নাট্যাঙ্গনে কুরবানির ঈদের প্রস্তুতি
jugantor
নাট্যাঙ্গনে কুরবানির ঈদের প্রস্তুতি

  তারা ঝিলমিল প্রতিবেদক  

১৯ মে ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঈদুল ফিতরের প্রভাব ছিল ঈদের সপ্তম দিন পর্যন্ত। তবে এখনো অনেকেই ঈদের আবেশেই মশগুল আছেন। ঈদের ছুটি কাটিয়ে সব কিছু স্বাভাবিক হতে হয়তো আরও কিছুদিন সময় লাগবে। তবে বিনোদন অঙ্গন সরব হয়েছে ঈদের কয়েকদিন পর থেকেই। কুরবানির ঈদের এখনো অনেক দিন বাকি; কিন্তু তার আগেই অনেকে কাজে নেমে পড়েছেন। কারণ গত দুবছর করোনার কারণে অনেকেই পূর্বনির্ধারিত শিডিউল বাতিল করেছেন। সে বিষয়টি শিক্ষা হিসাবে দাঁড়িয়ে আছে সংশ্লিষ্টদের কাছে। তাই আগে থেকেই কুরবানির ঈদের নাটক নির্মাণের বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দিয়ে কাজে নেমেছেন তারা। এর মধ্যে অন্যতম একজন মাবরুর রশীদ বান্নাহ। তিনি ২৫ মে থেকে একখণ্ডের একটি নাটক নির্মাণের সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। তার এ নাটকের কেন্দ্রীয় একটি চরিত্রে অভিনয় করবেন তাহসান। এরপর এ নির্মাতা আরও কয়েকটি নাটক নির্মাণের পরিকল্পনা সাজিয়েছেন।

সম্প্রতি কুরবানির ঈদের জন্য ‘জুনিয়র বয়ফ্রেন্ড’ ও ‘পেইনফুল হানিমুন’ নামে দুটি নাটকের শুটিং করতে নাট্যনির্মাতা সরদার রোকন নেপাল গেছেন; সঙ্গে নিয়ে গেছেন জাহের আলভী, ফারজানা মিহি, তিথি, জাকি আহমেদসহ ছয়জনের একটি দল। গত ঈদের কয়েকদিন পরই সঞ্জয় সমাদ্দার নির্মাণ করেছেন ‘মনের মানুষ’ নামের একটি একখণ্ডের নাটক। এতে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম, বিদ্যা সিনহা মিম প্রমুখ। নাটকটি আগামী ঈদে আরটিভিতে প্রচার হবে বলে জানা গেছে।

এদিকে চলতি মাসের শেষ সপ্তাহের আগেই প্রায় সব অভিনয়শিল্পী ও কলাকুশলী শুটিং শুরু করবেন বলে জানা গেছে। জনপ্রিয় নাট্যাভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব অনেক আগেই শুটিংয়ে ফিরেছেন। আগামী ঈদের আগ পর্যন্ত অনেকটা বিরতিহীনভাবেই কাজ করবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে অপূর্ব বলেন, ‘গত ঈদে প্রচুর কাজের চাপ থাকা সত্ত্বেও সেভাবে শুটিং করতে পারিনি। কারণ রোজার মধ্যে আমার বাবা মারা যান। তা ছাড়া আরও কিছু কাজে ব্যস্ত ছিলাম। আগামী ঈদে আশা করছি ভালো কিছু নাটক নিয়ে দর্শকের সামনে আসতে পারব।’

আফরান নিশোও শুটিং শুরু করেছেন। গত ঈদেও তিনি সক্রিয় ছিলেন নাটকে। প্রচুর নাটকে অভিনয়ের প্রস্তাব থাকলেও হাতেগোনা অল্প কটি কাজ করেন মেহজাবিন চৌধুরী। কুরবানির ঈদের নাটকের শুটিংও তিনি শুরু করেছেন এরই মধ্যে। ফারহান আহমেদ জোভান, তৌসিফ মাহবুব, মনোজ প্রামাণিক, এফএস নাঈম, মুমতাহিনা টয়া, সাবিলা নূর, সাফা কবির, কেয়া পায়েলরা চলতি মাসেই শুটিংয়ে পুরোদমে ব্যস্ত হচ্ছেন বলে জানা গেছে। জ্যেষ্ঠ অভিনয়শিল্পীদের মধ্যে সজলকে গত ঈদে খুব বেশি নাটকে অভিনয়ে দেখা না গেলেও আগামী ঈদের নাটকে তাকে ব্যাপকভাবেই দেখা যাবে বলে জানিয়েছেন। জাহিদ হাসানকে ওমরা হজের কারণে গত ঈদের নাটকে কম দেখা গেছে। তিনিও চলতি মাসেই কুরবানির ঈদের নাটকের শুটিং শুরু করছেন। চঞ্চল চৌধুরী, তারিক আনাম খান, সালাউদ্দিন লাভলু, মীর সাব্বিররা প্রস্তুতি নিচ্ছেন ঈদের নাটকে অভিনয়ের জন্য। করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকলে আগামী ঈদেও প্রায় সব অভিনয়শিল্পীকে নাটকে অভিনয়ে দেখা যাওয়ার সম্ভাবনা আছে বলে অনুমান করছেন নাটক সংশ্লিষ্টরা।

নাট্যাঙ্গনে কুরবানির ঈদের প্রস্তুতি

 তারা ঝিলমিল প্রতিবেদক 
১৯ মে ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঈদুল ফিতরের প্রভাব ছিল ঈদের সপ্তম দিন পর্যন্ত। তবে এখনো অনেকেই ঈদের আবেশেই মশগুল আছেন। ঈদের ছুটি কাটিয়ে সব কিছু স্বাভাবিক হতে হয়তো আরও কিছুদিন সময় লাগবে। তবে বিনোদন অঙ্গন সরব হয়েছে ঈদের কয়েকদিন পর থেকেই। কুরবানির ঈদের এখনো অনেক দিন বাকি; কিন্তু তার আগেই অনেকে কাজে নেমে পড়েছেন। কারণ গত দুবছর করোনার কারণে অনেকেই পূর্বনির্ধারিত শিডিউল বাতিল করেছেন। সে বিষয়টি শিক্ষা হিসাবে দাঁড়িয়ে আছে সংশ্লিষ্টদের কাছে। তাই আগে থেকেই কুরবানির ঈদের নাটক নির্মাণের বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দিয়ে কাজে নেমেছেন তারা। এর মধ্যে অন্যতম একজন মাবরুর রশীদ বান্নাহ। তিনি ২৫ মে থেকে একখণ্ডের একটি নাটক নির্মাণের সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। তার এ নাটকের কেন্দ্রীয় একটি চরিত্রে অভিনয় করবেন তাহসান। এরপর এ নির্মাতা আরও কয়েকটি নাটক নির্মাণের পরিকল্পনা সাজিয়েছেন।

সম্প্রতি কুরবানির ঈদের জন্য ‘জুনিয়র বয়ফ্রেন্ড’ ও ‘পেইনফুল হানিমুন’ নামে দুটি নাটকের শুটিং করতে নাট্যনির্মাতা সরদার রোকন নেপাল গেছেন; সঙ্গে নিয়ে গেছেন জাহের আলভী, ফারজানা মিহি, তিথি, জাকি আহমেদসহ ছয়জনের একটি দল। গত ঈদের কয়েকদিন পরই সঞ্জয় সমাদ্দার নির্মাণ করেছেন ‘মনের মানুষ’ নামের একটি একখণ্ডের নাটক। এতে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম, বিদ্যা সিনহা মিম প্রমুখ। নাটকটি আগামী ঈদে আরটিভিতে প্রচার হবে বলে জানা গেছে।

এদিকে চলতি মাসের শেষ সপ্তাহের আগেই প্রায় সব অভিনয়শিল্পী ও কলাকুশলী শুটিং শুরু করবেন বলে জানা গেছে। জনপ্রিয় নাট্যাভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব অনেক আগেই শুটিংয়ে ফিরেছেন। আগামী ঈদের আগ পর্যন্ত অনেকটা বিরতিহীনভাবেই কাজ করবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে অপূর্ব বলেন, ‘গত ঈদে প্রচুর কাজের চাপ থাকা সত্ত্বেও সেভাবে শুটিং করতে পারিনি। কারণ রোজার মধ্যে আমার বাবা মারা যান। তা ছাড়া আরও কিছু কাজে ব্যস্ত ছিলাম। আগামী ঈদে আশা করছি ভালো কিছু নাটক নিয়ে দর্শকের সামনে আসতে পারব।’

আফরান নিশোও শুটিং শুরু করেছেন। গত ঈদেও তিনি সক্রিয় ছিলেন নাটকে। প্রচুর নাটকে অভিনয়ের প্রস্তাব থাকলেও হাতেগোনা অল্প কটি কাজ করেন মেহজাবিন চৌধুরী। কুরবানির ঈদের নাটকের শুটিংও তিনি শুরু করেছেন এরই মধ্যে। ফারহান আহমেদ জোভান, তৌসিফ মাহবুব, মনোজ প্রামাণিক, এফএস নাঈম, মুমতাহিনা টয়া, সাবিলা নূর, সাফা কবির, কেয়া পায়েলরা চলতি মাসেই শুটিংয়ে পুরোদমে ব্যস্ত হচ্ছেন বলে জানা গেছে। জ্যেষ্ঠ অভিনয়শিল্পীদের মধ্যে সজলকে গত ঈদে খুব বেশি নাটকে অভিনয়ে দেখা না গেলেও আগামী ঈদের নাটকে তাকে ব্যাপকভাবেই দেখা যাবে বলে জানিয়েছেন। জাহিদ হাসানকে ওমরা হজের কারণে গত ঈদের নাটকে কম দেখা গেছে। তিনিও চলতি মাসেই কুরবানির ঈদের নাটকের শুটিং শুরু করছেন। চঞ্চল চৌধুরী, তারিক আনাম খান, সালাউদ্দিন লাভলু, মীর সাব্বিররা প্রস্তুতি নিচ্ছেন ঈদের নাটকে অভিনয়ের জন্য। করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকলে আগামী ঈদেও প্রায় সব অভিনয়শিল্পীকে নাটকে অভিনয়ে দেখা যাওয়ার সম্ভাবনা আছে বলে অনুমান করছেন নাটক সংশ্লিষ্টরা।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন