নতুন পরিচয়ে কতটা সফল হবেন!
jugantor
সাংবাদিক মৌসুমী
নতুন পরিচয়ে কতটা সফল হবেন!

  তারা ঝিলমিল প্রতিবেদক  

০২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজে ছাপা সংবাদপত্রের প্রচণ্ড প্রতিযোগিতা ও টিকে থাকার লড়াইয়ের মধ্যে সম্প্রতি একটি ম্যাগাজিনের নির্বাহী সম্পাদকের দায়িত্ব নিয়েছেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী। অভিনয়কেন্দ্রিক পেশাগত দায়িত্বের বাইরে এটা একেবারেই ভিন্ন এবং বুদ্ধিভিত্তিক একটি কাজ। ‘আমি পারব’-সেই ব্রতেই দায়িত্বটি নিয়েছেন বলে সম্প্রতি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন এ নায়িকা। যেখানে দৈনিক পত্রিকাগুলো এখন প্রচণ্ড চাপের মুখে রয়েছে, সেখানে একটি সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন নিয়ে কীভাবে এই বন্ধুর পথ পাড়ি দেবেন? এমন প্রশ্নে মৌসুমী বলেন, ‘প্রথম কথা হচ্ছে, খবরের কাগজে কাজ করার ইচ্ছাটা আমার অনেকদিন আগের। খবর পড়তে ভালো লাগে, তাই লেখার বিষয়টাও আমাকে টানত। এ লক্ষ্যেই একটি অনলাইনেরই দায়িত্ব নিয়েছিলাম বছর দুয়েক আগে। কিন্তু অর্থনৈতিক কারণে সেটার ইনভেস্টর সরে যাওয়াতে নিজের পক্ষে টেনে নেওয়া সম্ভব হয়নি। তাই আমার ইচ্ছাটাও চাপা পড়ে যায়। এবার বলা যায় পুরোনো ইচ্ছাটাই নতুন করে সামনে নিয়ে এসেছি। প্রতিযোগিতা তো আছেই, কিছুদিন কাজ করে দেখি কতটা সামলাতে পারি। পরে অন্য কিছু ভাবা যাবে।’ উত্তরটা জুতসই হলেও প্রশ্ন কিন্তু থেকেই যায়, সাংবাদিকতার এই যুগে তিনি কতটা ছাড় দিয়ে একটি ম্যাগাজিন সম্পাদনা করতে পারবেন?

সাংবাদিক মৌসুমী

নতুন পরিচয়ে কতটা সফল হবেন!

 তারা ঝিলমিল প্রতিবেদক 
০২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজে ছাপা সংবাদপত্রের প্রচণ্ড প্রতিযোগিতা ও টিকে থাকার লড়াইয়ের মধ্যে সম্প্রতি একটি ম্যাগাজিনের নির্বাহী সম্পাদকের দায়িত্ব নিয়েছেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী। অভিনয়কেন্দ্রিক পেশাগত দায়িত্বের বাইরে এটা একেবারেই ভিন্ন এবং বুদ্ধিভিত্তিক একটি কাজ। ‘আমি পারব’-সেই ব্রতেই দায়িত্বটি নিয়েছেন বলে সম্প্রতি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন এ নায়িকা। যেখানে দৈনিক পত্রিকাগুলো এখন প্রচণ্ড চাপের মুখে রয়েছে, সেখানে একটি সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন নিয়ে কীভাবে এই বন্ধুর পথ পাড়ি দেবেন? এমন প্রশ্নে মৌসুমী বলেন, ‘প্রথম কথা হচ্ছে, খবরের কাগজে কাজ করার ইচ্ছাটা আমার অনেকদিন আগের। খবর পড়তে ভালো লাগে, তাই লেখার বিষয়টাও আমাকে টানত। এ লক্ষ্যেই একটি অনলাইনেরই দায়িত্ব নিয়েছিলাম বছর দুয়েক আগে। কিন্তু অর্থনৈতিক কারণে সেটার ইনভেস্টর সরে যাওয়াতে নিজের পক্ষে টেনে নেওয়া সম্ভব হয়নি। তাই আমার ইচ্ছাটাও চাপা পড়ে যায়। এবার বলা যায় পুরোনো ইচ্ছাটাই নতুন করে সামনে নিয়ে এসেছি। প্রতিযোগিতা তো আছেই, কিছুদিন কাজ করে দেখি কতটা সামলাতে পারি। পরে অন্য কিছু ভাবা যাবে।’ উত্তরটা জুতসই হলেও প্রশ্ন কিন্তু থেকেই যায়, সাংবাদিকতার এই যুগে তিনি কতটা ছাড় দিয়ে একটি ম্যাগাজিন সম্পাদনা করতে পারবেন?

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন