শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে চার গুণী যা বললেন
jugantor
শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে চার গুণী যা বললেন

  তারা ঝিলমিল প্রতিবেদক  

২৭ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে চার গুণী যা বললেন

আগামীকাল চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন। এবারের নির্বাচন ঘিরে অনেক অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা ঘটে গেছে। শিল্পীদের কাছ থেকে এসব আশা করেন না কেউ। বিষয়টি নিয়ে যুগান্তরের কাছে সিনিয়র চার অভিনয়শিল্পী নিজেদের মতামত ব্যক্ত করেছেন। এ প্রসঙ্গে অভিনেতা আলমগীর বলেন, ‘শুনেছি এবারের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বাকবিতণ্ডা চলছে। কাদা ছোড়াছুড়িও হয়। কিন্তু এসব কেন হয় বুঝি না। কার বিরুদ্ধে কে কথা বলে? আমরা সবাই তো শিল্পী। একজন আরেকজনের বিরুদ্ধে কথা বললে নিজেকেই বলা হয়। আমিও আশা করি না। নির্বাচন হবে একদিন। তারপর আমরা সবাই এক। সুতরাং কাদা ছোড়াছুড়ি বন্ধ হোক এটাই চাই।’

অভিনেত্রী শবনম বলেন, ‘কে কার বিরুদ্ধে কথা বলছে? সবাই নিজের কথা ভুলে যাচ্ছে। নিজেই যে নিজের বদনাম করছে এটাও মনে হয় ভুলে যাচ্ছে। এ বিষয়গুলো আমার কানে এলে খুব কষ্ট পাই। নির্বাচন কি এমন যে, এর জন্য বাকবিতণ্ডা করতে হবে! একে অন্যকে নিয়ে কথা বলতে হবে! এমনটা প্রত্যাশা করি না।’

অভিনেত্রী সুচন্দা বলেন, ‘নির্বাচন এলেই কথার ঝুলি বের হয়। আসলে তখন সবাই একে অপরের বিরুদ্ধাচরণ করতে শুনি। আমরা তো শিল্পী। আমাদের থেকে অন্যরা শিখবে। সুতরাং নির্বাচনকে ঘিরে এমন কিছু আশা করি না যা বাইরের মানুষ শুনলে আমাদের নিয়ে বিরূপ চিন্তা করবে।’

গীতিকার ও চলচ্চিত্রকার গাজী মাজহারুল আনোয়ার বলেন, ‘শিল্পী সমিতির নির্বাচন এমন কিছু না যে, এ নিয়ে একে অন্যকে দেষারোপ করতে হবে। শিল্পীরা যদি একে অন্যের বদনাম করতে থাকে তবে ভক্ত দর্শকরা শিল্পীদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে এ বিষয়টি সবার মাথায় রাখা উচিত।’

শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে চার গুণী যা বললেন

 তারা ঝিলমিল প্রতিবেদক 
২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে চার গুণী যা বললেন
ফাইল ছবি

আগামীকাল চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন। এবারের নির্বাচন ঘিরে অনেক অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা ঘটে গেছে। শিল্পীদের কাছ থেকে এসব আশা করেন না কেউ। বিষয়টি নিয়ে যুগান্তরের কাছে সিনিয়র চার অভিনয়শিল্পী নিজেদের মতামত ব্যক্ত করেছেন। এ প্রসঙ্গে অভিনেতা আলমগীর বলেন, ‘শুনেছি এবারের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বাকবিতণ্ডা চলছে। কাদা ছোড়াছুড়িও হয়। কিন্তু এসব কেন হয় বুঝি না। কার বিরুদ্ধে কে কথা বলে? আমরা সবাই তো শিল্পী। একজন আরেকজনের বিরুদ্ধে কথা বললে নিজেকেই বলা হয়। আমিও আশা করি না। নির্বাচন হবে একদিন। তারপর আমরা সবাই এক। সুতরাং কাদা ছোড়াছুড়ি বন্ধ হোক এটাই চাই।’

অভিনেত্রী শবনম বলেন, ‘কে কার বিরুদ্ধে কথা বলছে? সবাই নিজের কথা ভুলে যাচ্ছে। নিজেই যে নিজের বদনাম করছে এটাও মনে হয় ভুলে যাচ্ছে। এ বিষয়গুলো আমার কানে এলে খুব কষ্ট পাই। নির্বাচন কি এমন যে, এর জন্য বাকবিতণ্ডা করতে হবে! একে অন্যকে নিয়ে কথা বলতে হবে! এমনটা প্রত্যাশা করি না।’

অভিনেত্রী সুচন্দা বলেন, ‘নির্বাচন এলেই কথার ঝুলি বের হয়। আসলে তখন সবাই একে অপরের বিরুদ্ধাচরণ করতে শুনি। আমরা তো শিল্পী। আমাদের থেকে অন্যরা শিখবে। সুতরাং নির্বাচনকে ঘিরে এমন কিছু আশা করি না যা বাইরের মানুষ শুনলে আমাদের নিয়ে বিরূপ চিন্তা করবে।’

গীতিকার ও চলচ্চিত্রকার গাজী মাজহারুল আনোয়ার বলেন, ‘শিল্পী সমিতির নির্বাচন এমন কিছু না যে, এ নিয়ে একে অন্যকে দেষারোপ করতে হবে। শিল্পীরা যদি একে অন্যের বদনাম করতে থাকে তবে ভক্ত দর্শকরা শিল্পীদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে এ বিষয়টি সবার মাথায় রাখা উচিত।’

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন