চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম নারী সহকারী প্রক্টর মরিয়ম ইসলাম

  মনিরুল ইসলাম মনি ২২ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম নারী সহকারী প্রক্টর মরিয়ম ইসলাম লিজা। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে প্রথম নারী সহকারী প্রক্টরের দায়িত্ব পালন করে ইতিহাস গড়লেন তিনি। পাশাপাশি তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রীতিলতা হলের আবাসিক শিক্ষক হিসেবে দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন। পদোন্নতি পেয়ে সহকারী অধ্যাপক পদে কর্মরত রয়েছেন।

মরিয়ম ইসলাম লিজার কর্মজীবন শুরু হয় বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদে ফেলো হিসেবে। সেই সঙ্গে তিনি স্বনামখ্যাত বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডে কর্মরত ছিলেন। ২০১৭ সালে তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগে প্রভাষক পদে যোগদান করেন। তিনি প্রভাষক ক্যাটাগরিতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের হলুদ দল থেকে মনোনীত প্রাথী হিসেবে একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্য নির্বাচিত হন।

মরিয়ম ইসলাম লিজার জন্ম ১৯৮৪ সালে কুমিল্লার এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষায় হাতেখড়ির আগেই সাংস্কৃতিক অঙ্গনে যুক্ত হন তিনি। মাত্র পাঁচ বছর বয়সে ভর্তি হন শিশু একাডেমিতে। সেই সঙ্গে নাচের তালিম নেন কুমিল্লার ঐতিহ্যবাহী নৃত্য প্রতিষ্ঠান সুবল সঙ্গীতাঙ্গনের তপন দাস গুপ্তার কাছে।

তার প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা শুরু হয় আওয়ার লেডি ফাতেমা গার্লস হাইস্কুলে। পড়াশোনার পাশাপাশি শিল্পকলা একাডেমিসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। খেলাধুলা ও বিতর্কে ছিলেন সমানে সমান। ফয়েজুন্নেসা সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ২০০০ সালে পাঁচটি লেটার মার্কসহ এসএসসি পাস করেন। এর পর ভর্তি হন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের বিজ্ঞান বিভাগে। তিনি ২০০১ সালে বিভাগীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অ্যাথলেটিক্সে অংশগ্রহণ করে পুরস্কার জেতেন। মরিয়ম ইসলাম লিজা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকে রসায়ন বিভাগে ভর্তি হন। বিশ্ববিদ্যালয়েও তিনি পড়াশোনার পাশাপাশি সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তিনি রসায়ন বিভাগ থেকে কৃতিত্বের সঙ্গে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর করেন। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগ থেকে ন্যানো টেকনোলজিতে উচ্চতর ডিগ্রি এম ফিল সম্পন্ন করেন।

মরিয়ম ইসলাম লিজার বাবা মো. শহিদুল ইসলাম একজন চাকরিজীবী। পাশাপাশি জাতীয় পর্যায়ের একজন ক্রীড়াবিদ ছিলেন। মা নুরজাহান বেগম গৃহিণী। তিন বোন, এক ভাইয়ের মধ্যে তিনি সবার বড়। বাবার কাছেই তার খেলাধুলায় হাতেখড়ি।

এ প্রসঙ্গে মরিয়ম ইসলাম লিজা বলেন, মেয়ে বলে পিছিয়ে থাকতে নেই; এই শিক্ষাটা বাবা-মায়ের কাছে সবসময়ই পেয়েছি। বাবা-মায়ের এই শিক্ষা লেখাপড়া, খেলাধুলা, নাচ-গানের পাশাপাশি কর্মক্ষেত্রেও কাজে লেগেছে। আমাকে পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি কখনও। যেখানেই অংশ নিয়েছি সেখানেই সাফল্যের সঙ্গে এগিয়ে গেছি।

বিয়ে করেন তার বিশ্ববিদ্যালয়েরই সহপাঠী সৈয়দ শামসুল তাবরীজকে। যিনি বর্তমানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলায় কর্মরত রয়েছেন।

স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের সম্পর্কে বলতে গিয়ে মরিয়ম ইসলাম লিজা জানান, নারীর ক্ষমতায়নের পাশাপাশি স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রী সংখ্যা বাড়ছে। আশার কথা হল, একসময় কিশোরীরা লেখাপড়া চালিয়ে যেতে নিজ পরিবার থেকেও বাধার সম্মুখীন হতো। দিন পাল্টেছে এখন পরিবার উৎসাহের সঙ্গে তার মেয়েকে স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠাচ্ছে।

শিক্ষকতার পাশাপাশি মরিয়ম ইসলাম লিজা বিভিন্ন সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠনের সঙ্গে কাজ করছেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে তিনি যুক্ত আছেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় কমিটিতে। তিনি বঙ্গবন্ধু পরিষদের চট্টগ্রাম জেলা শাখা এবং বঙ্গবন্ধু পরিষদের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সঙ্গেও আছেন। এ ছাড়া এ দেশের পিছিয়ে পড়া ছিন্নমূল পথশিশুদের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা প্রদান ও তাদের সুস্থ সাংস্কৃতিক চর্চায় উদ্বুদ্ধকরণ লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত শিশু প্রতিভা বিকাশ কেন্দে র জন্য কাজ করে যাচ্ছেন নিরলসভাবে।

বাংলাদেশের উন্নয়নযাত্রায় নারীরা অসামান্য অবদান রাখছেন। সামাজিক পরিবর্তনের মাধ্যমে বাংলাদেশের নারী শিক্ষার প্রসার ও অর্থনৈতিক প্রক্রিয়া রূপান্তরে নারীর ক্ষমতায়ন বিশেষ ভূমিকা পালন করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশনকে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মরিয়ম ইসলাম লিজার মতো বাংলাদেশের সব নারী নিঃসংকোচে-নির্ভয়ে এগিয়ে আসবেন। এমনটাই আশা করেন তিনি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×