শ্বশুরবাড়িতে প্রথম ঈদ

শ্বশুরবাড়িতে প্রথম ঈদ প্রত্যেক নারীর জীবনে এক নতুন উদ্দীপনা। কীভাবে ঈদ আয়োজন ও উদযাপন করবে নতুন পরিবারে। লিখেছেন-

  মুশফিকুল হক মুকিত ০৫ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পারস্পরিক সম্প্রীতি গড়ে ওঠে

সুরাইয়া নিশাত নিশি

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জেনেটিক্স অ্যান্ড প্ল্যান্ট ব্রিডিং থেকে মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন সুরাইয়া নিশাত নিশি। স্বামী মো. জাকির হোসেন সোনালী ব্যাংকে কর্মরত আছেন। বন্ধুত্ব থেকে পরিণয়। শ্বশুরবাড়িতে এবারই তার প্রথম ঈদ। দুজন-দুজনকে দারুণভাবে সাপোর্ট করেন। তাই শ্বশুরবাড়িতে মানিয়ে নিতে এতটুকু বেগ পেতে হয়নি সুরাইয়া নিশাত নিশিকে।

বাড়ির বড় বউ নয়, মেয়ে হিসেবেই শাশুড়ি ওকে কাছে টেনে নিয়েছেন। চাঁদ রাতেই সব কাজ গুছিয়ে রাখবেন। ঈদের দিনটি কীভাবে কাটাবেন এ প্রসঙ্গে সুরাইয়া নিশাত নিশি জানান, ঈদের দিন সকালে শ্বশুরবাড়িতে কাটিয়ে বিকালে বাবা-মায়ের সঙ্গে দেখা করতে যাবেন। অনেকদিন কোথাও ঘুরতে যাওয়া হয় না। এবারের ঈদের পরেরদিন কোথাও ঘুরতে যাওয়ার ইচ্ছা আছে। ঈদ উপলক্ষে অনেক ঈদ উপহার পেয়েছি। শ্বশুর-শাশুড়ির জন্য কিছু কেনাকাটা ইতিমধ্যে করে ফেলেছি। রান্নায় তেমন পারদর্শী নই। তবে ‘কালা ভুনা’ রান্না আমার বেশ ভালো হয়। বাড়িতে অতিথি এলে আমিই আপ্যায়ন করব। এতে সবার সঙ্গে পারস্পরিক সম্প্রীতি গড়ে ওঠে। বাবার বাড়িতে কোরবানির ঈদের রাতটা অন্যরকম ছিল। আশপাশের প্রতিবেশীদের কোরবানির পশু দেখতে যেতাম। সেই সঙ্গে দাম জানতে চাওয়ার আনন্দও ছিল।

আমার কাছে রান্না শিল্পকলার মতো

তাহসিন মনির চৌধুরী

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবসা প্রশাসনে অনার্স ও যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনায় মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন তাহসিন মনির চৌধুরী। কর্মরত রয়েছেন প্রাভা হেলথ বাংলাদেশ লিমিটেডের ‘এইচআর’ ম্যানেজার পদে।

বিয়ে করেছেন বন্ধু ও সহকর্মী রায়হান মাহমুদকে। শ্বশুরবাড়ি সিলেটে। ঈদ উদযাপন প্রসঙ্গে তাহসিন মনির চৌধুরী বলেন, শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গে ঢাকায় ঈদ উদযাপন করব। চাঁদ রাতে মেন্যু অনুযায়ী রান্নার সব আয়োজন গুছিয়ে রাখব। কোরবানি দেয়ার আগেই সকালের নাস্তায় শাশুড়ি মা ঐতিহ্যবাহী মেন্যুগুলো রান্না করবেন। আমি মিষ্টি এবং বেকিং আইটেমগুলো রান্না করব। শাশুড়ি মায়ের কাছ থেকে রান্নাগুলো শিখে নিব। আমার কাছে রান্না শিল্পকলার মতো। এ ব্যাপারে আমার স্বামীও বেশ সহযোগিতা করে। আমার প্রিয় মেন্যু ‘মাটন রগান জশ’, ‘ক্র‌্যাব ফন্ড’, ‘ডেথ বাই চকোলেট’ রান্না করব।

ঈদের দিন তাজা ফুল দিয়ে ঘর সাজাব। এবারের ঈদটা অন্যসব ঈদ থেকে একটু স্পেশাল। তাই দুপুরের মধ্যে খাওয়া-দাওয়া, অতিথি আপ্যায়ন সেরে ঢাকার বাইরে যাওয়ার ইচ্ছা আছে। প্রতি ঈদে আব্বুর আদরে দিনটি শুরু হতো। ‘তোমাকে দেখতে সুন্দর লাগছে।’ আব্বুকে ছেড়ে ঈদ করব ভাবতেই কষ্ট অনুভব করছি।

একসঙ্গে সবাইকে নিয়ে ঈদ করব

অরুণিকা হক শাম্মা

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাইক্রোবায়োলজি’তে মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন অরুণিকা হক শাম্মা। ইনসেপ্টা ভ্যাক্সিন লিমিটেড-এ কোয়ালটি কন্ট্রোল অফিসার হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

পারিবারিকভাবে অরুণিকা হক শাম্মার বিয়ে হয় তড়িৎ প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মাহফুজের সঙ্গে। পারিবারিকভাবে বিয়ে হলেও তাদের মধ্যে বোঝাপড়াটা বেশ চমৎকার। তার ক্যারিয়ার, স্বপ্ন নিয়ে বেশ অনুপ্রাণিত করেন স্বামী মাহফুজ।

এবারের ঈদ উদযাপন করবেন যশোরে শ্বশুরবাড়িতে। স্বামী, শাশুড়ি, ননদ, ননদের মেয়েসহ আত্মীয়স্বজনদের সঙ্গে নতুন বউ হিসেবে ঈদ করবেন অরুণিকা হক শাম্মা। ঈদটা কেমন কাটাবেন এ প্রসঙ্গে অরুণিকা হক শাম্মা জানালেন, মুরব্বিদের মুখে ‘নতুন বউ’ ডাক শুনতে বেশ ভালো লাগে। ননদের মেয়ের হাতে মেহেদি পড়াব। রান্না তেমন পারি না। ইউটিউবে ভিডিও দেখে দ্রুত রান্না শিখে নিব। রান্না-বান্না, অতিথি আপ্যায়নে কেটে যাবে ঈদের দিনটা। ঈদ নিয়ে খুব নির্দিষ্ট কোনো পরিকল্পনা নেই। শ্বশুরবাড়িতে নতুন বউয়ের দায়িত্বটা ভালোভাবে পালন করতে চাই। ঈদ উপহার হিসেবে সবার জন্য কেনাকাটাও করছি। বাবা-মাকে ছেড়ে শ্বশুরবাড়িতে প্রথম ঈদ উদযাপন করব। নতুন পরিবারের সঙ্গে নতুন অভিজ্ঞতার ভেতর দিয়ে ঈদের আনন্দটাকেও উপভোগ করতে চাই।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×