করোনাকালে বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির বিভিন্ন পদক্ষেপ
jugantor
করোনাকালে বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির বিভিন্ন পদক্ষেপ

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৫ জুলাই ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন জেলায় অবস্থিত অধিভুক্ত সমিতির সব হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র করোনাকালে নানা সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও তাদের স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। এছাড়াও সমিতি করোনাকালে বেশকিছু নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে।

* করোনায় আক্রান্ত ডায়াবেটিক রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা বিষয়ে স্বাস্থ্যকর্মী ও রোগীদের জন্য দুটি পৃথক গাইডলাইন প্রণয়ন করা হয়েছে এবং সমিতির বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও অধিভুক্ত সমিতিগুলোতে পাঠানো হয়েছে।

* সমিতির অন্যতম প্রতিষ্ঠান বিআইএইচএস জেনারেল হাসপাতালে একটি করোনা ইউনিট চালু করা হয়েছে। এ ইউনিটে ৩৭টি সাধারণ বেড, ৫টি আইসিইউ বেড ও ৩টি এইচডিইউ বেড রয়েছে। এছাড়াও এ হাসপাতালে পিসিআর পদ্ধতিতে করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

* পিসিআর পদ্ধতিতে বারডেম-২ ও চন্দ্রায় ডা. ফরিদা হক ইব্রাহিম জেনারেল হাসপাতালে করোনা টেস্টের ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে।

* বিভিন্ন জেলায় অবস্থিত অধিভুক্ত সমিতিগুলোতে করোনা পরীক্ষাসহ যেসব টেস্ট করা হয় না, বারডেম ল্যাবরেটরিতে নমুনা পাঠানোর মাধ্যমে সেসব টেস্ট করার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

* এ ছাড়াও করোনা বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে বেশকিছু পোস্টার ও লিফলেট প্রকাশ করা হয়েছে এবং বেশকিছু ভিডিওচিত্র তৈরি করা হয়েছে।

 

করোনাকালে বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির বিভিন্ন পদক্ষেপ

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৫ জুলাই ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন জেলায় অবস্থিত অধিভুক্ত সমিতির সব হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র করোনাকালে নানা সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও তাদের স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। এছাড়াও সমিতি করোনাকালে বেশকিছু নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে।

* করোনায় আক্রান্ত ডায়াবেটিক রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা বিষয়ে স্বাস্থ্যকর্মী ও রোগীদের জন্য দুটি পৃথক গাইডলাইন প্রণয়ন করা হয়েছে এবং সমিতির বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও অধিভুক্ত সমিতিগুলোতে পাঠানো হয়েছে।

* সমিতির অন্যতম প্রতিষ্ঠান বিআইএইচএস জেনারেল হাসপাতালে একটি করোনা ইউনিট চালু করা হয়েছে। এ ইউনিটে ৩৭টি সাধারণ বেড, ৫টি আইসিইউ বেড ও ৩টি এইচডিইউ বেড রয়েছে। এছাড়াও এ হাসপাতালে পিসিআর পদ্ধতিতে করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

* পিসিআর পদ্ধতিতে বারডেম-২ ও চন্দ্রায় ডা. ফরিদা হক ইব্রাহিম জেনারেল হাসপাতালে করোনা টেস্টের ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে।

* বিভিন্ন জেলায় অবস্থিত অধিভুক্ত সমিতিগুলোতে করোনা পরীক্ষাসহ যেসব টেস্ট করা হয় না, বারডেম ল্যাবরেটরিতে নমুনা পাঠানোর মাধ্যমে সেসব টেস্ট করার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

* এ ছাড়াও করোনা বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে বেশকিছু পোস্টার ও লিফলেট প্রকাশ করা হয়েছে এবং বেশকিছু ভিডিওচিত্র তৈরি করা হয়েছে।