চিকুনগুনিয়াজনিত আর্থ্রাইটিসের ভেষজ চিকিৎসা

প্রকাশ : ১৮ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  হাকীম এমএ করিম সিদ্দিকী

বর্ষাকাল এলে চিকুনগুনিয়া রোগের প্রাদুর্ভাব ঘটে। আমাদের স্বাস্থ্য সচেতনতার অভাব এবং রোগ প্রতিরোধক ব্যবস্থার প্রতি অনীহা; এ রোগ বিস্তারে সহায়ক। Aedes aegypta এবং Aedes alfopictus জাতীয় মশার কামড়ে এ রোগ সংক্রমিত হয়। এটি একটি ভাইরাস জাতীয় রোগ।

প্রধান উপসর্গ জ্বর। সঙ্গে মাংসপেশিতে ব্যথা, খাওয়ায় অরুচি, মাথাব্যথা, বমি, অস্বস্তি বোধ, শারীরিক দুর্বলতা, সর্বোপরি- সন্ধি প্রদাহ অর্থাৎ সন্ধিস্থলে ব্যথা দেখা দেয়। চিকুনগুনিয়াজনিত জ্বর উপশম হওয়ার পর যে উপসর্গটি বেশি কষ্ট দেয়; তা হল আর্থ্রাইটিস বা সন্ধি প্রদাহ। রোগীর সন্ধিস্থলে প্রচণ্ড ব্যথা হয়। ব্যথা পুরো শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। স্বাভাবিক চলাফেরা কষ্টসাধ্য হয়ে যায়। ব্যথা কেবল হাঁটুতে নয়; অন্যান্য অস্থি সন্ধিতেও অনুভূত হয়। রোগ আক্রমণ বেশি হলে, কেউ আবার শয্যাশায়ী হয়ে পড়েন।

সাধারণত বয়স্ক ব্যক্তিরা অথবা যারা পূর্ব থেকেই ব্যথার সমস্যায় ভুগছেন; তারা বেশি আক্রান্ত হন। প্রচলিত ব্যথানাশক ওষুধ সেবনে ব্যথা সারতে চায় না। এ অবস্থা এক-দেড় মাস অব্যাহত থাকে।

এ রোগে ব্যবহার্য দেশীয় সহজলভ্য ভেষজ চিকিৎসা উল্লেখ করতে চাই। জ্বর উপশমের জন্য জ্বর-নিবারক (Antipyretie) ওষুধ প্রয়োগ অপরিহার্য। এ জন্য পুদিনা (Mentha aruensis Linn) একটি উত্তম ওষুধ। ভেষজটিতে Dephoetie (ঘর্ম-নিঃসারক) ক্রিয়া বিদ্যমান থাকায় এটি সহজেই জ্বর প্রশমন করে। পুদিনা মস্তিস্কের Hypotholamus Center কে তেমন প্রভাবিত করে না; তাই এটা নিরাপদ। এ ছাড়া ভেষজটি বেদনানাশক (Analgesic) হিসেবেও সুপরিচিত। কারণ এর পাতায় রয়েছে; ডি-আইসো ম্যানথল ও পুলেশোন। সেবন বিধি : ১০-২০ গ্রাম পুদিনা পাতার রস খালি পেটে দৈনিক ৩-৪ বার সেব্য। বয়স ভেদে মাত্রার তারতম্য করতে হবে। প্রয়োজন বোধে এর সঙ্গে অল্প চিনি মিশ্রণ করা যেতে পারে।

চিকুনগুনিয়াজনিত আর্থ্রাইটিস বা সন্ধি প্রদাহে আদা (Zingiler officinal Roscoe) কার্যকর ভেষজ। এতে রয়েছে প্রদাহনাশক/ফোলা প্রশমক (Anti-inflammatory) বিশেষ গুণবৈশিষ্ট্য। যা সন্ধি প্রদাহ এবং ব্যথায় কার্যকর। কারণ আদার উদ্বায়ী তেলে রয়েছে ক্যামফেন। বাজারে প্রচলিত ব্যথানাশক ওষুধের মতো এতে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রয়া নেই। সেবন বিধি : ১-২ চা চামচ আদার রস মধুর সঙ্গে মিশিয়ে ভরা পেটে দিনে তিনবার সেব্য। একই সঙ্গে সন্ধিস্থলে আদার তেল মালিশ করুন; এতে অধিক উপকার পাওয়া যায়। এদ্বারা আক্রান্ত ফোলায় Resoluent ক্রিয়া সাধিত হয়। প্রস্তুত প্রণালি : ১০০ গ্রাম আদার রস, ১০০ এমএল Olive Oil-এর সঙ্গে মিশিয়ে হালকা আগুনে জ্বাল দিন। জ্বলীয় বাষ্প নিঃশেষ হওয়ার পর তেল ঠাণ্ডা করে পাত্রে সংরক্ষণ করুন। এটা দিনে ৩ বার আক্রান্ত স্থানে ব্যবহার্য।

লেখক : সাবেক সহকারী অধ্যাপক, হাকীম হাবিবুর রহমান ইউনানি মেডিক্যাল কলেজ