কাজ নিয়ে আলোচনায় নেই কেউ
jugantor
কাজ নিয়ে আলোচনায় নেই কেউ

  তারা ঝিলমিল প্রতিবেদক  

১৪ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনার কারণে বিনোদন ভুবন থমকে গিয়েছিল গত বছরের বেশিরভাগ সময়। তবে কয়েক ধাপে লকডাউন শেষে এখন আবার চাঙা হয়েছে বিনোদনপাড়া। নাটক-সিনেমা নির্মাণে মুখর নির্মাতা ও অভিনয়শিল্পীরা। বিশেষ করে প্রথম সারির অভিনয়শিল্পীরা অভিনয়ে ব্যস্ত আছেন এখন। কিন্তু বর্তমানে কাজের চেয়ে অন্য বিষয় নিয়ে আলোচনায় থাকার দিকেই ঝোঁক দেখা গেছে বেশিরভাগ তারকার মধ্যে।

এর সর্বশেষ উদাহরণ হলো চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক। মাদককাণ্ডে বলিউড সুপারস্টার শাহরুখ খানের পুত্র গ্রেফতার হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে সহমর্মিতা জানিয়ে তার পাশে থাকার কথা জানিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন তিনি। এ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। এ নিয়ে বাদানুবাদও হয়েছে সাইমনভক্ত ও গণমাধ্যম কর্মীদের মধ্যে। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া পরীমনি কাণ্ডেও অনেকে এ নায়িকাকে ব্যবহার করে বিকল্পভাবে আলোচনায় থাকার চেষ্টা করেছেন। পরীমনিও মাকদের জন্য গ্রেফতার হয়েছিলেন। অন্যদিকে এ চিত্রনায়িকা কখনোই অভিনয়বিষয়ক কাজ নিয়ে আলোচনায় ছিলেন না। ব্যক্তিগত জীবনের ঘটনার কারণে মামলা, হাজতবাস করে টক অব দ্য কান্ট্রিতে পরিণত হন তিনি। মিডিয়ায় আসার পর কোনো সিনেমা দিয়ে এখন পর্যন্ত আলোচনায় আসতে পারেনি। কিন্তু তাকে নিয়ে সমালোচনা আকাশচুম্বী। কাজের বাইরের আলোচনা কিংবা সমালোচনা এখনো চলমান।

অভিনয়ে নিয়মিত থাকলেও ইদানীং এ মাধ্যমের কোনো কাজ নিয়ে আলোচনায় নেই শবনম ফারিয়া। বিতর্কিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালিতে চাকরিতে যোগ দিয়ে অন্য ধরনের আলোচনায় ছিলেন এ অভিনেত্রী। প্রতিষ্ঠানটির প্রতারণার সঙ্গে তার সম্পৃক্ততার অভিযোগও করেন কেউ কেউ। এদিকে অভিনয়ে নিয়মিত কাজ করলেও গত দুই বছর ধরেই নতুন কোনো গান নিয়ে আলোচনায় আসেননি তাহসান। তিনিও ইভ্যালির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। শবনম ফারিয়ার পাশাপাশি তারও নামও উচ্চারণ করেন কেউ কেউ। তবে তাহসান অনেক আগে এ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ করেছেন বলে জানিয়েছেন গণমাধ্যমকে।

তালিকায় আরও অনেকের নাম রয়েছে, যারা আলোচনায় থাকার জন্য নানা কায়দায় নানাভাবে কৌশল অবলম্বন করে যাচ্ছেন, যা দর্শক ভক্তদের কাছে দৃষ্টিকটু মনে হয়। এ ধরনের প্রচার থেকে তারকাদের বের হয়ে এসে কাজে মন দেওয়ার বিষয়ে জোর দেওয়ার অনুরোধ করছেন অনেকেই। তা নাহলে এটি একটি মানসিক ব্যাধির পর্যায়ে চলে যেতে পারে বলে অভিমত সংশ্লিষ্টদের।

কাজ নিয়ে আলোচনায় নেই কেউ

 তারা ঝিলমিল প্রতিবেদক 
১৪ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনার কারণে বিনোদন ভুবন থমকে গিয়েছিল গত বছরের বেশিরভাগ সময়। তবে কয়েক ধাপে লকডাউন শেষে এখন আবার চাঙা হয়েছে বিনোদনপাড়া। নাটক-সিনেমা নির্মাণে মুখর নির্মাতা ও অভিনয়শিল্পীরা। বিশেষ করে প্রথম সারির অভিনয়শিল্পীরা অভিনয়ে ব্যস্ত আছেন এখন। কিন্তু বর্তমানে কাজের চেয়ে অন্য বিষয় নিয়ে আলোচনায় থাকার দিকেই ঝোঁক দেখা গেছে বেশিরভাগ তারকার মধ্যে।

এর সর্বশেষ উদাহরণ হলো চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক। মাদককাণ্ডে বলিউড সুপারস্টার শাহরুখ খানের পুত্র গ্রেফতার হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে সহমর্মিতা জানিয়ে তার পাশে থাকার কথা জানিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন তিনি। এ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। এ নিয়ে বাদানুবাদও হয়েছে সাইমনভক্ত ও গণমাধ্যম কর্মীদের মধ্যে। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া পরীমনি কাণ্ডেও অনেকে এ নায়িকাকে ব্যবহার করে বিকল্পভাবে আলোচনায় থাকার চেষ্টা করেছেন। পরীমনিও মাকদের জন্য গ্রেফতার হয়েছিলেন। অন্যদিকে এ চিত্রনায়িকা কখনোই অভিনয়বিষয়ক কাজ নিয়ে আলোচনায় ছিলেন না। ব্যক্তিগত জীবনের ঘটনার কারণে মামলা, হাজতবাস করে টক অব দ্য কান্ট্রিতে পরিণত হন তিনি। মিডিয়ায় আসার পর কোনো সিনেমা দিয়ে এখন পর্যন্ত আলোচনায় আসতে পারেনি। কিন্তু তাকে নিয়ে সমালোচনা আকাশচুম্বী। কাজের বাইরের আলোচনা কিংবা সমালোচনা এখনো চলমান।

অভিনয়ে নিয়মিত থাকলেও ইদানীং এ মাধ্যমের কোনো কাজ নিয়ে আলোচনায় নেই শবনম ফারিয়া। বিতর্কিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালিতে চাকরিতে যোগ দিয়ে অন্য ধরনের আলোচনায় ছিলেন এ অভিনেত্রী। প্রতিষ্ঠানটির প্রতারণার সঙ্গে তার সম্পৃক্ততার অভিযোগও করেন কেউ কেউ। এদিকে অভিনয়ে নিয়মিত কাজ করলেও গত দুই বছর ধরেই নতুন কোনো গান নিয়ে আলোচনায় আসেননি তাহসান। তিনিও ইভ্যালির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। শবনম ফারিয়ার পাশাপাশি তারও নামও উচ্চারণ করেন কেউ কেউ। তবে তাহসান অনেক আগে এ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ করেছেন বলে জানিয়েছেন গণমাধ্যমকে।

তালিকায় আরও অনেকের নাম রয়েছে, যারা আলোচনায় থাকার জন্য নানা কায়দায় নানাভাবে কৌশল অবলম্বন করে যাচ্ছেন, যা দর্শক ভক্তদের কাছে দৃষ্টিকটু মনে হয়। এ ধরনের প্রচার থেকে তারকাদের বের হয়ে এসে কাজে মন দেওয়ার বিষয়ে জোর দেওয়ার অনুরোধ করছেন অনেকেই। তা নাহলে এটি একটি মানসিক ব্যাধির পর্যায়ে চলে যেতে পারে বলে অভিমত সংশ্লিষ্টদের।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন