ফাঁকা আওয়াজে ঈদের ছবি

  যুগান্তর ডেস্ক    ১৬ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ফাঁকা আওয়াজে ঈদের ছবি

বছরে দুই ঈদ ও পহেলা বৈশাখকে বাংলাদেশিরা বড় উৎসব হিসেবেই উদযাপন করেন। এ তিনটি উৎসব উপলক্ষে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেয়া হয় বড় বাজেটের ছবি। কারণ উৎসব উদযাপন করতে বেশিরভাগ দর্শক প্রেক্ষাগৃহে ছবি দেখতে যান।

অধিক দর্শকের কাছে পৌঁছতে নায়ক-নায়িকারাও ঈদে তাদের ছবি মুক্তি পেলে সেটাকে সৌভাগ্য বলে মনে করেন। আসছে ঈদুল আজহায় অনেক ছবিই মুক্তির আওয়াজ তুলেছে। এর মধ্যে কেউ কেউ আবার আলোচনায় থাকার জন্য ফাঁকা আওয়াজও দিচ্ছেন। ঈদে মুক্তি প্রতীক্ষিত এসব ছবি নিয়ে বিস্তারিত লিখেছেন- এফ আই দীপু

রোজার ঈদের পরপরই শুরু হয়েছে কোরবানি ঈদে ছবি মুক্তির হিসাব-নিকাশ। মুক্তির সম্ভাব্য ছবির তালিকায় এখনও পর্যন্ত অপেক্ষা করছে পাঁচটি ছবি। এসব ছবির মধ্যে কিছু সম্পূর্ণ তৈরি, আবার দু-একটি দ্রুত শুটিং শেষ করে সেন্সরে জমা দেয়া হয়েছে।

পাশাপাশি উৎসবের আমেজে এর মধ্যে ধুয়ে-মুছে পরিষ্কার করা হচ্ছে বেশ কিছু পুরনো ও বন্ধ থাকা প্রেক্ষাগৃহ। শুধু উৎসবেরই হলগুলোতে এমন চিত্র দেখা যায়। এসব কিছুই কিন্তু ঈদের ছবির দর্শক টানতে।

ঈদের ছবি নিয়ে শুধু সিনেমা হল ধুয়ে মুছে পরিষ্কারের ক্ষেত্রেই নয়, প্রচারণায়ও থাকে ভিন্নতা। প্রতি ঈদে নতুন সিনেমা মুক্তি দিয়ে প্রযোজক, পরিচালক কিংবা অভিনেতা-অভিনেত্রীসহ সংশ্লিষ্টরা অপেক্ষায় থাকেন তাদের সিনেমা হিট, সুপারহিট এমনকি ব্লকবাস্টার হবে এ আশায়।

তাই বছরের অন্যান্য সময়ের তুলনায় ঈদের ছবি নিয়ে অনেক আগে থেকেই ঢাকঢোল পেটানো শুরু হয়। কোরবানির ঈদের ছবির জন্য তাই ঈদুল ফিতরের পর থেকেই এ ঢাকঢোলের আওয়াজ শোনা যায়। এবারের ঈদে এখন পর্যন্ত চারটি ছবি মুক্তি দেয়ার কথা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট প্রযোজনা সংস্থা।

ছবিগুলো হচ্ছে- শাকিব খান ও বুবলী অভিনীত ‘ক্যাপ্টেন খান’, সাইমন সাদিক ও মাহিয়া মাহি জুটির ‘জান্নাত’, রোশান-ববির ‘বেপরোয়া’ ও সাইমন-অধরার ‘মাতাল’। অন্যদিকে ‘আহত ফুলের গল্প’ ও ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’ নামে দুটি ছবিও মুক্তির আওয়াজ তুলেছে।

ক্যাপ্টেন খান : শাকিব খান অভিনীত বড় বাজেটের দেশীয় ছবি ‘ক্যাপ্টেন খান’ মুক্তির বিষয়টি পুরোপুরিই নিশ্চিত। রোজার ঈদে দুটি ছবি মুক্তি পেলেও এবারের ঈদে এ নায়কের এই একটি ছবিই মুক্তি পাচ্ছে। সাধারণত দেশি ছবি নিয়ে শাকিব খানের মধ্যে উচ্ছ্বাস কম দেখা যায়। এর কারণও রয়েছে।

দেশি ছবির নির্মাণ, গল্প কিংবা বাজেট দুর্বলতার কারণে ছবিগুলো দর্শকদের কাছে মানের প্রশ্ন নিয়ে উপস্থিত হয়। তবে ক্যাপ্টেন খান ছবিটি নিয়ে তার মন্তব্য ভিন্ন। তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশের নির্মাতারা অনেক মেধাবী। কিন্তু আমাদের প্রযুক্তি দুর্বল।

আমি মনে করি, এ ছবিতে সঠিকভাবে সব ব্যবহার করা হয়েছে। যে কারণে এ ছবিটি বিশ্বমানের একটি ছবি হবে বলে আমার বিশ্বাস। আশা করি, বরাবরের মতো দর্শকদের সাড়া পাব।’ ছবির প্রযোজক জানিয়েছেন, এক মাস আগে থেকেই ক্যাপ্টেন খানের জন্য বুকিং নেয়া শুরু হয়েছে। দুইশ হলে মুক্তির লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। ‘ক্যাপ্টেন খান’ ছবিটি পরিচালনা করছেন ওয়াজেদ আলী সুমন। শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করছেন শবনম বুবলী। ছবিটিতে একটি আইটেম গানের পারফর্ম করেছেন কলকাতার পায়েল মুখার্জি।

জান্নাত : হুট করেই কোরবানির ঈদে ‘জান্নাত’ ছবিটি মুক্তি দেবে বলে ঘোষণা করেন ছবির পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান মানিক। যদিও এর আগে বেশ কয়েকবার মুক্তির তারিখ ঘোষণা করেও পেছানো হয়েছে। তবে এবার আর পেছানো হবে না বলেই জানিয়েছেন পরিচালক।

ছবিটিতে পাঁচ বছর পর আবারও জুটি হয়েছেন সাইমন সাদিক ও মাহিয়া মাহি। ‘জান্নাত’ ছবিতে মাজারের খাদেমের মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন মাহি। তাকে ধার্মিক চরিত্রে দেখা যাবে। আর সেখানে খাদেমের মুরিদের চরিত্র রূপদান করেছেন সাইমন। ছবির অন্যান্য চরিত্রে আছেন আলীরাজ, মিশা সওদাগর ও শিমুল খান। এ ছবির মাধ্যমে প্রথমবার ঈদের মতো বড় কোনো উৎসবে সাইমনের ছবি মুক্তি পাচ্ছে। এর আগে গেল মার্চে ছবিটি সেন্সর ছাড়পত্র পায়।

বেপরোয়া : পশ্চিম বাংলার রাজা চন্দ পরিচালিত বাংলাদেশি ছবি ‘বেপরোয়া’। জাজ মাল্টিমিডিয়া প্রযোজিত এ ছবিতে নায়কের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন রোশান। এ ছবির মাধ্যমে প্রথমবার রোশানের সঙ্গে জুটি হয়েছেন ববি। প্রযোজনা সংস্থা এবারের ঈদে ছবিটি মুক্তির ব্যাপারে চূড়ান্ত ঘোষণা দিলেও এর সামনে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি। কারণ ছবিটির পরিচালক কলকাতার।

দেশের পরিচালক সমিতির অনুমতি না নিয়েই ছবিটি পরিচালনা করেছেন তিনি- এমন অভিযোগ সমিতির। তাই তারা এ ছবি মুক্তির বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন। যদিও প্রযোজক আবদুল আজিজ বলেছেন, দেশীয় আইনে এ ছবি মুক্তিতে কোনো বাধা নেই এবং তারা ছবিটি ঈদে মুক্তি দেবেনই। তার মতে, বাংলাদেশে কোনো আইন নেই যে ছবি বানাতে কারও সদস্যপদ নিতে হবে। এ ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন কাজী হায়াৎ, শহীদুল আলম সাচ্চু, তারিক আনাম খান, নানা শাহ, রেবেকা, কমল পাটেকর প্রমুখ।

মাতাল : ঈদুল আজহায় ‘মাতাল’ ছবিটি মুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ছবির পরিচালক শাহীন সুমন। ছবিটিতে জুটি বেঁধে অভিনয় করছেন সাইমন সাদিক ও নবাগতা অধরা খান। এটি মুক্তি প্রসঙ্গে পরিচালক বলেন, ‘ঈদুল আজহায় মাতাল মুক্তি দেব।

প্রেক্ষাগৃহ কম পেলেও মুক্তি থেকে পিছপা হব না। প্রযোজকের সঙ্গে এ বিষয়ে চূড়ান্ত আলোচনাও হয়েছে।’ যদিও পরিচালকের এ ভাষ্য কতক্ষণ টিকে থাকবে সেটি বলা মুশকিল। কারণ, আগের তিনটি ছবি মুক্তি পেলে এ ছবির জন্য সিনেমা হল পাওয়া দুষ্কর হয়ে পড়বে। এদিকে মাতাল ছবিটি সেন্সরে জমা পড়েছে। ঈদে মুক্তির জন্য প্রচার-প্রচারণাও চালানো হচ্ছে। এ ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হচ্ছে অধরা খানের।

এ ছাড়া অন্তু আজাদ পরিচালিত ‘একটি আহত ফুলের গল্প’ নামে একটি ছবি মুক্তি দেয়ার কথা শোনা যাচ্ছে। সোশ্যাল মাধ্যমে ছবিটি মুক্তি দেয়ার ব্যাপারে প্রচারণাও চালাচ্ছেন পরিচালক। পাশাপাশি শামীমুল ইসলাম শামীমের পরিচালনায় ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’ নামে একটি ছবিও মুক্তির আওয়াজ তুলেছে। এ ছবিতে অভিনয় করেছেন কায়েস আরজু ও পরীমনি। যদিও এটি আওয়াজের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে বলে সিনেবোদ্ধাদের অভিমত।

অন্যদিকে ওয়াজেদ আলী সুমন পরিচালিত কলকাতার বনি ও বাংলাদেশের মাহিয়া মাহি অভিনীত ‘মনে রেখ’ নামে একটি ছবি ঈদে মুক্তি দেয়া হবে বলে ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এরই মধ্যে ছবিটি ছাড়পত্রের জন্য সেন্সরে জমা দেয়াও হয়েছে। যদিও ঈদে মুক্তি দেয়া হবে এ ছবি- এটা কেবলই ফাঁকা আওয়াজ বলে মন্তব্য করেছেন অনেকে। কারণ জাজ মাল্টিমিডিয়ার ‘বেপরোয়া’ যদি মুক্তি পায় এবং শাকিব খানের ‘ক্যাপ্টেন খান’-এর বুকিংয়ের পর খুব কম প্রেক্ষাগৃহ থাকবে। সেটা সংখ্যায় হতে পারে সর্বোচ্চ ২০টি। এর মধ্যেই অন্য ছবিগুলো মুক্তি দিতে হবে। নয়তো আশায় গুড়েবালি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter