সঙ্গীতাঙ্গনে ভাইবোনের পথচলা

  যুগান্তর ডেস্ক    ০২ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সঙ্গীতাঙ্গনে ভাইবোনের পথচলা
জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী আগুন ও রোমান ইসলাম

সঙ্গীতের কোনো সীমা নেই। যে কেউ তার কণ্ঠ-সুর-সঙ্গীতের কারিশমা দেখাতে পারেন। জয় করে নিতে পারেন দর্শক-শ্রোতার মন। এ অঙ্গনে জনপ্রিয় ও পরিচিত মুখের মধ্যে অনেকেই রয়েছেন আত্মীয়ের ধারায়। বিশেষ করে ভাইবোনের সম্পর্কেও জড়িয়ে আছেন অনেকে। সঙ্গীতাঙ্গনের সেই ভাইবোনদের গল্প লিখেছেন হাসান সাইদুল

* মোস্তফা জামান আব্বাসী ও ফেরদৌসী রহমান

মোস্তফা জামান আব্বাসী ও ফেরদৌসী রহমানকে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেয়ার মতো কিছু নেই। প্রখ্যাত লোক সঙ্গীতশিল্পী আব্বাসউদ্দীনের সুযোগ্য সন্তান তারা। তাদের গানে হাতেখড়ি ও বেড়ে ওঠা একসঙ্গেই। ১৯৫৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘আসিয়া’ ছবিতে প্রথম একসঙ্গে কণ্ঠ দেন এ দুই শিল্পী। তারপর থেকে টেলিভিশন, বেতার ও মঞ্চে একসঙ্গে গান করেন। বলা যায়, ভাইবোন জুটি হিসেবে একসঙ্গে তারাই প্রথম গান করেন বাংলাদেশে।

* আগুন ও রোমানা

খান আতাউর রহমান এবং নীলুফার ইয়াসমিন বাংলাদেশের সঙ্গীত জগতের দুই কিংবদন্তি। তাদেরই সুযোগ্য সন্তান হিসেবে শুদ্ধ সঙ্গীতচর্চা করছেন মেয়ে রোমানা ইসলাম এবং ছেলে আগুন। ইতিমধ্যে দুই ভাইবোন শ্রোতাদের উপহার দিয়েছেন বেশ কিছু জনপ্রিয় গানের অ্যালবাম। টেলিভিশনের বিভিন্ন গানের অনুষ্ঠানেও তাদের একসঙ্গে দেখা যায়।

* বাদশা বুলবুল ও ডলি সায়ন্তনী

বাদশা বুলবুল বয়সে ডলি সায়ন্তনীর সাত বছরের বড়। সম্পর্কে তারা আপন ভাইবোন। গানে দু’জনের হাতেখড়ি মায়ের কাছেই। এরপর শিখেছেন ওস্তাদ সঞ্জীব দে’র কাছে। দেশ-বিদেশের অনেক শো, টেলিভিশনে একসঙ্গে গান করেছেন বাদশা-ডলি। তবে এখন পর্যন্ত মাত্র একটি মৌলিক গানে একসঙ্গে কণ্ঠ দিয়েছেন তারা। সেটি হচ্ছে ১৯৯৭ সালে প্রকাশিত মিক্সড অ্যালবাম ‘অন্তরে তুমি’র টাইটেল গান।

* বালাম ও জুলি

২০০৬ সালে বালামের মিক্সড অ্যালবাম ‘প্রেম শিকারী’-তে প্রকাশ পায় জুলির প্রথম মৌলিক গান ‘গল্পের ডিঙা’। জুটি হিসেবে কাজ করা ভাইবোনদের মধ্যে জনপ্রিয় বালাম-জুলি। ২০০৮ সালে আসে দু’জনের পূর্ণাঙ্গ অ্যালবাম ‘বালাম ফিচারিং জুলি’। ২০০৯ সালে প্রকাশ পায় তাদের দ্বৈত অ্যালবাম ‘স্বপ্নের পৃথিবী’। ‘প্রিয়তমেষু’ ও ‘ছোট সাহেব’ ছবিতে একসঙ্গে প্লেব্যাকও করেছেন।

* রূপম ও সুমি

রূপম আর ‘লালন’ ব্যান্ডের ভোকাল সুমি- দু’জনে ভাইবোন। গানে দু’জনের হাতেখড়ি বাবা মরহুম মোহাম্মদ আমজাদ হোসেনের কাছে। খুলনায় ওস্তাদ আলী আহমেদের কাছেও শিখেছেন তারা। ১৯৯৯ থেকে ঢাকায় গান করছেন রূপম। নিয়মিত প্লেব্যাকের পাশাপাশি অডিওতে বেশ কিছু গান করেছেন। তার গাওয়া ‘মন জ্বলে’ এবং ‘মন ভাসাইয়া দে’ গান দুটি বেশ জনপ্রিয়। অন্যদিকে সুমি ঢাকায় আছেন ২০০৩ সাল থেকে। ২০০৭ সালে গড়ে তোলেন ব্যান্ড ‘লালন’। আর এই ব্যান্ড দিয়েই সঙ্গীতাঙ্গনে তার প্রতিষ্ঠিত হওয়া, আজকের এই অবস্থানে আসা। ছোটবেলা থেকে ঘরে-বাইরে, আড্ডা-গল্পে একসঙ্গে অনেক কাজ করেছেন রূপম-সুমি। তবে তারা একসঙ্গে কণ্ঠ দেননি কোনো গানে।

* অদিত ও দোলা

সঙ্গীতের অনেক কিছুই নিজে নিজে আত্মস্থ করেছেন অদিত। ২০০৬ সালে ভাইয়ের ব্যান্ড ‘মিথ’-এ প্রকাশ পায় দোলার প্রথম গান ‘বন্ধুতা’। এরপর গত দশক ধরে ব্যান্ড ‘শিরোনামহীন’ ও হাবিব ওয়াহিদের সঙ্গে একটি করে গান ছাড়া দোলার গাওয়া সব গানই অদিতের সুরে। এর মধ্যে রয়েছে ‘হ্যালো অমিত’, ‘দেহরক্ষী’, ‘রাজত্ব’, ‘অগ্নি’, ‘ওয়ান ওয়ে’, ‘আধি’ ছবির গানও। কয়েকটি দ্বৈত গানেও কণ্ঠ দিয়েছেন তারা।

* হাবিব ও সায়ান

একই পরিবারের দুই জনপ্রিয় শিল্পী, হাবীব ওয়াহিদ ও সায়ান। হাবীবের চাচাতো বোন সায়ান। একসঙ্গে কখনও না গাইলেও জনপ্রিয়তার সঙ্গে গান গেয়ে দর্শক-শ্রোতাদের আনন্দ দিয়ে যাচ্ছেন তারা। ফেরদৌস ওয়াহিদ কিংবা হাবীব ওয়াহিদের সঙ্গে সায়ানকে কোনো অনুষ্ঠানে তেমন একটা দেখা যায় না। একবার একমঞ্চে গান পরিবেশন করেছিলেন তারা। ২০১২ সালের ২৩ মে অস্ট্রেলিয়ায় একমঞ্চে ফেরদৌস ওয়াহিদ, হাবীব ওয়াহিদ ও সায়ানকে গাইতে দেখা যায়।

* আবিদা সুলতানা ও ইমন

প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী আবিদা সুলতানা ও সঙ্গীত পরিচালক শওকত আলী ইমন ভাইবোন। বোন আবিদা গান গাইলেও ভাই ইমন সুর ও সঙ্গীত পরিচালনা নিয়ে ব্যস্ত।

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter