আবার বসন্ত : অসম প্রেম নাকি পারিবারিক বন্ধন?

কিছুটা রহস্য নিয়েই কাজ করেন চিত্রপরিচালক অনন্য মামুন। বলা যায় তার মিডিয়া ক্যারিয়ারটাই রহস্যে ঘেরা। এবারও এমন একটি ছবি বানিয়েছেন, যার পরতে পরতে ছড়িয়ে আছে রহস্যের বেড়াজাল। ছবির নাম ‘আবার বসন্ত’। কখনও মনে হয়েছে এ ছবিটি কোনো অসম প্রেমের গল্পে তৈরি। আবার কখনও মনে হয় পারিবারিক টানাপোড়েনের হিসাব-নিকাশ। সবকিছুর মধ্যে নির্মাতার মুখে কুলুপ এঁটে থাকাটা আরও রহস্যময় করে তুলছে পরিবেশ। তবে নির্মাতার একটাই কথা- একটি ভালো ছবি বানিয়েছি। দেখলে দর্শকের টাকা উসুল। কিন্তু কীভাবে? সেটাই বিস্তারিত জানাচ্ছেন-

  এফ আই দীপু ২১ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে তারিক আনাম খান ও অর্চিতা স্পর্শিয়ার বেশ কয়েকটি স্থিরচিত্র মাসখানেক ধরে ঘুরপাক খাচ্ছিল। নিশ্চয়ই কোনো নাটকের স্থিরচিত্র এগুলো- শুরুতে এমনটাই ধরে নিয়েছিলেন অনেকে। কিন্তু দিনকয়েক পরে বিষয়টি পরিষ্কার করেন এ সময়ের সিনে নির্মাতা অনন্য মামুন। এটি একটি পূর্ণদৈর্ঘ্য ছবি। নাম ‘আবার বসন্ত’। নির্মাতাকে তাৎক্ষণিক নানা প্রশ্নবানে জর্জরিত করেছেন অনেকে। জানতে চেয়েছিলেন, তাহলে এ ছবির নায়ক কে? নায়িকা কী স্পর্শিয়া? তারিক আনাম খানের উপস্থিতি ঠিক কী ধরনের চরিত্রে? অনেক প্রশ্ন যখন মাথার চারদিকে ঘুরছিল তখন নির্মাতা একটি যুৎসই উত্তর বের করেন। তিনি এক কথায় সব প্রশ্নের জবাব দেন, ‘গল্পই এ ছবির নায়ক-নায়িকা।’ নির্মাতার এমন উত্তরে অনেকের ভাবনার জগৎটা একটু ভিন্ন সুরে বইতে শুরু হল। তাহলে এটা কী অসম প্রেমের গল্প? তারিক আনাম ও স্পর্শিয়া ছাড়া তো আর গুরুত্বপূর্ণ কারও উপস্থিতির স্থিরচিত্র দেখা যাচ্ছে না। গল্প নিয়ে সন্দেহের ডালপালা আরও বিস্তার করল আরও কিছু স্থিরচিত্র। যেখানে বাথরুমের বাথটাবে রোমান্সের ভঙ্গিতে তারিক আনাম খান ও স্পর্শিয়ার উপস্থিতি রয়েছে। জিজ্ঞাসার দৃষ্টি আরও উন্মুখ। তবুও পরিচালকের মুখে কুলুপ দেয়া। শুধু এটুকু বললেন, পারিবারিক অটুট বন্ধনের ছোঁয়া আছে এ ছবিতে!

প্রশ্নের পাল্লা যখন ভারী হতে চলেছে তখন পরিচালক অনন্য মামুন ছবি সম্পর্কে কিছুটা খোলসা করলেন আরও কিছু প্রশ্ন জুড়ে দিয়ে। বাবা-মায়ের বয়স যখন ষাটোর্ধ্ব হয়ে যায় তখন তাদের কি একমাত্র কাজ ধর্ম-কর্ম করা? মৃত্যুর জন্য প্রহর গোনা? তাদের জীবনে কি কোনো বসন্ত নেই। এসব প্রশ্নের উত্তর রয়েছে ‘আবার বসন্ত’ ছবিতে। বোঝা গেল ছবি নিয়ে কিছুটা কৌতূহল ধরে রাখতে চাইছেন পরিচালক। তবে বেসিক কিছু প্রশ্ন তার কাছে করাই যায়। এই যেমন-

ঢাকাই সিনেমার এ মন্দার বাজারে প্রতিষ্ঠিত নায়ক-নায়িকা ছাড়া কেন এমন একটি ছবি বানানোর সাহস করলেন?

উত্তরে অনন্য মামুন বললেন, ‘দেখুন, ইন্ডাস্ট্রির মন্দা সময় চলছে কিন্তু ভালো গল্পনির্ভর ছবির অভাবে। অন্যান্য কারণগুলোর মধ্যে এটি অন্যতম। আমি আগেই বলেছি আমার এ ছবির গল্পই হচ্ছে নায়ক-নায়িকা। আমার বিশ্বাস, ছবিটি যখন দর্শকরা দেখবেন গল্পের মধ্যেই ডুবে থাকবেন। সেখানে বড় কোনো নায়ক-নায়িকা খুঁজবেন বলে আমার মনে হয় না।’

এরই মধ্যে পরিচালক নিজ থেকেই প্রশ্ন তৈরি করে ফেলেন। যেন আগে থেকেই জানতেন এমন প্রশ্নই করা হবে তাকে। অনেকটা কৈফিয়ত বলা চলে। মামুন বলেন, ‘যদি আমাকে প্রশ্ন করেন তারিক আনাম খানকে কেন নির্বাচিত করেছেন, আমি বলব- তারিক আনাম ভাই আমাদের দেশের চলচ্চিত্র এবং মঞ্চের একজন শক্তিশালী অভিনেতা। তার সঙ্গে আমার প্রথম কাজ হয় ইন্দুবালা ওয়েব সিরিজে। আমি যখন এ ছবির গল্প নির্বাচন করি তখন তার বিকল্প অন্য কাউকে ভাবতে পারিনি। ছবিটি দেখার পর দর্শকরাও আমার সঙ্গে সম্মত হবেন আমার নির্বাচন সঠিক ছিল কিনা।’

পরিচালককে বিদায় দেয়ার শেষ প্রশ্ন, আপনার কী মনে হয়, মন্দার বাজারে এ ছবিটি দর্শক দেখবেন?

কোনো ভাবনা ছাড়াই নির্মাতা বলেন, ‘ভালো ছবি ভালো ছবি বলে সবাই সামাজিক কিংবা গণমাধ্যমজুড়ে চিৎকার করছেন। আমি সেই ভালো ছবিটাই নির্মাণ করে কমিটমেন্ট রেখেছি। এবার দেখার পালা, দর্শকরা তাদের কমিটমেন্ট কতটুকু রাখেন?’

আবার বসন্তের খুঁটিনাটি বিষয়াদির মধ্যে রয়েছে- এ ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন ইমতু রাতিশ, মুকিত জাকারিয়া, মনিরা মিঠু, কবরি রিজভী, সায়েম সামাদ, ত্রিশনা, আবু সাঈদ খান, আনন্দ প্রমুখ। ছবিটি প্রযোজনা করেছেন ট্রান্স আটলান্টিক মাল্টিমিডিয়া। ডিজিটাল পার্টনার হিসেবে রয়েছে লাইভ টেকনোলজিস। এ ছবির দুটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন চিশতী বাউল ও কোনাল। এ ছবির মাধ্যমে প্রথমবার সিনেমার গান গাইলেন চিশতী বাউল। ছবিটি আগামী ৫ এপ্রিল মুক্তি দেয়া হবে বলে নির্মাতা জানিয়েছেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×