ার আরেকটি কারণ অটো ইমিউন ডিজিজ। এন্টিজেন অ্যান্টিবডির রিঅ্যাকশনে চুল পড়ে যায়। মেয়েদের জরায়ুতে টিউমার বা সিস্ট হলে চুল পড়ে। চুলের মাথার ত্বকে ফাংগাস ইনফেকশন থেকে চুল পড়ে যায়। খুশকির জন্য এন্ট্রি ড্রেনড্রাফ শ্যাম্পু ব্যবহার করা যায়। শীতে তাপমাত্রা ও আর্দ্রতা কমে যাওয়ার জন্য ও আবহাওয়া শুষ্ক থাকার জন্য চুল রুক্ষ হয়ে যায়। এক্ষেত্রে সপ্তাহে দুই-তিনবার শ্যাম্পু করা যায়। কন্ডিশনারসহ শ্যাম্পু ব্যবহার করলে ভালো। চুলপড়ার ৮০-৯০ ভাগ কারণ অ্যান্ড্রোজেনিক অ্যালোপেসিয়া। এফডিএ অনুমোদিত মিনোক্সিডিল লোশন প্রতিদিন ব্যবহার করলে ভালো ফল পাওয়া যায়। পিআরপি থেরাপি চুল পড়া রোধে কিংবা নতুন চুল গজানোর আধুনিক কার্যকরী পদ্ধতি। এতে রোগীর কাজ না হলে হেয়ার ট্রান্সপ্লান্টেশন করা হয়।

লেখক : ত্বক ও যৌনব্যাধি বিশেষজ্ঞ, আল-রাজী হাসপাতাল, ফার্মগেট ঢাকা, মোবাইল : ০১৭১৫৬১৬২০০

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×