সাক্ষাৎকারে ফাতেমা তুজ জোহরা

তরুণরা নজরুলের গানের প্রতি এখন বেশি আগ্রহী

  যুগান্তর ডেস্ক ২৪ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

তরুণরা নজরুলের গানের প্রতি এখন বেশি আগ্রহী
জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ফাতেমা তুজ জোহরা

একজন কণ্ঠশিল্পী হিসেবেই বেশি পরিচিতি ও জনপ্রিয়তা পেয়েছেন ফাতেমা তুজ জোহরা। কাজী নজরুলের গান নিয়ে কাজ করেন তিনি।

গানের পাশাপাশি অভিনয়েও দেখা গেছে তাকে। এখানেও প্রশংসিত বরেণ্য এ শিল্পী। এছাড়া লেখালেখিও করেন অবসরে। বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী এ সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সম্প্রতি যুগান্তরের মুখোমুখি হয়েছিলেন।

কথা বলেছেন কাজী নজরুল ও নজরুলের গান প্রসঙ্গে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন সোহেল আহসান

যুগান্তর: গান নিয়ে আপনার বর্তমান ব্যস্ততা কেমন?

ফাতেমা তুজ জোহরা: সব সময়ের মতো গানের সঙ্গেই আছি। বিশেষ করে কাজী নজরুলের গান ভালো করে করতে গেলে টাকা খরচ করতে হয়। সেই খরচ এখন আর কেউই করতে চায় না। তবে স্টেজে নিয়মিত গান গাচ্ছি। স্টেজ অনুষ্ঠানগুলোতে নতুনদের উপস্থিতি এখন বেশি। সব সময় নতুনদের সঙ্গে গান করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি না। কিছু সিনিয়র থাকলে গান করি।

যুগান্তর: জাতীয় কবির গান কি যথাযথভাবে সংরক্ষণ হচ্ছে?

ফাতেমা তুজ জোহরা: যতখানি সংরক্ষণ হচ্ছে ততখানি প্রচার হওয়া দরকার। প্রচার হওয়াটাই সমস্যা হয়ে গেছে সেখানটায়। ক্লাসিক্যাল গান অনুষ্ঠানে গাইতে গেলে চিন্তাভাবনা করে গাইতে হয়। শ্রোতা এবং শিল্পী দুই পক্ষ মিলে একটা সমন্বয় ছিল আগে। আগে কে কত সুন্দর গান গাইতে পারে, এ রকম একটা প্রতিযোগিতা ছিল। এখন সেটা অন্যরকমভাবে হচ্ছে। কিছুদিন আগেও গানের সুন্দর একটা পরিবেশ ছিল।

যুগান্তর: নজরুলের গান তরুণ প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিতে কী কী করা উচিত?

ফাতেমা তুজ জোহরা: তরুণরা নজরুলের গানের প্রতি এখন বেশি আগ্রহী। কঠিন কঠিন গান ছেলেমেয়েরা তুলছে, শিখছে। তরুণ প্রজন্ম গান শোনে না এটা মিথ্যা কথা। তরুণ প্রজন্মকে আমরা দোষ দিয়ে ওদের চাপে রাখছি।

ওদের কিন্তু দোষ দেয়া যাবে না। যারা ওদের দোষ দেয়, তারা জানেই না যে তরুণ প্রজন্ম অনেক এগিয়ে গেছে। তারা ক্লাসিক্যাল শিখছে। তারা ভালো গানের কদর করতেও শিখেছে। আমি বিভিন্ন সময় বিচারকের কাজ করেছি, তাই বলব ওদের দোষ দেয়া যাবে না। দোষ দেব তাদের যারা সুস্থ সঙ্গীতকে অসুস্থ করে তুলছে।

যুগান্তর: নজরুলের গানের অনুরাগী হন কীভাবে, কখন?

ফাতেমা তুজ জোহরা: আমি ছোটকাল থেকেই নজরুলের গানের অনুরাগী, যখন নজরুলের গান বুঝিনি। যখন আমি নজরুলের গান নিয়ে এত পড়াশোনা করিনি। তারপর যখন গান করা শুরু করলাম, দেখলাম যে নজরুলের গানের মধ্যে অন্যরকম একটা বিষয় আছে।

সাধারণ মানুষ বুঝতে পারে তার কথা। নজরুলের গান উল্লেখযোগ্য বিষয় আমার জন্য। আধুনিক গান মানেই হালকা ধরনের গান। প্রেম ভালোবাসার কথা আছে। আর অন্যদিকে নজরুলের গান অন্যরকম। আমার বাসায় আমাকে আধুনিক গান করতে দেয়া হতো না।

যুগান্তর: নজরুলের গান নিয়ে কোনো বিশেষ পরিকল্পনা আছে কি আপনার?

ফাতেমা তুজ জোহরা: পরিকল্পনা কী করে করব। আমার হাতের মধ্যে কারও হাত নেই যেটা ধরে আমি এগোব। কেউ কোনো পয়সা দিতে চায় না। নিজের পকেটের পয়সা খরচ করে কেউই গান রেকর্ড করতে পারবে না। তাই পরিকল্পনা তো থাকেই, অর্থাভাবে সেই বিশেষ পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়ন করা কঠিন।

যুগান্তর: আপনি তো অভিনয়ও করেন। এ নিয়ে কোনো কাজ করছেন কি?

ফাতেমা তুজ জোহরা: এখন কোনো অভিনয়ের সঙ্গে নেই আমি। তবে এর আগে অনেক নাটকে আমি অভিনয় করেছি। মাঝে মধ্যেই অভিনয়ের প্রস্তাব পাই। কিন্তু সেগুলোতে কাজ করা হয়নি। এক সময় চলচ্চিত্রে বেশ বড় একটি চরিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব এসেছিল। একবার চিত্রপরিচালক এহতেশাম আমার স্বামীর কাছ থেকে অনুমতিও আদায় করে নিয়েছিল। কিন্তু আমি যাইনি।

যুগান্তর: লেখক হিসেবেও আপনি প্রশংসিত। নতুন কিছু লিখছেন কি?

ফাতেমা তুজ জোহরা: গত বছর নজরুলের গানের ওপর একটা বই প্রকাশ হয়েছে আমার। মুক্তিযুদ্ধের পটভূমিতে একটি উপন্যাস লেখার কাজও চলছে। এখানে আরও বাড়তি কিছু লেখার পরিকল্পনা আছে। মুক্তিযুদ্ধের সময় আমাদের সামাজিক, রাজনৈতিক অনেক ঘটনা ঘটে গেছে। আমাদের সামাজিক চিত্রটাই এ বইতে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter