কান উৎসবে উচ্ছল নারীরা
jugantor
কান উৎসবে উচ্ছল নারীরা

  এসএম শাফায়েত  

১৫ জুলাই ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনা মহামারির মধ্যেই দক্ষিণ ফ্রান্সের সাগরপারের শহর কানে বেশ জমে উঠেছে বিশ্ব চলচ্চিত্রের সবচেয়ে বড় আসর ৭৪তম কান চলচ্চিত্র উৎসব। ৬ জুলাই থেকে শুরু হওয়া এ আয়োজনের পর্দা নামবে ১৬ জুলাই। এবারের আয়োজনে নারীদের প্রতিনিধিত্বই বেশি লক্ষ করা গেছে। আসরের মূল প্রতিযোগিতা বিভাগের বিচারক প্যানেলে পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যাই বেশি। আট বিচারকের পাঁচজনই নারী। তারা হলেন সেনেগাল-ফরাসি পরিচালক মাতি দিওপ, কানাডিয়ান-ফরাসি সংগীতশিল্পী মিলেন ফারমা, আমেরিকান অভিনেত্রী ম্যাগি জিলেনহাল, অস্ট্রিয়ান পরিচালক জেসিকা হাউসনার, ফরাসি অভিনেত্রী মেলানি ল্যঁহো।

২০১৯ সালের মতো রেকর্ডসংখ্যক চার নারী পরিচালকের ছবি রয়েছে এবারের মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে। এরা হলেন ফরাসি নারী নির্মাতা ক্যাথেরিন করসিনি, ফরাসি পরিচালক আইসা মাইজার, ফরাসি পরিচালক ইভা উসোর ও রোমানিয়ার তেওদোরা আনা মিহাই। এরই মধ্যে তাদের ছবি প্রদর্শিতও হয়েছে। অন্যদিকে ক্যামেরা দ’র বিভাগের প্রধান বিচারক মেলানি থিয়েরিও একজন নারী।

এদিকে উৎসবের লালগালিচায়ও অভিনেত্রীরা দ্যুতি ছড়াচ্ছেন। ফরাসি অভিনেত্রী মারিয়ঁন কঁতিয়া, আমেরিকান অভিনেত্রী জোডি ফস্টার, জেসিকা চ্যাস্টেইন, জার্মান অভিনেত্রী ডায়েন ক্রুজার, বেলজিয়ান গায়িকা অ্যাঞ্জেলসহ অনেকে ঝলমলে পোশাকে আলো কেড়েছেন। সবচেয়ে বেশি উচ্ছ্বাস দেখা গেছে বাংলাদেশের অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধনের মধ্যে। কারণ তার অভিনীত ছবিই যে প্রথমবার কান উৎসবে মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ পরিচালিত ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ ছবির মাধ্যমে বাঁধন লালগালিচায় হেঁটেছেন, পোশাকের বাহার দেখিয়েছেন, বাংলাদেশকে তুলে ধরেছেন বিশ্ব চলচ্চিত্রের মঞ্চে। তার উচ্ছ্বাসটা বেশি হওয়াটাই স্বাভাবিক। প্রতিনিয়তই সবকিছু তিনি শেয়ার করছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

কান উৎসবে উচ্ছল নারীরা

 এসএম শাফায়েত 
১৫ জুলাই ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনা মহামারির মধ্যেই দক্ষিণ ফ্রান্সের সাগরপারের শহর কানে বেশ জমে উঠেছে বিশ্ব চলচ্চিত্রের সবচেয়ে বড় আসর ৭৪তম কান চলচ্চিত্র উৎসব। ৬ জুলাই থেকে শুরু হওয়া এ আয়োজনের পর্দা নামবে ১৬ জুলাই। এবারের আয়োজনে নারীদের প্রতিনিধিত্বই বেশি লক্ষ করা গেছে। আসরের মূল প্রতিযোগিতা বিভাগের বিচারক প্যানেলে পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যাই বেশি। আট বিচারকের পাঁচজনই নারী। তারা হলেন সেনেগাল-ফরাসি পরিচালক মাতি দিওপ, কানাডিয়ান-ফরাসি সংগীতশিল্পী মিলেন ফারমা, আমেরিকান অভিনেত্রী ম্যাগি জিলেনহাল, অস্ট্রিয়ান পরিচালক জেসিকা হাউসনার, ফরাসি অভিনেত্রী মেলানি ল্যঁহো।

২০১৯ সালের মতো রেকর্ডসংখ্যক চার নারী পরিচালকের ছবি রয়েছে এবারের মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে। এরা হলেন ফরাসি নারী নির্মাতা ক্যাথেরিন করসিনি, ফরাসি পরিচালক আইসা মাইজার, ফরাসি পরিচালক ইভা উসোর ও রোমানিয়ার তেওদোরা আনা মিহাই। এরই মধ্যে তাদের ছবি প্রদর্শিতও হয়েছে। অন্যদিকে ক্যামেরা দ’র বিভাগের প্রধান বিচারক মেলানি থিয়েরিও একজন নারী।

এদিকে উৎসবের লালগালিচায়ও অভিনেত্রীরা দ্যুতি ছড়াচ্ছেন। ফরাসি অভিনেত্রী মারিয়ঁন কঁতিয়া, আমেরিকান অভিনেত্রী জোডি ফস্টার, জেসিকা চ্যাস্টেইন, জার্মান অভিনেত্রী ডায়েন ক্রুজার, বেলজিয়ান গায়িকা অ্যাঞ্জেলসহ অনেকে ঝলমলে পোশাকে আলো কেড়েছেন। সবচেয়ে বেশি উচ্ছ্বাস দেখা গেছে বাংলাদেশের অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধনের মধ্যে। কারণ তার অভিনীত ছবিই যে প্রথমবার কান উৎসবে মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ পরিচালিত ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ ছবির মাধ্যমে বাঁধন লালগালিচায় হেঁটেছেন, পোশাকের বাহার দেখিয়েছেন, বাংলাদেশকে তুলে ধরেছেন বিশ্ব চলচ্চিত্রের মঞ্চে। তার উচ্ছ্বাসটা বেশি হওয়াটাই স্বাভাবিক। প্রতিনিয়তই সবকিছু তিনি শেয়ার করছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন