ইন্টারনেট এডিকশন ও প্রতিকার

  ডা. আহসান উদ্দিন আহমেদ ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আজকাল বহুল উচ্চারিত কতগুলো শব্দের মধ্যে অতি পরিচিত দুটি শব্দ হচ্ছে ইন্টারনেট এডিকশন। এর সঙ্গে আরও কতগুলো শব্দ চলে আসে যেমন- ফেসবুক এডিকশন, মোবাইল এডিকশন, পর্নোগ্রাফি এডিকশন, ইন্টারনেট গেমিং ইত্যাদি। এডিকশনকে সংজ্ঞায়িত করা হয় মস্তিষ্কের তথা মনের একটি ব্যাধিরূপে। এ কথা আমরা সবাই কম বেশি জানি যে, মন থাকে মাথায় তথা মস্তিষ্কে।

ইন্টারনেট এ যুগে সবাই কোনো না কোনোভাবে নানা প্রয়োজনে ব্যবহার করে। কথা হচ্ছে কখন আমরা একে এডিকশন বলব। যেহেতু এডিকশন একটি মানসিক ব্যাধি, কাজেই যে কোনো এডিকশন হতে গেলেই তাকে কতগুলো ডিসঅর্ডার ক্রাইটেরিয়া বা শর্ত পূরণ করতে হয়। প্রধান কতগুলো শর্ত বা লক্ষণ আমরা এখানে উল্লেখ করতে পারি। যেমন, ইন্টারনেটে আসক্ত রোগীর চিন্তায়-চেতনায় সারাক্ষণ শুধু ইন্টারনেট বিরাজ করবে, এর বিভিন্ন মাধ্যমে সে নিজেকে ব্যস্ত রাখবে; এটা হতে পারে ফেসবুক, পর্নোগ্রাফি, গেমিং ইত্যাদি যা কিছু ইন্টারনেটের মাধ্যমে করা সম্ভব। তার জীবনের প্রধান আকর্ষণ, কর্মকাণ্ডই হবে ইন্টারনেটকে ঘিরে। ইন্টারনেট থেকে বিচ্ছিন্ন হলে রোগীর মধ্যে বিরক্তি, উদ্বেগ, বিষণ্ণতা ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দেবে। অল্প বয়সী টিনএজারদের ক্ষেত্রে জোর করে ইন্টারনেট থেকে বিচ্ছিন্ন করা হলে রাগারাগি, ভাংচুর ইত্যাদি আচরণগত সমস্যা দেখা দিতে পারে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, যে কোনো বয়সেই এই ইন্টারনেট আসক্তি দেখা দিতে পারে। তবে এর প্রাদুর্ভাব সবচেয়ে বেশি দেখা যায় অল্পবয়সী-টিনএইজ ছেলেমেয়েদের মধ্যে।

মারাত্মক যে সমস্যাটি রোগীর জীবনে দেখা দেয় তা হল এ ইন্টারনেট এডিকশন তার জীবনের গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রগুলো যেমন পারস্পরিক সম্পর্ক, পারিবারিক সম্পর্ক, কর্মক্ষেত্রে বা শিক্ষা ক্ষেত্রে পারফরম্যান্স ক্রমান্বয়ে খারাপ হওয়াসহ জীবনের স্বাভাবিক গতিধারাকে প্রচণ্ড খারাপভাবে ব্যাহত করে। এর সঙ্গে আরও যোগ হয় ঘুমের সমস্যা, উদ্বেগ, অস্থিরতাসহ আরও নানাবিধ মানসিক ও শারীরিক সমস্যা।

প্রশ্ন হচ্ছে এডিকশন তৈরি হওয়ার কারণ কী এবং এ সমস্যা থেকে প্রতিকারের উপায় কী?

এডিকশন একটি মানসিক ব্যাধি। এটি তৈরি হওয়ার প্রক্রিয়াটি বেশ জটিল। আমাদের মস্তিষ্কে রয়েছে অসংখ্য নিউরোনাল সার্কিট বা স্নায়ুপথ। বিভিন্ন রকম নিউরোট্রান্সমিটার এ সার্কিটগুলোর মাধ্যমে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে। এ নিউরোনাল সার্কিট এবং নিউরোট্রান্সমিটার এর কার্যক্রমে যখন সমস্যা তৈরি হয় তখন বিভিন্ন মানসিক ব্যাধি বা রোগ প্রকাশ পায়। খুব সহজভাবে আমরা জিনিসটি ব্যাখ্যা করি তাহলে বলা যায় এডিকশন রোগটি তৈরি হওয়ার জন্য মস্তিষ্কের তিনটি নিউরোনাল সার্কিট যেমন 1. Impulsivity circuit, 2. Compulsivity Circuit এবং ৩. 3. Reward Centre- মূলত দায়ী। এর সঙ্গে জড়িত থাকে কিছু নিউরোট্রান্সমিটার যেমন, Serotonin, Dopamine ইত্যাদি। এ সার্কিটগুলো এবং নিউরোট্রান্সমিটারের স্বাভাবিক কার্যক্রম যখন ব্যাহত হয় এবং একটি অস্বাভাবিক প্রক্রিয়া শুরু হয় তখনই এডিকশন নামক রোগটি আত্মপ্রকাশ করে।

আসা যাক এর চিকিৎসা প্রসঙ্গে। এটি একটি মানসিক ব্যাধি, তাই এর চিকিৎসার ক্ষেত্রে মুখ্য ভূমিকা পালন করেন একজন সাইকিয়াট্রিস্ট। পর্যাপ্ত চিকিৎসার মাধ্যমে এ সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

চিকিৎসা মূলত তিনভাবে আমরা করতে পারি। তবে এগুলো সমন্বিতভাবে একই সঙ্গে চালিয়ে যেতে হবে।

Pharmacological management

Psychological management

Social management

এ ধরনের রোগীদের প্রত্যেকেরই কতগুলো সাধারণ Criteria থাকে। যেমন- এদের প্রত্যেকের মধ্যেই anxiety, depression, impulsivity ইত্যাদি সমস্যাগুলোসহ আরও আচরণগত সমস্যা থাকে। এগুলোকে নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রাথমিক পর্যায়ে স্বল্প মেয়াদে কিছু Medication প্রয়োজন হয়। এক্ষেত্রে আমরা Antidepressant, Anxiolytic এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে Antipsychotic ওষুধ ব্যবহার করে থাকি।

Psychological management এর ক্ষেত্রে Relaxation therapy, Cognitive behaviour therapy (CBT), Behavioural therapy, Dialectical behaviour therapy (DBT)সহ আরও অন্যান্য Behavioural modificationগুলো কার্যকরী।

Social management এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ কতগুলো পদক্ষেপ হচ্ছে নিয়মিত Outdoor gamesযেমন- ফুটবল, ক্রিকেট বা অন্যান্য খেলা যাতে শারীরিক পরিশ্রমের প্রয়োজন হয় সেগুলোতে অংশগ্রহণ করা, পারিবারিক বন্ধন এবং সম্পর্ককে সুদৃঢ় করা, সম্পর্কের যতœ নেয়া-পরিচর্যা করা, শৃঙ্খলাপূর্ণ জীবনযাপন করা যেখানে ইন্টারনেটের নিয়ন্ত্রিত ব্যবহারও অন্তর্ভুক্ত থাকবে, সামাজিকতা বাড়ান ইত্যাদি।

জীবনকে সুন্দর করতে হলে একটি শৃঙ্খলাপূর্ণ ব্যালেন্সড জীবনযাপন করুন, ইন্টারনেট এডিকশনসহ সব ধরনের addiction থেকে মুক্ত থাকুন।

লেখক : সহকারী অধ্যাপক, ডিপার্টমেন্ট অব সাইকিয়াট্রি, শহীদ সোহ্রাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, শেরে-বাংলা নগর, ঢাকা

E-mail: [email protected]

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×