খান সাম্রাজ্যে ভাটা

  আখন্দ জাহিদ ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

খান সাম্রাজ্যে ভাটা

বিশ্বের সুবিশাল সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি হলিউডের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে চলেছে ভারতীয় সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি। হলিউডের মতোই এখন নিয়মিত বিশাল বাজেটের ছবি নির্মাণ করে বেশ দাপট দেখাচ্ছে বলিপাড়াসহ দক্ষিণ ভারতীয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি।

বিশাল বাজেটের এ ভারতীয় সিনেমার প্রতি বিশ্বের দর্শকের থাকে প্রবল আগ্রহ। ছবি মুক্তির পর থেকেই বক্স অফিসে একশ, দুইশ আর তিনশ কোটি রুপি আয়ের ক্লাবের রেকর্ড ভাঙতেই ব্যস্ত নির্মাতারা।

চলতি বছরেও বলিউডে ছবি মুক্তির সংখ্যা কম নয়। এর মধ্যে সব ছবিই কিন্তু হিট নয়। যে ছবিগুলো মুক্তির আগে আলোচনায় ছিল তার মধ্যে অনেকগুলোই মুক্তির পর মুখ থুবড়ে পড়েছে।

এ বছরে বলিপাড়ায় সুপারহিটের তালিকায় কয়েকটি ছবি থাকলেও ব্লকবাস্টারের তালিকায় নেই কোনো ছবি।

এ বছর সুপারহিট ছবির তালিকায় প্রথম রয়েছে ‘সানজু’। বলিউড অভিনেতা সঞ্জয় দত্তের বায়োগ্রাফি নিয়ে নির্মিত এ ছবির মাধ্যমে ভাগ্যের চাকা ঘুরল রণবীর কাপুরের।

যতই ভালো অভিনেতা বা অভিনেত্রী হোন না কেন, তাদের ছবি যদি বক্স অফিসে সেভাবে ব্যবসা না করতে পারে তাহলে তা যে কোনো অভিনেতার জন্যই হতাশার। আদপে বক্স অফিস অনেকটাই ঠিক করে দেয় একজন-অভিনেতা-অভিনেত্রীর ভবিষ্যৎ। অসাধারণ অভিনেতা হওয়া সত্ত্বেও রণবীর কাপুর দীর্ঘদিন ধরে বক্স অফিসে সেভাবে সুবিধা করতে পারছিলেন না।

রাজকুমার হিরানি পরিচালিত ‘সানজু’ রণবীরকে নতুন রূপে জন্ম দিল। মুক্তির পর থেকে বক্সঅফিসে ‘সানজু’র আয় প্রায় ৩৪৩ কোটি রুপি।

‘পদ্মাবত’। চলতি বছর বলিউডে আরেকটি হিট ছবির নাম। যার পূর্বে নাম ছিল ‘পদ্মাবতী’। এ বছর মুক্তিপ্রাপ্ত ভারতীয় মহাকাব্যিক সময়ের নাট্য চলচ্চিত্র। এটি পরিচালনা করেন সঞ্জয়লীলা বানশালি।

ছবিতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেন দীপিকা পাড়–কোন, পাশাপাশি শাহিদ কাপুর মহারাওয়াল রতন সিং চরিত্রে এবং রনবীর সিং সুলতান আলাউদ্দিন খিলজি চরিত্রে অভিনয় করেন।

মালিক মুহম্মদ জায়সী রচিত ‘পদ্মাবত’ (১৫৪০) মহাকাব্যের ওপর ভিত্তি করে নির্মিত এ ছবিতে রাজপুত রানী পদ্মাবতীর কাহিনীর বিবৃতি করে, যিনি খিলজি থেকে নিজেকে বাঁচাতে আত্ম বলিদান দেন। ভারতের কিছু রাজ্যে নিষিদ্ধ থাকা সত্ত্বেও এটি বক্সঅফিসে আয় করে ৩০২ কোটি রুপি।

দক্ষিণ ভারতীয় অভিনেতা রজনীকান্ত অভিনীত ছবি রিলিজ হওয়া মানে তার ভক্তদের কাছে একটা উৎসব। যদি তার সঙ্গে বলিউডের কোনো সুপারস্টার থাকেন তাহলে তো কথাই নেই।

এ বছর সে ঘটনাই ঘটেছে। রজনীকান্ত ও অক্ষয় কুমার মিলে দুই সুপারস্টারের প্রথমবার অনস্ক্রিন পারফরমেন্স। তার সঙ্গে ঝকঝকে ভিএফএক্স, দুর্দান্ত মেকআপ, সূক্ষ্ম পাঞ্চলাইনে ‘রোবট : ২.০’ ছিল বছরের সেরা একটি প্যাকেজ।

মুক্তির পরে ব্লকবাস্টার হবে, সেটা আগেই আন্দাজ করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। রিপোর্ট বলছে প্রথম দিনের কালেকশনের নিরিখে হিন্দি ছবির তালিকায় আট নম্বর স্থানে রয়েছে এ ছবি। বিশ্বজুড়ে প্রায় ৪ হাজার সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। বছরের শেষ দিকে ব্লকবাস্টার না হলেও ছবিটি এ মুহূর্তে বাম্পার হিট পর্যায়ে রয়েছে।

অন্যদিকে আমির খানের ‘থাগস অব হিন্দুস্তান’ নিয়ে ছিল আকাশছোঁয়া প্রত্যাশা। মুক্তির আগে আলোচনায় ছিল নতুন গেটাপে ফিরে আসা এই বলিউড পারফেকশনিস্টকে নিয়ে।

কিন্তু ছবিটি মুক্তির পর ব্যবসায়িকভাবে ব্যাপক মার খেয়েছে। আশানুরূপ সাফল্য পায়নি। বরং আমির হয়েছেন সমালোচিত। অন্যদিকে এ বছর সালমান খানের ‘রেস-৩’ ছবিটিও ব্যাপক আলোচনা সত্ত্বেও আলো ছড়াতে পারেনি। বক্স অফিসে ‘রেস-৩’ এর আয় আশানারূপ নয় বলেই ভারতীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে।

দুই খানের এ মন্দার বাজারে বছরের শেষে সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে শেষ ভরসা হিসেবে যুক্ত হয়েছিলেন বলিউড বাদশা শাহরুখ খান। বছরের একেবারে শেষ প্রান্তে এসে মুক্তি পেয়েছে তার বহুল আলোচিত ছবি ‘জিরো’। এ ছবিতে বামুন চরিত্রে হাজির হওয়া শাহরুখের দিকেই তাকিয়ে ছিল বক্সঅফিস।

কিন্তু তিনিও নিরাশ করেছেন। মন্দার বাজারে ‘জিরো’ বলিউড বাদশাহকে ‘হিরো’ করতে পারেনি! তাই বলা যায়, বছর শেষে খান সাম্রাজ্যে ভাটা নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে।

এ ছাড়া বলিপাড়ার মন্দার এ বাজারে চলতি বছর একশ কোটি রুপির ক্লাবে পা রেখেছে ‘বাঘি-২’, ‘স্ট্রি’, ‘রাজি’, ‘বাধি হো’, ‘গোল্ড’, ‘সনু কে টিটু কি সুইটি’ ও ‘রেইড’।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×